দাবদাহে গেইমারদের ‘নিনটেনডো সুইচ’ খোলা বারণ

নিজেদের সবচেয়ে উষ্ণ গ্রীষ্মকাল অতিবাহিত করছে যুক্তরাজ্য। দাবদাহের কারণে এরইমধ্যে ট্রেনের সময় বিলম্ব এবং বিমানবন্দর বন্ধ হয়েছে লন্ডনে।

প্রযুক্তি ডেস্ক
Published : 24 July 2022, 12:30 PM
Updated : 25 July 2022, 08:36 AM

জাপান, ইউরোপ এবং যুক্তরাষ্ট্রে অতিরিক্ত তাপ প্রবাহের কারণে গেইমারদের ‘সুইচ’ কনসোল না খেলার পরামর্শ দিয়েছে ভিডিও গেইম নির্মাতা নিনটেনডো। কারণ, ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি তাপমাত্রায় কনসোলটি অতিরিক্ত গরম হয়ে যাওয়ার শঙ্কা থাকে।

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে চরম আবহাওয়ার ঘটনাগুলো এখন আর বিরল নয়। এর সবচেয়ে সহজ উদাহরণ বর্তমানে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের কিছু অংশের অসহনীয় দাবদাহ, যেখানে মঙ্গলবার লন্ডনের মতো শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা গিয়ে ঠেকেছে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

“আপনি যদি গরম কোনো জায়গায় নিনটেনডো সুইচ ব্যবহার করেন, তবে এর মূল ইউনিটের তাপমাত্রা বাড়ার আশঙ্কা আছে।” --১১ জুলাই টুইট করেছে নিনটেনডো।

পাশাপাশি, তাপমাত্রা পাঁচ থেকে ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলেই কেবল নিনটেনডো সুইচ ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

“চার্জিং অথবা যখন এটিতে গেইম খেলার সময় মূল ইউনিটটি গরম হতে পারে।” --টুইটারে লিংক দেওয়া সাপোর্ট পেইজে বলেছে নিনটেনডো।

সুইচ কনসোলটি গরম হওয়ার কারণে সরাসরি স্পর্শে ব্যবহারকারীর ত্বকে হতে পারে ‘নিম্ন-তাপমাত্রার দহন’।

নিনটেনডো’র জাপানের ওয়াবসাইট বলছে, ‘সুইচ’, ‘সুইচ লাইট’ ও ‘সুইচ ওলেড’ অতিরিক্ত গরম হওয়ার ঝুঁকির মধ্যে আছে। এই সতর্কবার্তা কেবল নিনটেনডো’র জাপানের ওয়াবসাইটেই রয়েছে।

এই প্রসঙ্গে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেট নিনটেনডো’র যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য অংশের মন্তব্য জানতে চাইলে তাৎক্ষণিক কোনো উত্তর মেলেনি।

১৮৭৫ সালের পর জাপানের সবচেয়ে বাজে দাবদাহের ঘটনা এটি। এই কারণেই জাপানি ভাষায় টুইট করেছে নিনটেনডো। গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের তাপমাত্রা অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছানোর পর দাবদাহের নতুন সংজ্ঞা তৈরি করেছে এটি।

ফ্রান্স এবং স্পেনে দাবানল ছড়ানোর মধ্যেই নিজেদের সবচেয়ে উষ্ণ গ্রীষ্মকাল অতিবাহিত করছে যুক্তরাজ্য। দাবদাহের কারণে এরইমধ্যে ট্রেনের সময় বিলম্ব এবং বিমানবন্দর বন্ধ হয়েছে লন্ডনে।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের তাপমাত্রা সূচক বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় সাড়ে পাঁচ কোটি মানুষ দাবদাহের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাস করছেন যেখানে আসন্ন সপ্তাহ ও মাসগুলোতে দাবদাহ বিপজ্জনক মাত্রায় পৌঁছাতে পারে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক