রাজশাহীর সমাবেশে আসতে শুরু করেছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা

সিরাজগঞ্জ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বুধবার কিছু নেতা-কর্মী রাজশাহী এসে পৌঁছলেও মাঠে ঢুকতে পারেননি।

রাজশাহী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Nov 2022, 07:16 PM
Updated : 30 Nov 2022, 07:16 PM

রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশের নির্ধারিত তারিখের আগে মাদ্রাসা মাঠে জমায়েতের অনুমতি না থাকলেও বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতা-কর্মীরা আসতে শুরু করেছেন।  

বুধবার সিরাজগঞ্জ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে কিছু নেতা-কর্মী রাজশাহী এসে পৌঁছলেও মাঠে ঢুকতে পারেননি। তারা মাঠের বাইরে অবস্থান করছেন। 

আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহী নগরীর মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির নবম বিভাগীয় গণসমাবেশে। এর আগে বুধবার দুপুরে আট শর্তে তারা সমাবেশের অনুমতি পায়। 

এদিকে সমাবেশের দুদিন আগে থেকে বিভাগের আট জেলায় পরিবহন ধর্মঘট ডেকেছে রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। তাই দূরের নেতা-কর্মীরা আগেভাগে এসে হাজির হওয়ার চেষ্টা করছেন। এর আগের সমাবেশেগুলোতেও তারা আগেভাগে এসে হাজির হয়েছিলেন। 

তবে এবার তাদের সমাবেশের মাঠে অবস্থান নেওয়ার সুযোগ থাকছে না। মাঠে সমাবেশ করার শর্তের মধ্যে রয়েছে নির্ধারিত তারিখের আগে সেখানে অবস্থান নেওয়া যাবে না।     

সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার উমারপুর ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুল কাদের মোল্লা ১৫ জন নেতা-কর্মী নিয়ে সন্ধ্যায় রাজশাহী পৌঁছেছেন।   

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “চৌহালী থানার বেশিরভাগ চর এলাকা। সেখান থেকে নৌকায় করে নদী পার হয়ে ভ্যানে এসেছি সিরাজগঞ্জ শহরে। এরপর সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও একটি পত্রিকার গাড়িতে রাজশাহীতে এসেছি।” 

পরিবহন ধর্মঘটের কারণে তিনদিন আগে এসেছেন বলে জানান কাদের মোল্লা। 

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বলেন, “বিকালের গাড়িতে করে রওনা দিই। সন্ধ্যায় রাজশাহী পৌঁছে সোজা বিএনপির গণসমাবেশস্থলে চলে এসেছি। মাঠে থাকার জায়গা নেই, তাই ভাবছি কীভাবে থাকব।” 

সমাবেশস্থলে অবস্থান নেয়া নেতা-কর্মীদের বিষয়ে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, “আজ থেকে তাদের অবস্থান শুরু। সমাবেশ শেষ করেই নেতা-কর্মীরা ঘরে ফিরবেন। পরিবহন ধর্মঘটের কারণে অনেক নেতা-কর্মী আজ রাজশাহীতে চলে এসেছেন।” 

তিনি বলেন, রাতেই মাদ্রাসা মাঠে মঞ্চ প্রস্তুতের কাজ শুরু হয়েছে। পাশাপাশি টানানো হচ্ছে তাঁবু। বাইরের জেলা থেকে আসা কর্মীরা যাতে সেখানে অবস্থান নিতে পারেন। 

রাজশাহীতে হবে বিএনপির সাংগঠনিক বিভাগীয় নবম সমাবেশ। এর আগে চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, খুলনা, রংপুর, বরিশাল, ফরিদপুর [সাংগঠনিক বিভাগ], সিলেট ও কুমিল্লায় [সাংগঠনিক বিভাগ] সমাবেশ হয়ে গেছে। রাজশাহীতে নবম সমাবেশের পর ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় হবে শেষ সমাবেশ।

 আরও পড়ুন:

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক