সাংবিধানিক স্বীকৃতি দাবি আদিবাসী ইউনিয়নের

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন করে এ দাবি জানায় সংগঠনটি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 August 2022, 08:05 AM
Updated : 13 August 2022, 08:05 AM

বিভিন্ন নৃগোষ্ঠীর মানুষের ভূমি, ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষায় তাদের সাংবিধানিক স্বীকৃতির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ আদিবাসী ইউনিয়ন।

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস উপলক্ষে শনিবার বেলা ১১টায় ঢাকার শাহবাগে মানববন্ধন করে এ দাবি জানান সংগঠনটির নেতারা।

তারা পার্বত্য চট্টগ্রামের শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন, সমতলের আদিবাসীদের জন্য ভূমি কমিশন গঠন, আদিবাসীদের আদিভিটায় পুনর্বাসন, ১০০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্প, ভিজিএফ ও কাবিখাতে আদিবাসীদের অন্তর্ভূক্তিসহ তাদের জন্য স্থায়ী রেশনিং ব্যবস্থা চালুরও দাবি জানান।

মানববন্ধনে আদিবাসী ইউনিয়নের উপদেষ্টা আসলাম খান বলেন, “মধুপুর, শেরপুর, মহাদেবপুর, দিনাজপুর, নওগা, সিরাজগঞ্জসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীদের উপর যে নির্যাতন চলছে, তা বন্ধের দাবি জানাই।

“মধুপুরে সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেখানে আাদিবাসীদের উচ্ছেদ করে, বন উচ্ছেদ করে ইকোপার্ক ও লেক করবেন। সরকারকে বলতে চাই, আপনারা মধুপুরের ওই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করুন। এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে না আসলে বাংলাদেশ আদিবাসী ইউনিয়ন সারা দেশের আদিবাসীদের নিয়ে মধুপুরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে।”

সংগঠনটির সহ-সভাপতি রাখী মং বলেন, “বাংলাদেশের সংবিধানের ৬ (২) ধারায় উল্লেখ আছে, ‘এ দেশে বসবাসকারী সকল আদিবাসী বাঙালি বলে বিবেচিত হবে’। এ ধারা ‘অগণতান্ত্রিক, অসাংবিধানিক ও মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন’।”

তিনি বলেন, বাংলাদেশে বিভিন্ন আদিবাসী জাতিসত্ত্বা বাস করেন। তাদের সাংবিধানিক অধিকার ‘চরমভাবে উপেক্ষিত’ হয়েছে। আদিবাসীদের সাংবিধানিক অধিকার স্বীকৃত হতে হবে।

“সাধারণভাবে সমতলের আদিবাসীরা দরিদ্র, ভূমিহীন। কর্মসংস্থান, স্বাস্থ্য ও বাসস্থানের অধিকার থেকেও তারা বঞ্চিত। আদিবাসী নারীরা ক্রমাগতভাবে সহিংসতা, ধর্ষণসহ নানা ধরনের অত্যাচার, শোষণ ও বৈষম্যের সম্মুখীন। তাদের সুরক্ষায় সরকারকে কমিশন গঠন করতে হবে।”

হাজং স্টুডেন্ট কাউন্সিল নেতা নাঈম হাজং বলেন, “এবার আদমশুমারিতে বলা হয়েছে, আদিবাসী জনগোষ্ঠীর সংখ্যা ১৬ লাখ। অথচ আগের আদম শুমারিতে ছিল ৪০ লাখ। তাহলে বাকি ২৪ লাখ জনগোষ্ঠী কি হাওয়া হয়ে গেল?

“আদিবাসীদের ওপর নিপীড়ন-নির্যাতন এদেশে তাদের বসবাসের অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। সমতলের আদিবাসীদের ভূমি সমস্যার সমাধান হচ্ছে না। আমরা চাই, আদিবাসীদের ভূমি রক্ষায় সরকার একটি কমিশন গঠন করুক।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক