মোবাইলে উচ্চস্বরে কথা, চেয়ারম্যানের মাথা ফাটালেন রেস্তোরাঁ মালিক

চেয়ারম্যান উচ্চস্বরে মোবাইলে কথা বলার সময় রেস্তোরাঁর মালিক সেলিমের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়।

গাজীপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Feb 2024, 08:19 PM
Updated : 3 Feb 2024, 08:19 PM

রেস্তোরাঁয় বসে মোবাইল ফোনে উচ্চস্বরে কথা বলা নিয়ে বিতণ্ডার জেরে গাজীপুরের ভাওয়াল মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেনের মাথা ফাটিয়েছেন রেস্তোরাঁ মালিক। তাকে ঢাকার এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে গাজীপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের বিপরীত পাশে হোটেল কস্তুরীতে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় চেয়ারম্যানের ভাতিজা নাজমুল সিকদার রেস্তোরাঁ মালিক শ্রীপুর উপজেলার মারতা গ্রামের সেলিম মিয়ার (৫০) বিরুদ্ধে গাজীপুর সদর থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

ঘটনার পরই গা-ঢাকা দিয়েছেন সেলিম মিয়া।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন দুলাল জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতির পদেও আছেন।

গাজীপুর সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, “চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন দুলাল, তার ম্যানেজার লোকমান ও প্রতিবেশী মাসুম রানা মণ্ডলসহ কয়েকজন মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হোটেল কস্তুরীতে বসে নাস্তা করছিলেন।

“তিনি (চেয়ারম্যান) উচ্চস্বরে মোবাইলে কথা বলার সময় রেস্তোরাঁর মালিক সেলিমের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে সেলিম ক্ষিপ্ত হয়ে চেয়ারম্যানের মাথায় কাঁচের বোতল দিয়ে একাধিকবার আঘাত করেন।

“এতে চেয়াম্যান রক্তাক্ত হন। এসময় তাকে রক্ষা করতে গেলে হোটেল মালিক ও কর্মচারীরা মিলে চেয়ারম্যানের সঙ্গে থাকা লোকদেরও মারধর করেন।

পরিদর্শক মহিউদ্দিন আরও বলেন, পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় এভারকেয়ার হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ঘটনার পর মিন্টু (৪২) ও রানা (৪০) নামের দুই রেস্তোরাঁ কর্মীকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

সদর মেট্রো থানার ওসি জিয়াউল ইসলাম বলেন, “এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশ ঘটনা তদন্ত করে দেখছে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।”

[প্রতিবেদনটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক]