জি২০ সম্মেলনের প্রথমদিনে ইউক্রেইন জুড়ে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

হামলায় কিইভে ‍অন্তত একজন নিহত হয়েছেন। নগরীর অর্ধেকাংশ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Nov 2022, 04:54 PM
Updated : 15 Nov 2022, 04:54 PM

ইন্দোনেশিয়ায় বৃহৎ অর্থনীতির দেশগুলোর সংগঠন জি২০ সম্মেলনের প্রথম দিন মঙ্গলবার রাজধানী কিইভসহ ইউক্রেইন জুড়ে তীব্র ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে রাশিয়া।

রাজধানী ছাড়াও লিভিভ, পশ্চিমের রিউন, উত্তরপূর্বের খারকিভ, মধ্যাঞ্চলের ক্রিভি রিহ ও পোলতাভা, দক্ষিণের ওদেসা এবং উত্তরের ঝাইতোমিরে রীতিমত ক্ষেপণাস্ত্রের বর্ষণ হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

হামলায় কিইভে ‍অন্তত একজন নিহত হয়েছেন বলে মেয়রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বিবিসি। কিইভের প্রাণকেন্দ্রে অন্তত দুইটি আবাসিক ভবনে ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত করেছে।

হামলায় ইউক্রেইনের অনেক অঞ্চল বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। অর্ধেক কিইভে এখন বিদ্যুৎ নেই।

এদিন রাশিয়া ইউক্রেইনে ৮০টি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে এবং আরো অন্তত ২০টি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়বে বলে এক ভিডিও বার্তায় দাবি করেছেন ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি নাগরিকদের নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

জেলেনস্কির কার্যালয়ের উপ প্রধান কিরিলো তিমোশেঙ্কো বলেছেন, রাজধানী কিইভের অবস্থা ‘খুবই মারাত্মক’।

রাশিয়া বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো লক্ষ্য করেই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বলেন, ‘‘পুরো দেশের অবস্থাই গুরুতর। বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোতে হামলার কারণে বাধ্য হয়ে বিদ্যুৎ বন্ধ করে দিতে হয়েছে। ফলে কিইভের একাংশ অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে।

‘‘রাশিয়ার সন্ত্রাসীরা বিদ্যুৎ অবকাঠামোগুলোতে আবারও পরিকল্পিত হামলা চালিয়েছে।”

সম্প্রতি রুশ বাহিনী তাদের দখলে থাকা অঞ্চল খেরসন থেকে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে। যেটিকে ইউক্রেইনের বিজয় এবং রাশিয়ার জন্য চরম অপমান হিসেবে ধরা হচ্ছে।

খেরসন থেকে পিছু হটার পর মঙ্গলবারই প্রথম আবার ইউক্রেইনে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালালো রাশিয়া এবং সেটা জি২০ সম্মেলনের চলাকালে।

অথচ, এবারের জি২০ সম্মেলনের প্রধান আলোচ্য বিষয় হয়ে উঠেছে ইউক্রেইন যুদ্ধ। সম্মেলনে বক্তব্য রাখা সব নেতাই রাশিয়াকে এ যুদ্ধ বন্ধ করতে বলেছেন।

মঙ্গলবার ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কিও ভার্চুয়ালি সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।

তিনি রাশিয়ার, ‘ধ্বংসাত্মক যুদ্ধ’ বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানান। এ সময় তিনি জি২০ জোটের ২০টি দেশ থেকে রাশিয়াকে বাদ দিয়ে এ জোটকে জি১৯ বলে উল্লেখ করেন।

জেলেনস্কির ভাষণের জবাব হিসেবে মস্কো এ হামলা চালিয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন জেলেনস্কির কার্যালয়ের প্রধান আন্দ্রি ইয়েরমাক।

রাশিয়ার আজকের হামলার বিষয়ে টুইটারে ইয়েরমাক বলেন, ‘‘রাশিয়া কী আসলেই শান্তি চায়? ক্রেমলিন আসলে চায় আনুগত্য। তবে শেষ পর্যন্ত সন্ত্রাসীরাই সব সময় পরাজিত হয়।’’

ইন্দোনেশিয়ার বালিতে আয়োজিত এবারের জি২০ সম্মেলনে ব্যস্ততার অজুহাত দেখিয়ে যোগ দেননি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তার পরিবর্তে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বালিতে যান।

ল্যাভরভকে নিয়ে বালিতে এবার নানা রকম খবর শোনা যাচ্ছে। সোমবার সম্মেলনের আগেরদিন প্রথমে শোনা গেলো তিনি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন। পরে ওই খবর ভুয়া বলে উড়ি দেন তার সঙ্গে থাকা একজন রুশ কূটনীতিক।

মঙ্গলবার সকালে ল্যাভরভ বালি ত্যাগ করেছেন বলে বেশ শোরগোল শুরু হয়। তার পরপরই রাশিয়া ইউক্রেইনে ক্ষেপণাস্ত্র বর্ষণ শুরু করে।

পরে ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, ল্যাভরভ বালিতেই আছেন এবং মঙ্গলবার রাতে তিনি বালি ছাড়বেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক