সেদ্ধ ডিমের কুসুমে ছাই রংয়ের আভা দেখা দেওয়ার কারণ

সঠিকভাবে ডিম সিদ্ধ করতে হলে প্রথমে পানি ফুটিয়ে নিতে হয়।

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Nov 2022, 08:18 AM
Updated : 9 Nov 2022, 08:18 AM

সঠিক নিয়মে ডিম সিদ্ধ করতে হলে জানতে হবে ছোট্ট একটি কৌশল।

ওমলেট, ডিম ঝুরি, ভাজা, পোচসহ সব পদ্ধতির মধ্যে সবচেয়ে সহজ হল ডিম সিদ্ধ করা। তবে এই কাজ করতে গেলেও নানান বিপত্তিতে পড়তে হয়।

ডিম সিদ্ধ করতে দিয়ে ভুলে গেলেন। ওদিকে পানি শুকিয়ে ডিম পুড়ে একাকার। চুলার তাপে ডিমের খোসা ফাটার শব্দে যখন টনক নড়ে তখন আর কিছু করার থাকে না।

আবার বেশি সিদ্ধ হলে খেয়াল করলে দেখা যাবে, ডিমের কুসুমের ওপর এক ধরনের ছাই বর্ণের আস্তরণ পড়েছে। মনে হতে পারে ডিমটি নষ্ট। আসলে তা নয়।

এই বিষয়ে ক্যালিফোর্নিয়ার শেফ গাভিন কাইসেন আশ্বস্ত করে ইটদিস ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলেন, “এই ছাইবর্ণ মোটেই ক্ষতিকর নয়। ডিমের সাদা অংশে থাকা সালফার ও কুসুমে থাকা লৌহের রাসায়নিক বিক্রিয়ার কারণে এই রকম হয়। এটা স্বাভাবিক আর বেশি মাত্রায় সিদ্ধ হলেই এরকম হতে পারে।”

তাহলে সঠিকভাবে ডিম সিদ্ধ করার উপায় কী?

রন্ধনজগতে অস্কার খ্যাত ‘জেমস বিয়ার্ড অ্যাওয়ার্ড’ জয়ী এই পাচক ডিম সিদ্ধ করার ক্ষেত্রে কয়েকটি ধাপ অনুসরণের পরামর্শ দেন।

আগে পানি ফোটনো

বেশিরভাগই ডিম সিদ্ধ করার ক্ষেত্রে পাত্রে পানি ও ডিম একসঙ্গে দিয়ে চুলায় বসিয়ে দেন। এটা করা যাবে না।

বরং আগে পানি ফুটিয়ে নিতে হবে। তারপর ছিদ্রযুক্ত চামচে ডিম নিয়ে ফুটন্ত পানিতে ছেড়ে দিতে হবে। গড়ে সাত থেকে ১০ মিনিট সিদ্ধ হলেই পাওয়া যাবে কাঙ্ক্ষিত ‘হার্ড বয়েল্ড এগ’।

ডিম সাধারণ তাপমাত্রায় আনার দরকার নেই

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ডিম ফ্রিজে থাকে। ফুটন্ত পানিতে হঠাৎ ঠাণ্ডা ডিম ছেড়ে দিলে খোসায় চিড় ধরতে পারে। এই অবস্থা এড়ানোর জন্য ডিম স্বাভাবিক তাপমাত্রায় আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করার দরকার নেই।

বরং ফুটন্ত পানিতে ডিম ছাড়তে ব্যবহার করতে হয় ওই ছিদ্র ‍যুক্ত চামচ। যেটাতে ডিম নিয়ে ধীরে সুস্থে ফুটন্ত পানিতে ডিম ছেড়ে দিতে হবে।

ঠাণ্ডা পানিতে গোসল

সাত থেকে দশ মিনিট পর ডিম সিদ্ধ হয়ে গেল। এবার সেই ডিম গরম পানিতে রেখে চুলা বন্ধ করে দিলেও হবে না, আবার ফুটন্ত পানি থেকে উঠিয়ে ঠাণ্ডা হওয়ার জন্য রাখলেও হবে না।

দুই ক্ষেত্রেই গরম থাকার জন্য ডিম অতিরিক্ত সিদ্ধ হয়ে যাবে। এই প্রক্রিয়া থামাতে ব্যবহার করতে হবে বরফ ঠাণ্ডা পানি।

সিদ্ধ হওয়ার পর ফুটন্ত পানি থেকে ডিম উঠিয়ে ডুবিয়ে দিতে হবে ঠাণ্ডা পানিতে। আর ডিম যথেষ্ট ঠাণ্ডা হলেই শুরু করতে হবে খোসা ছাড়ানোর প্রক্রিয়া।

খোসা ছাড়াতে

ডিমের খোসা ছাড়ানো ঝামেলাকর বিষয়। অনেক সময় আরামেই উঠে আসে, কোনো কোনো সময় উঠতেই চায় না।

এক্ষেত্রে কোনো শক্ত সমতল জায়গায় প্রথমে ডিমের যেদিকটা সরু অর্থাৎ ওপরের দিকে ও নিচের অংশে হালকা করে বাড়ি দিয়ে খোসা ফাটিয়ে নিতে হবে। তারপর ডিমটি শক্ত সমতল জায়গায় আড়াআড়িভাবে শুইয়ে হাতের তালুতে চাপ দিয়ে রুটিবেলার মতো করে রগড়াতে হবে।

এভাবে কিছুক্ষণ করলেই খোসায় দেখা দেবে ফাটল। তখন ডিম থেকে ছাড়িয়ে নিতে হবে খোসা।

আর এভাবে সঠিকভাবে সিদ্ধ করা ডিম দিয়ে মজার খাবার তৈরি করতে নিচের রেসিপিগুলোতে চোখ বুলাতে পারেন।

আরও খবর

Also Read: ডিম ফুলকপির কারি

Also Read: রেসিপি: ডাল ডিম কারি

Also Read: বাঁধাকপি দিয়ে ডিম ভুনা

Also Read: রেসিপি: মসুর ডালের ডিম কারি

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক