এবার নিজস্ব এআই সার্চ ইঞ্জিন চালু করল ফোর্বস

ফোর্বসের ডিজিটাল ও তথ্য বিভাগের প্রধান ভাদিম সুপিটস্কি বলেন, কোম্পানির লক্ষ্য ছিল, সার্চ ও নিবন্ধ উভয় ক্ষেত্রেই ব্যবহারকারীর সম্পৃক্ততা বাড়ানো।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 Oct 2023, 10:05 AM
Updated : 28 Oct 2023, 10:05 AM

ব্যবহারকারীকে ‘পার্সোনালাইজড’ সার্চের সুবিধা দিতে গুগল ক্লাউডের মাধ্যমে জেনারেটিভ এআইভিত্তিক এক সার্চ প্ল্যাটফর্মের বেটা সংস্করণ চালু করেছে মার্কিন বাণিজ্য সাময়িকী ফোর্বস।

মার্কিন এই প্রকাশনা কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা বি.সি. ফোর্বসের স্ত্রীর নামে নতুন এই প্ল্যাটফর্মটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘অ্যাডিলেইড’, যা ব্যবহার করে পাঠকরা বিভিন্ন সাধারণ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট প্রশ্ন জিজ্ঞেস করতে পারবেন। তাদের প্রশ্নের জবাবে বিভিন্ন নিবন্ধের সাজেশন দেখাবে প্ল্যাটফর্মটি…তবে, সেটি ফোর্বসে লেখা নিবন্ধগুলোর আওতার মধ্যে থাকতে হবে।

ফোর্বসের ডিজিটাল ও তথ্য বিভাগের প্রধান ভাদিম সুপিটস্কি বলেন, কোম্পানির লক্ষ্য হচ্ছে সার্চ ও নিবন্ধ উভয় ক্ষেত্রেই ব্যবহারকারীর সম্পৃক্ততা বাড়ানো।

“সার্চের ক্ষেত্রে আমরা ভালোমানের সম্পৃক্ততা দেখতে পেয়েছি। তাই আমরা ভেবেছি, জেনারেটিভ এআই প্রযুক্তির মাধ্যমে তথ্য খুঁজতে চাওয়া ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ানোর ভালো সুযোগ এটি।” --প্রযুক্তি সাইট ভার্জকে বলেন সুপিটস্কি।

উদাহরণ হিসেবে ধরা যায়, ফোর্বসের ওয়েবসাইটে থাকা ‘অ্যাডিলেইড’ বাটনে চাপ দিয়ে ‘নেব্রাস্কা অঙ্গরাজ্যের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি কে?’ এমন প্রশ্নও করতে পারবেন পাঠক। পরবর্তীতে ফোর্বসের লাইব্রেরি ব্যবহার করে সাইটের বিভিন্ন সংবাদ নিবন্ধ, মতামত ও তালিকা থেকে ওয়ারেন বাফেটের সারাংশ দেখাবে অ্যাডিলেইড। এ ছাড়া, ব্যবহারকারীর পড়ার সম্ভাবনা আছে, বাফেট সম্পর্কিত এমন নিবন্ধগুলোরও খোঁজ দেবে সার্চ ইঞ্জিনটি।

এর নমুনায় ব্যবহারকারীর সঙ্গে কথোপকথন অব্যাহত রেখে অ্যাডিলেইডের সম্পূরক প্রশ্নের জবাব দেওয়ার সক্ষমতাও দেখিয়েছেন সুপিটস্কি, যেখানে আগের প্রশ্ন মনে রেখে বাফেট সম্পর্কে আরও কিছু তথ্য প্রকাশ করতে দেখা যায় সার্চ ইঞ্জিনটিকে।

এদিকে, জেনারেটিভ এআই প্রযুক্তি চালু করছে অন্যান্য মিডিয়া কোম্পানিও। তবে, এআইয়ের তৈরি করা নিবন্ধ নিয়ে সম্প্রতি বিতর্ক সৃষ্টি হয়। এর আগে অগাস্টে নিজস্ব সাইটে এআই চ্যাটবট যোগ করেছে ম্যাকওয়ার্ল্ড, পিসিওয়ার্ল্ড, টেক অ্যাডভাইজর ও টেক হাইভের মতো প্রযুক্তিবিষয়ক সাইটগুলো, যেখানে পাঠকদেরকে বিভিন্ন নিবন্ধের ভিত্তিতে প্রশ্ন করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

সুপিটস্কি বলেন, অ্যাডিলেইড ফোর্বসের তৈরি করা প্রথম জেনারেটিভ এআই টুল হলেও, এআই নিয়ে তাদের প্রথম কাজ নয় এটি।

২০১৯ সালে ‘বার্টি’ নামের এআই টুল তৈরি করেছিল কোম্পানিটি, যেটির মাধ্যমে বিভিন্ন লেখার ধাঁচ নিয়ে পরামর্শ নিয়ে থাকেন ফোর্বসের সংবাদ কর্মীরা।

বার্টি ও অ্যাডিলেইড দুটি এআই টুলই তৈরি হয়েছে গুগল ক্লাউডের সহায়তায়। সুপিটস্কি বলেন, গুগলের জেনারেটিভ এআইভিত্তিক এপিআইগুলোর তালিকায় শীর্ষে রয়েছে অ্যাডিলেইড।

২০২১ সালে ‘ফোর্বসওয়ান’ নামের মেশিন লার্নিং প্ল্যাটফর্মও উন্মোচন করেছিল প্রকাশনা কোম্পানিটি। পাঠকের জন্য বিভিন্ন ‘পার্সোনালাইজড রেকমেন্ডেশন’ তৈরি করে থাকে এটি।

অ্যাডিলেইড নিয়ে ফোর্বসের উচ্চাশা থাকলেও এখনও এর আনুষ্ঠানিক সংস্করণ চালু করেনি কোম্পানিটি। তবে, ১৯১৭ সালে ফোর্বস প্রতিষ্ঠার পর থেকে লেখা সকল নিবন্ধ অ্যাডিলেইডের আর্কাইভে যুক্ত করতে চান সুপিটস্কি।