নিখোঁজ বুয়েট ছাত্রের মরদেহ মিলল শীতলক্ষ্যায়

শুক্রবার রাত থেকে ফারদিন নূর পরশ নিখোঁজ ছিলেন বলে তার বাবা জানান।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Nov 2022, 04:31 PM
Updated : 7 Nov 2022, 04:31 PM

তিন দিন আগে নিখোঁজ বুয়েটের এক ছাত্রের লাশ নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে পাওয়া গেছে। 

সোমবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয় বলে জানান নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ-থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান। 

মৃত ফারদিন নূর পরশ (২৪) বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিবেটিং ক্লাবেরও যুগ্ম সম্পাদক। ফারদিন পরিবারের সঙ্গে ডেমরার কোনাপাড়া এলাকায় থাকতেন। তিন ভাইয়ের মধ্যে তিনি সবার বড় ছিলেন। 

গত শুক্রবার রাত থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন বলে তার বাবা নূরউদ্দিন রানা জানান। 

‘দ্য রিভারাইন ম্যাগাজিন’ নামে একটি পত্রিকার সম্পাদক নূরউদ্দিন রানা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, শুক্রবার রাত সাড়ে এগারোটার পর থেকে ফারদিনের মোবাইল ফোন বন্ধ ছিল। তার সর্বশেষ লোকেশন ছিল রামপুরা থানা এলাকায়। এই ঘটনায় শনিবার ওই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করা হয়। 

সোমবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ-পুলিশের ফোন পেয়ে সেখানে গিয়ে ফারদিনের লাশ শনাক্ত করেন বলে জানান নূরউদ্দিন। 

নূরউদ্দিনের সহকর্মী নাবিন চৌধুরী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, শুক্রবার রাতে সর্বশেষ এক বান্ধবীর সঙ্গে ছিলেন ফারদিন। ওই বান্ধবীর ভাষ্যমতে, বিকালে রাজধানীর সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে আসেন তিনি। সেখান থেকে বান্ধবীসহ ধানমন্ডির একটি রেস্টুরেন্টে খান। সেখান থেকে টিএসটিতে যান। টিএসসিতে সময় কাটিয়ে রামপুরায় বিটিভির সামনে পর্যন্ত বান্ধবীকে এগিয়ে দেন। 

এরপর ওই বান্ধবী আর ফারদিনের খবর পাননি বলে জানান। 

নাবিন চৌধুরী আরও বলেন, “রামপুরা থানায় জিডি করার পর পুলিশ ফারদিনের মোবাইল ট্র্যাকিং করে কেরানীগঞ্জ ও ডেমরার লোকেশন পায়। দুই জায়গাতেই খোঁজ করে তাকে পাওয়া যায়নি। সর্বশেষ আজ সন্ধ্যায় নৌ-পুলিশের ফোন পেলাম।” 

নাবিন চৌধুরী বলেন, বুয়েটের ডিবেট ক্লাবের জয়েন্ট সেক্রেটারি ছিলেন ফারদিন। খুবই ভালো স্টুডেন্ট ছিলেন। ওর বাবা কথা বলার মতো অবস্থায় নেই। 

“ফারদিনের সাথে কী ঘটেছে তা আমরা অনুমান করতে পারছি না। কত ধরনের ঘটনাই ঘটতে পারে। আমরা চাই সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে এই মৃত্যুর কারণ উদঘাটিত হোক। তার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী হলে তাকে চিহ্নিত করে শাস্তির দাবি জানাই।” 

নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ-থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে শীতলক্ষ্যা নদীতে ভাসমান অবস্থায় বনানী ঘাট থেকে ওই তরুণের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। খোঁজ করে জানা যায়, নিহত তরুণ বুয়েটের ছাত্র ছিল। গত শুক্রবার রাত থেকে সে নিখোঁজ ছিল। এই ঘটনায় রামপুরা থানায় জিডিও হয়েছে।” 

তিনি জানান, সন্ধ্যায় স্বজনরা মরদেহ শনাক্ত করেছেন। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এই ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। 

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হাফিজুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মরদেহটি নৌ পুলিশ উদ্ধার করেছে। তবে এই বিষয়ে মামলা হবে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক