বিয়ের কথা দিয়ে কিশোরী শ্রমিককে ‘দলবেঁধে ধর্ষণ’, গ্রেপ্তার ৬

৩১ জানুয়ারি রাতে মেয়েটিকে বিয়ে করার কথা বলে ভাড়া বাসায় ডেকে নিয়ে যায় তার কথিত প্রেমিক।

নরসিংদী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 Feb 2024, 10:08 AM
Updated : 5 Feb 2024, 10:08 AM

নরসিংদীতে বিয়ে করার কথা দিয়ে এক কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শিবপুর মডেল থানার ওসি মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় গ্রেপ্তার ছয়জনকে রোববার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে সদর ও শিবপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এরা হলেন- নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের নন্দীপাড়া গ্রামের শফিউদ্দিন ভূইয়ার ছেলে আপেল ভূঁইয়া (৩৭), শিবপুর উপজেলার ধনাইয়া গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে ডালিম মিয়া (২০), শাষপুর গ্রামের মালেক মির্জার ছেলে জাকির মির্জা (৩৫) ঘাসিরদিয়া গ্রামের রোকন উদ্দিনের ছেলে ফয়সাল (১৯), শাষপুর গ্রামের হিরণ মিয়ার ছেলে মনির হোসেন (২৭) ও ঘাগটিয়া গ্রামের হান্নানের ছেলে তুহিন (৩২)।

ভুক্তভোগীর বরাতে ওসি ফরিদ বলেন, ১৩ বছর বয়সী মেয়েটির বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজারে। নরসিংদীর মাধবদী থানার গরুহাটা এলাকায় ভাড়া থেকে একটি স্পিনিং মিলে শ্রমিকের কাজ করে সে। বাসে যাতায়াতের পথে চালকের সহকারী ডালিম মিয়ার সঙ্গে তার পরিচয় এবং এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়।

“ডালিম ৩১ জানুয়ারি রাতে মেয়েটিকে বিয়ে করার কথা বলে তার শিবপুরের মুন্সেফেরচর এলাকার ভাড়া বাসায় ডেকে নিয়ে যায়। পরে সেখানে ডালিম ও তার বন্ধুরা দলবেঁধে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় মেয়েটি বাদী হয়ে নয়জনকে আসামি করে শিবপুর থানায় মামলা করে।”

গ্রেপ্তারদের মধ্যে দুইজন আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে; বাকী আসামিদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান।