সর্বনিম্ন বেতনের দাবিতে গাজীপুরে শ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ

খবর পেয়ে শ্রমিকদের বুঝিয়ে সকাল পৌনে ১০টার দিকে সড়ক থেকে সরিয়ে দেয় কোনাবাড়ী থানা পুলিশ ও শিল্প পুলিশ।

গাজীপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 Jan 2024, 11:07 AM
Updated : 13 Jan 2024, 11:07 AM

সরকার ঘোষিত সর্বনিম্ন বেতনসহ ৬ দফা দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন গাজীপুর মহানগরীর কোনাবাড়ী এলাকার একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। 

শনিবার সকাল ৮টা থেকে শ্রমিকরা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে অবরোধ সৃষ্টি করে বিক্ষোভ শুরু করেন বলে জানিয়েছেন কোনাবাড়ী থানার ওসি জিয়াউল ইসলাম। 

খবর পেয়ে শ্রমিকদের বুঝিয়ে সকাল পৌনে ১০টার দিকে সড়ক থেকে সরিয়ে দেয় কোনাবাড়ী থানা পুলিশ ও শিল্প পুলিশ।

কারখানা শ্রমিকদের বরাতে পুলিশ জানায়, কোনাবাড়ী এলাকায় বে-ইকোনমিক জোনে অবস্থিত মেইগো বাংলাদেশ লিমিটেড পোশাক কারখানার শ্রমিকদের বৃহস্পতিবার বেতন দেওয়া হয়। কিন্তু বেশিরভাগ শ্রমিককেই সরকার নির্ধারিত সর্বনিম্ন বেতন ১২ হাজার ৫০০ টাকা দেওয়া হয়নি। অল্পকিছু শ্রমিককে দেওয়া হয়েছে। 

শুক্রবার কারখানা বন্ধ থাকায় শনিবার শ্রমিকরা যথারীতি কর্মস্থলে গিয়ে সকাল ৮টার দিকে কাজ বন্ধ রেখে শ্রমিকরা সরকার নির্ধারিত বেতনসহ ৬ দফা দাবি জানায়। 

সেই দাবিগুলো হচ্ছে- সরকার নির্ধারিত নতুন বেতন কাঠামো অনুসারে গ্রেড ১ থেকে গ্রেড ৪ এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। তফশিল ‘ক’ এবং তফশিল ‘খ’ অনুসারে বেতন নির্ধারণ, ১০ ঘণ্টা কর্ম দিবসের পরিবর্তে ৮ ঘণ্টা করা, বেসিক বেতন সরকারি নিয়মে করা, ওভার টাইমের হার সরকারি নিয়ম অনুযায়ী করা এবং অধিকার আদায়ে আন্দোলরত শ্রমিকদের ছাঁটাই করা যাবে না।

এসব দাবিতে সকালে ৪ শতাধিক শ্রমিক কারখানার ভেতরে বিক্ষোভ শুরু করে পরে তারা ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করেন। 

কারখানা শ্রমিক আনোয়ার হোসেন বলেন, “সরকার সর্বনিম্ন বেতন ১২ হাজার ৫০০ টাকা করে দিয়েছে। কিন্তু কারখানা কর্তৃপক্ষ একেক জনকে একেক ধরনের কথা বলে সেই বেতন দিতে গড়িমসি করছে। এছাড়া অতিরিক্ত কাজ করাচ্ছে কিন্তু ওভার টাইমের টাকা দিচ্ছে না।” 

ওই কারখানার ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মো. খালিদ হাসান সাংবাদিকদের জানান, “শ্রমিকদের বেতন বাড়ানো হয়েছে কিন্তু তা তারা মানতে রাজি হয়নি। শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা চলছে।” 

কোনাবাড়ী থানার ওসি জিয়াউল ইসলাম জানান, সকালে শ্রমিকরা রাস্তায় নেমে আসলে যান চলাচল সাময়িক বিঘ্নিত হয়। পরে শ্রমিকদের বুঝিয়ে রাস্তা থেকে সরিয়ে নিয়ে কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করা হয়। পরে কর্তৃপক্ষ দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা কাজে যোগ দেন। 

বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান ওসি।