সাবেক টুইটার কর্মী ছিলেন ‘সৌদি স্পাই’

দোষী প্রমাণিত হওয়া আবুয়ামোর দাবি, তিনি কেবল তার নিজের কাজ করেছেন; ডেটার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে না পারা ছিল টুইটারের ব্যর্থতা।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 August 2022, 08:07 AM
Updated : 10 August 2022, 08:07 AM

সৌদি আরবের গুপ্তচর হিসেবে মার্কিন আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন এক সাবেক টুইটার কর্মী। আহমাদ আবুয়ামোর বিরুদ্ধে প্রতারণা, অর্থ পাচার এবং নথিপত্র জালিয়াতির প্রমাণ পেয়েছে স্যান ফ্রান্সিসকোর আদালত।

অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আবুয়ামোর ১০ থেকে ২০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে বলে জানিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ভার্জ।

২০১৫ সালে চাকরি ছাড়ার আগ পর্যন্ত টুইটারের মিডিয়া পার্টনারশিপ ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন আবুয়ামো। সে সময়ে মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিকে তাদের টুইটার অ্যাকাউন্ট নিয়ে প্রচারণা চালাতে সহযোগিতা করতেন তিনি।

তবে, সে সময়ে টুইটারে নিজের পদের সুযোগ নিয়ে সৌদি সরকারের সমালোচকদের ইমেইল ঠিকানা, ফোন নম্বর ও জন্মতারিখসহ নানা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংগ্রহ করেছেন তিনি। ২০১৪ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে সৌদি কর্মকর্তাদের ওই সব তথ্য সরবরাহ করে বদলে নানা উপহারও নিয়েছিলেন আবুয়ামো।

২০১৯ সালে দুই সাবেক টুইটার কর্মী আহমাদ আবুয়ামো এবং আলী আলজাবারাহ’র বিরুদ্ধে সৌদি আরবের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ এনেছিল যুক্তরাষ্ট্রের বিচারবিভাগ। ২০২০ সালে মামলায় সন্দেহভাজন স্পাই হিসেবে আহমেদ আলমুতাইরির নাম যোগ করে মার্কিন কর্তৃপক্ষ। আলমুতাইরির বিরুদ্ধে অভিযোগ, টুইটারে ওই স্পাই নেটওয়ার্কের পরিচালক ছিলেন তিনি।

আলমুতাইরি এবং আলজাবারাহ দুজনকেই খুঁজছে মার্কিন সরকার। অন্যদিকে, গেল বছরেই টুইটারের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন মানবাধিকার কর্মী আলী আল-আহমেদ। মাইক্রোব্লগিং প্ল্যাটফর্মটিতার গোপন তথ্যের নিরাপত্তা রক্ষায় যথেষ্ট চেষ্টা করেনি বলে অভিযোগ তার।

ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, আহমাদ আবুয়ামো সৌদি রাজপুত্র মোহাম্মাদ বিন সালমানের হয়ে কাজ করছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন সরকারপক্ষের আইনজীবীরা। আর আবুয়ামো দাবি করেছেন, তিনি কেবল তার নিজের কাজ করে গেছেন; ডেটার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে না পারা টুইটারের ব্যর্থতা বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর ১০ থেকে ২০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে আবুয়ামোর। ভার্জের কাছে এ প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে টুইটার।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক