নারায়ণগঞ্জে ছাত্রদলের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগের মামলা

মামলার বিষয়ে ছাত্রদল নেতা মাসুদ বলেন, তাদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে উল্টো তাদের বিরুদ্ধেই মামলা করেছে।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 Sept 2022, 06:04 PM
Updated : 19 Sept 2022, 06:04 PM

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে ছাত্রদল-যুবদল নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে ছাত্রলীগের স্থানীয় এক নেতা।

সোমবার ভুলতা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক হানিফ মিয়া বাদী হয়ে মামলাটি করেন বলে রূপগঞ্জ থানায় পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ূন কবির মোল্লা জানান।

মামলায় নায়ারণগঞ্জ জেলা ছাত্রদল সহ-সভাপতি মাসুদুর রহমানসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত পরিচয় আরও দেড়শ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন মাসুম, সাহাবুদ্দিন, ওমাইনি, বাবু, শিশির, রনি, হাসান মাটি, সাব্বির, রাতুল ও আলামিন।

শনিবার রাতে ছাত্রদলের মশাল মিছিল থেকে ককটেল বিস্ফোরণ, মোটরসাইকেল ভাঙচুর, দুজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ আনা হয় আসামিদের বিরুদ্ধে।

মামলার নথির রবাতে পরিদর্শক হুমায়ূন কবির বলেন, শনিবার রাতে ওই ১০ জনসহ অজ্ঞাত প্রায় দেড়শ লোক লাঠিসোটা, ককটেল, পিস্তল, রামদা ও দেশীয় অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আউখাব অনুপম গার্মেন্টের সামনে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে মশাল মিছিল বের করে এবং টায়ারে অগ্নিসংযোগ করে।

“এ সময় রুহুল আমিন ও সানি নামের দুজনকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করা হয়। পরে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে তিনটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।”

একই দিন শনিবার রাতে রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের কৈরাব এলাকায় জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মাসুদুর রহমানের বাড়ি ছাড়াও ছাত্রদল-যুবদলের কয়েকজন নেতাকর্মীর বাড়িতে হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ ওঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

মামলার বিষয়ে ছাত্রদল নেতা মাসুদ বলেন, “আমাদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে মারধর ও লুটপাট করে উল্টো আমাদের বিরুদ্ধেই মামলা করছে। এখন আমরা মামলা করতে গেলেই গ্রেপ্তার করবে।

“পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে হামলাকারীরা প্রথমে বাড়িতে ঢোকে। সবকিছুই তো পুলিশ জানে; চাইলে তখনই ব্যবস্থা নিতে পারত। মামলা করলে বাড়িতে যা কিছু আছে, তাও আগুন দিয়া জ্বালিয়ে দেবে।”

তবে হামলার ঘটনায় আওয়ামী লীগ বা সহযোগী সংগঠনের কেউ জড়িত নয় বলে দাবি করেন রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ্জাহান ভূঁইয়া।

তিনি বলেন, “হামলার কোনো ঘটনার কথা শুনিনি। এমন কোনো ঘটনায় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের কেউ জড়িত না।”

জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জের এসপি গোলাম মোস্তফা রাসেল বলেন, “হামলার শিকার বিএনপি নেতাকর্মীরা থানায় এসে অভিযোগ দেন না। তারা যে ঘটনা বলে, ঘটনাস্থলে গেলে তার উল্টো পাওয়া যায়। তারপরও থানা পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, ঘটনার তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নিতে। হামলার শিকার যে কেউ এসে মামলা করতে পারে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক