ডিজিটাল নিরাপত্তা: ঢাবি ছাত্রীর মামলায় নুরদের পর মামুনকেও অব্যাহতি

‘অভিযোগ গঠনের মত উপাদান না পাওয়ায়’ মামুনকে অব্যাহতি দিয়েছেন বিচারক।

আদালত প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Sept 2022, 08:53 AM
Updated : 12 Sept 2022, 08:53 AM

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ছাত্র অধিকার পরিষদের সাবেক আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকেও অব্যাহতি দিয়েছে আদালত।

সোমবার এ মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি শেষে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেন এই আদেশ দেন।

জামিনে থাকা মামুন এসময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তার পক্ষে অব্যাহতি চেয়ে শুনানি করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শিশির মনির। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে প্রসিকিউটর নজরুল ইসলাম (শামীম) অভিযোগ গঠন করে আসামির বিচার শুরুর আর্জি জানান।

দুই পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক ‘অভিযোগ গঠনের মত উপাদান না পাওয়ায়’ মামুনকে অব্যাহতি দেন।

‘অভিযোগের প্রমাণ না পাওয়ায়’ এ মামলার এজারের বাকি পাঁচ আসামিকেও অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল, যাদের মধ্যে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরও ছিলেন।

এ মামলাটি করেছিলেন হাসান আল মামুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগকারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজের এক শিক্ষার্থী। ধর্ষণের মামলায় সহায়তাকারী হিসেবে নুরকে আসামি করেছিলেন তিনি। বিচার চেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনশনে বসেছিলেন ওই ছাত্রী।

তার অনশনের প্রতিক্রিয়ায় তাকে আক্রমণ করে ২০২০ সালের ১১ অক্টোবর ফেইসবুক লাইভে এসে বক্তব্য দিয়েছিলেন নুর, তার জবাবে ১৪ অক্টোবর ছয়জনকে আসামি করে মামলাটি করেন ওই ছাত্রী।

মামলার তদন্ত শেষে পিবিআই কেবল হাসান আল মামুনকে আসামি করে এ মামলার অভিযোগপত্র দেয়। সেখানে এজাহারের বাকি পাঁচ আসামিকে অব্যাহতির সুপারিশ করা হয়।

পিবিআইর প্রতিবেদনে বলা হয়, তাদের তদন্তে নুরসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রমাণ মেলেনি। যে শব্দটি ব্যবহার নিয়ে নুরের বিরুদ্ধে মামলাটি হয়েছিল, তা ‘অভিধানে পাওয়া যায়নি’।

নুর লাইভে বলেছিলেন- “ছিঃ! আমরা ধিক্কার জানাই যে, এত নাটক করছে, যেই দুশ্চরিত্রাহীন!”

দৃশ্যত অভিযোগকারী ছাত্রীর চরিত্র নিয়ে কটূ কথা বলেছিলেন নুর। ‘দুশ্চরিত্র’ বলতে গিয়ে তিনি ‘দুশ্চরিত্রহীন’ বলেছিলেন বলেই সবাই ধরে নিয়েছিল।

কিন্তু পিবিআইয়ের তদন্ত কর্মকর্তা তার প্রতিবেদনে বলেন, “বাংলা একাডেমির অভিমতে বলা হয়, দুশ্চরিত্রহীন বলে কোনো শব্দ বাংলা ভাষায় নেই। তথাপি দুশ্চরিত্রহীন শব্দটির অর্থ করা হলে দাঁড়ায় উন্নত চরিত্রের অধিকারী বা সদাচারী বা সৎ স্বভাব বিশিষ্ট।”

ওই অভিযোগপত্র গ্রহণ করে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেন ২০২১ সালের ৫ অক্টোবর নুরসহ ৫ জনকে অব্যাহতি দিয়ে হাসান আল মামুনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

ওই বছর ২ নভেম্বর আদালতে আত্মসমর্পণ করেন মামুন, পরে তাকে জামিন দেওয়া হয়। এখন তিনি মামলা থেকেও অব্যাহতি পেয়ে গেলেন।

পুরনো খবর

Also Read: নুরসহ পাঁচজনকে অব্যাহতি, মামুনকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানা

Also Read: শব্দের ফাঁক গলে বেরিয়ে গেলেন নুর

Also Read: ধর্ষণ মামলার বাদীকে ‘দুশ্চরিত্রা’ বললেন নূর

Also Read: চট্টগ্রামে নূরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

Also Read: আমি ‘দুশ্চরিত্রা’ হলে মামুন-সোহাগ কী: নূরকে প্রশ্ন ঢাবি ছাত্রীর

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক