রাজশাহীতে মাদ্রাসা মাঠে গণসমাবেশের অনুমতি পেয়েছে বিএনপি

১ ডিসেম্বর থেকেই মাঠটি ব্যবহার করতে পারবে বিএনপি।

রাজশাহী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2022, 04:45 PM
Updated : 29 Nov 2022, 04:45 PM

রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশের জন্য হাজী মুহম্মদ মহসীন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় এই সমাবেশের জন্য ১ ডিসেম্বর থেকেই ‘মাদ্রাসা মাঠ’ হিসেবে পরিচিত স্থানটি ব্যবহার করতে পারবে বিএনপি। তবে এখন পুলিশের কাছ থেকে সমাবেশ ও মাইক ব্যবহারের অনুমতি পায়নি দলটি। 

মঙ্গলবার বিকালে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অনুমতির বিষয়টি জানানো হয়েছে উল্লেখ করে মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব মামুনুর রশিদ মামুন বলেন, অক্টোবরের মাঝামাঝি মাঠটি ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়েছিল। প্রশাসন অনুমতি দিয়েছে। ১ ডিসেম্বরের আগে তারা ওই মাঠ বা তার আশপাশের এলাকায় কোনো কার্যক্রম চালাতে পারবেন না।

রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল সাংবাদিকদের বলেন, হাজী মুহম্মদ মহসীন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে এখনও পরীক্ষা চলছে। তিনি ওই বিদ্যালয়ের সভাপতি। পরীক্ষা চলাকালে তিনি ওই মাঠ ব্যবহারের অনুমতি দিতে পারেন না।

“এজন্য পরীক্ষা শেষ হলে ১ ডিসেম্বর থেকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া বিএনপি শুধু ৩ ডিসেম্বর মাঠ ব্যবহারের অনুমতি চেয়েছে।”

সমাবেশ ও মাইক ব্যবহারের অনুমতির ব্যাপারে জানতে চাইলে রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ-কমিশনার রফিকুল আলম বলেন, “মাঠ ব্যবহারের অনুমতি দেবে জেলা প্রশাসক। আর পুলিশ অনুমতি দিবে সমাবেশ ও মাইক ব্যবহারের। আমরা এখনও অনুমতি দেইনি। সেটি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।”

মাঠের পাশের প্যান্ডেল ভেঙে দিয়েছে পুলিশ

এদিকে, সমাবেশের আগেই দূর থেকে আসা নেতাকর্মীদের বিশ্রাম ও রাতযাপনের জন্য মাদ্রাসা মাঠের পাশে একটি জায়গায় সোমবার থেকে প্যান্ডেল তৈরি করা হচ্ছিল। মঙ্গলবার পুলিশ তা ভেঙে দিয়েছে।

প্যান্ডেল তৈরির কাজে নিয়োজিত ডেকোরেটর ব্যবসায়ী আবদুস সালাম বলেন, তাকে এই প্যান্ডেল করার জন্য রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেনের ব্যক্তিগত সহকারী বিপ্লব দায়িত্ব দিয়েছিলেন। সোমবার সারাদিন এই জায়গাটায় মাটি ফেলে ঠিক করা হয়েছে। সারাদিন বাঁশ বাঁধার কাজ করেছেন।

“কাজ করার সময় রাজপাড়া থানার ওসি সিদ্দিকুর রহমান এসে দেখেছেন। কিন্তু আমাকে কিছুই বলা হয়নি। তখন নিষেধ করলে আমরা কাজ করতাম না। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওসি এসে প্যান্ডেলের বাঁশ খুলে ফেলতে বাধ্য করেন।

মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব মামুনুর রশিদ মামুন বলেন, “বিএনপির নেতাকর্মীদের রাতযাপনের জন্য সমাবেশের মাঠেই একটি প্যান্ডেল নির্মাণের কাজ শুরু করে হয়েছিল। মাঠের অনুমতি ছিল না বলে সোমবার ওই প্যান্ডেলের কাজ বন্ধ করে দেয় পুলিশ। এরপর মাঠের পাশে আরেকটি প্যান্ডেল নির্মাণ শুরু করলে সেখানে অনুমতি নেই, জানিয়ে সেটিও মঙ্গলবার ভেঙে দেওয়া হলো।”

রাজপাড়া থানার ওসি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, বিএনপি যে মাঠের অনুমতি নিয়েছে, তাদের যা করার সেখানেই করতে হবে। অনুমোদিত জায়গার বাইরে তারা কিছু করতে পারবে না।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক