বিআইডব্লিউটিএ’র শুল্ক আদায়কারী ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী হয়েও সরকারি গাড়ি ব্যবহার করছেন বলেও রফিকুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Feb 2024, 10:44 AM
Updated : 14 Feb 2024, 10:44 AM

অবসরোত্তর ছুটিতে থাকা বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের শুল্ক আদায়কারীর ও স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার দুদকের নারায়ণগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে সহকারী পরিচালক সাঈদ মোহাম্মদ ইমরান হোসেন মামলা দু’টি করেন বলে জানান এ কার্যালয়ের উপপরিচালক মঈনুল হাসান রওশনী।

আসামিরা হলেন- নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের শুল্ক আদায়কারী মো. রফিকুল ইসলাম ও তার স্ত্রী শাহিদা বেগম।

প্রথম মামলার আসামি রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে দুদকে দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে ১২ লাখ ৫০ হাজার টাকা মূল্যের সম্পদ অর্জনের তথ্য গোপন এবং ১ কোটি ১৯ লাখ ৬১ হাজার ৫৩৩ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে।

আরেক মামলার আসামি রফিকুল ইসলামের স্ত্রী শাহিদা বেগম। তার বিরুদ্ধে ৫০ লাখ টাকা মূল্যের সম্পদ অর্জনের তথ্য প্রদর্শন না করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

এছাড়া ৫৮ লাখ ৭৮ হাজার ৯০০ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগও আনা হয়েছে।

দুদক জানায় রফিকুলের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে বিআইডব্লিউটিএ’র প্রধান কার্যালয়ে নিয়োগ, বদলি বাণিজ্য এবং অবৈধভাবে প্রতিষ্ঠানটির সরকারি স্থাপনা লিজ নিয়ে ব্যক্তিগত ব্যবসার কাজে লাগানোসহ বিভিন্ন দুর্নীতির মাধ্যমে অঢেল সম্পদ অর্জনের অভিযোগ ছিল।

এছাড়া তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী হয়েও সরকারি গাড়ি ব্যবহার করছেন বলে রফিকুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল।

দুদকের উপপরিচালক মঈনুল হাসান রওশনী বলেন, তাদের বিরুদ্ধে দুদক কয়েক মাস ধরে তদন্ত করছে। তদন্তে দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়ার পরই মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এর আগে দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধানে চলতি বছরের ২৯ মার্চ রফিকুল ইসলামকে তলব করে দুদক। বর্তমানে তিনি পিআরএল বা অবসরোত্তর ছুটিতে আছেন।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি মামলার আসামি রফিকুল ইসলাম।

বিআইডব্লিউটিএ’র নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক মো. শহীদুল্লাহের ফোন নম্বরে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

[প্রতিবেদনটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক]