‘মেসির সঙ্গে চুক্তির তথ্য’ ফাঁসের জন্য আইনি ব্যবস্থার হুমকি বার্সার

কাতালান ক্লাবটির সঙ্গে আর্জেন্টাইন তারকার চুক্তি নবায়ন সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশ করেছে স্প্যানিশ পত্রিকা এল মুন্দো।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Sept 2022, 12:04 PM
Updated : 22 Sept 2022, 12:04 PM

লিওনেল মেসির সঙ্গে ক্লাবের চুক্তির শর্তের বিস্তারিত তথ্য ফাঁস করে এল মুন্দো অপরাধ করেছে বলে বিশ্বাস করে বার্সেলোনা। এজন্য স্প্যানিশ পত্রিকাটির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিয়েছে কাতালান ক্লাবটি। 

গত অগাস্টে অনেক নাটকীয়তার পর শৈশবের ক্লাব ছেড়ে দুই বছরের জন্য পিএসজিতে পাড়ি জমান মেসি। লা লিগার ক্লাবটির আর্থিক দৈন্যতা এর পেছনে মূল কারণ ছিল। লম্বা সময় ধরে ৩৪ বছর বয়সী তারকার সঙ্গে চুক্তি নবায়নের চেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হয় ক্লাবটি।

 সবশেষ ২০১৭ সালে বার্সেলোনার সঙ্গে তিন বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করেছিলেন মেসি। ২০২০ সালে চুক্তি নবায়নের জন্য দুই পক্ষ আলোচনা শুরু করেছিল। শেষ পর্যন্ত তা আর আলোর মুখ দেখেনি। চুক্তি নবায়নের জন্য মেসির করা বেশ কিছু অনুরোধের কথা বুধবার প্রকাশ করেছে এল মুন্দো।  

নতুন চুক্তিতে মেসি চেয়েছিলেন তার রিলিজ ক্লজ নামিয়ে আনতে হবে প্রতীকী ১০ হাজার ইউরোতে, কাম্প নউয়ে তার ও সাবেক বার্সেলোনা স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেসের পরিবারের জন্য প্রাইভেট বক্স বরাদ্দ থাকবে, তার ছাড় দেওয়া বেতনের অংশ পরে প্রদানের নিশ্চয়তা দিতে হবে এবং তার মেসির ভাই রদ্রিগোকে এজেন্ট হিসেবে তার কাজের জন্য ‘ব্যাকডেটেড কমিশন’ প্রদান করতে হবে। 

এল মুন্দো প্রতিবেদনটি প্রকাশ করার পর বুধবার নিজেদের ওয়েবসাইটে বিবৃতি দিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বার্সেলোনা। 

“এল মুন্দোতে ‘বার্সা লিকস, দা ক্লাব’স সিক্রেট ফাইলস’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনের ব্যাপারে বার্সেলোনার বক্তব্য হচ্ছে, আইনি প্রক্রিয়ার অংশ এমন সব তথ্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ফাঁসের ঘটনায় ক্লাব ক্ষোভ প্রকাশ করছে।” 

“ক্লাব দুঃখ প্রকাশ করছে এজন্য যে, প্রশ্নবিদ্ধ একটি মিডিয়া ‘বড় সংখ্যক নথি ও ইমেইলের প্রবেশাধিকার পেয়েছে যা এখনও বার্সাগেট তদন্তের অংশ', যেখানে এই তথ্যগুলো এখনও প্রকাশ করা হয়নি৷” 

সব দিক পর্যালোচনা করে এল মুন্দোর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়ার কথা জানিয়েছে বার্সেলোনা। 

‘বার্সাগেট’ তৃতীয় পক্ষকে অর্থপ্রদান সংক্রান্ত একটি চলমান মামলা। অভ্যন্তরীণ প্রোটোকল লঙ্ঘন করা এবং ক্লাবের কিংবদন্তিদের বিরুদ্ধে প্রচারণার অভিযোগে বার্সেলোনার সাবেক প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ এবং তার বোর্ডের পরিচালকদের বিরুদ্ধে মামলাটি চলছে। 

এতে মেসি বা তার সঙ্গে বার্সেলোনার চুক্তি সংক্রান্ত কোনো বিষয়ের যোগাযোগ নেই। তবে মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে আলোচনার সময় তার ও ক্লাবের মধ্যে যে ইমেইলের আদান-প্রদান হয়েছিল, বার্সাগেট তদন্তের স্বার্থে তা জব্দ করেছে পুলিশ। 

আর সেটাই হাত ঘুরে চলে গেছে এল মুন্দোর কাছে। ২০২০ সালে চুক্তি নবায়নের জন্য মেসি নাকি আরও কিছু শর্ত দিয়েছিলেন। ২০২৩ সাল পর্যন্ত তিন বছরের জন্য মেয়াদ বাড়ানোর পাশাপাশি সাইনিং বোনাস হিসেবে ১ কোটি ইউরো এবং পরবর্তীতে কেবল নিজের ইচ্ছায় ২০২৪ সাল পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ চেয়েছিলেন। 

২০২০-২১ মৌসুমে এল মুন্দো আরেকটি নথি ফাঁস করেছিল, যেখানে তারা জানিয়েছিল মেসি তার বার্ষিক বেতনের (৭ কোটি ইউরো) ২০ শতাংশ পরে নেওয়ার ব্যাপারে সম্মত হয়েছিলেন। তবে নিশ্চয়তা চেয়েছিলেন পরবর্তী বছরে সুদসহ তাকে ছাড় দেওয়া বেতনের অংশ দিতে হবে।

 ২০২০ সালের অগাস্টে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে ৮-২ গোলে বার্সেলোনা বিধ্বস্ত হওয়ার কিছু দিন পর বুরোফ্যাক্সের মাধ্যমে দল ছাড়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন মেসি। তবে ক্লাব ছাড়তে রাজি না হওয়ায় সেবার বাধ্য হয়ে কাম্প নউতেই থেকে যান তিনি। 

২০২০ সালে মেসি চুক্তি নবায়নে যেসব শর্ত জুড়ে দিয়েছিলেন, তা মেনে নেননি ওই সময়ের ক্লাব প্রসিডেন্ট বার্তোমেউ। বর্তমান প্রেসিডেন্ট হুয়ান লাপোর্তার সঙ্গে আলোচনায় গত বছর বেতনের ৫০ শতাংশ কমিয়ে মেয়াদ বাড়াতে রাজি ছিলেন মেসি। তবে ক্লাবের আর্থিক অবস্থা এতোটাই নাজুক ছিল যে ক্লাবের ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলদাতাকে ধরে রাখতে পারেনি বার্সেলোনা। 

মাত্র ১৩ বছর বয়সে বার্সেলোনায় আসা মেসির মূল দলে অভিষেক হয় ২০০৪ সালে। সময়ের পরিক্রমায় হয়ে ওঠেন ফুটবলের মহাতারকাদের একজন। স্পেনের ক্লাবটির হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলা, শিরোপা জয়সহ আরও অনেক রেকর্ড গড়েছেন তিনি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক