মুন্সীগঞ্জে শাপলা কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে ৩ শিশু-কিশোরের মৃত্যু

তিন শিশু-কিশোর একই পরিবারের সদস্য।

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি
Published : 10 Sept 2022, 01:32 PM
Updated : 10 Sept 2022, 01:32 PM

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় বিলে শাপলা কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে একই পরিবারের তিন শিশু-কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার দুপুরে উপজেলার পশ্চিম ধামারণ বিলে এ ঘটনা ঘটে বলে টঙ্গীবাড়ির দিঘিরপাড় পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. শাহ আলম জানান।

নিহতরা হলো- উপজেলার ধামারণ গ্রামের মোমিন আলীর ছেলে রবিউল হাসান, উপজেলার সোনারং গ্রামের কামাল হোসেনের ছেলে লামিম হোসেন এবং একই গ্রামের সাইফুল ইসলামের মেয়ে সানজিদা খাতুন।

রবিউল সম্পর্কে লামিম ও সানজিদার মামা হয়। তাদের বয়স ৮ থেকে ১২ বছরের মধ্যে। তারা স্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ছিল। লামিম ও সানজিদা তাদের মায়ের সঙ্গে নানার বাড়ি বেড়াতে এসেছিল।

কাঁঠালিয়া-শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান বলেন, দুপুরে বৃষ্টির মধ্যে রবিউল, লামিম, সানজিদা ও লামিমের বড় ভাই সিফাত মিলে পাশের বিলে শাপলা কুড়াতে যায়। সিফাত পাড়ে দাঁড়িয়ে ছিল। বাকি তিনজন বিলে নামে।

এ সময় বজ্রপাত হলে তিন জনই পানিতে ডুবে যায়। সিফাত আহত হয়। তখন সিফাত দৌড়ে এসে বাড়িতে বজ্রপাতের ঘটনা জানালে পরিবারের লোকজন ছুটে যায়। স্বজনরা তিন জনকে উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এ এস এম ফেরদৌস বলেন, “বজ্রপাতে তিন জনই ঘটনাস্থলে মারা গেছে। তবে তাদের শরীর পুড়ে যাওয়ার কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি।”

টঙ্গীবাড়ির দিঘিরপাড় পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ শাহ আলম বলেন, “অসচেতনতা আর অবহেলার কারণেই তিন শিশু-কিশোরের এমন করুণ মৃত্যু হয়েছে। বৃষ্টি-বাদলের মধ্যে শিশুদের কোনোভাবেই বিলে যেতে দেওয়া ঠিক হয়নি অভিভাবকদের।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক