রাবি শিক্ষার্থীকে জখম করে ছিনতাইয়ের অভিযোগ

মাথার আঘাতের কারণে ওই শিক্ষার্থী অজ্ঞান হয়ে যান

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 July 2022, 11:28 AM
Updated : 23 July 2022, 11:28 AM

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে জখম করে ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার রাতে লক্ষ্মীপুর মোড় সংলগ্ন আলীগঞ্জ পশ্চিমপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থীর নাম দুলাল চন্দ্র। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসাকেন্দ্রের চিকিৎসক সলীল সমাদ্দার বলেন, “দুলাল চন্দ্রের মাথার পেছনে আঘাত করা হয়েছে এবং তার হাতের কবজিতে ব্লেডের আঘাত রয়েছে। মাথার আঘাতের কারণে তিনি অজ্ঞান হয়ে যান। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রাজশাহী মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।”

মারধরের কারণে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী অচেতন হয়ে যাওয়ায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও কুড়িগ্রাম জেলার শিক্ষার্থীদের একটি সংগঠনের নেতা হুমায়ুন আহমেদ।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “দুলাল চন্দ্রের বাসা কুড়িগ্রামে হওয়ায় সে আমার পূর্বপরিচিত। শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা কয়েকজন শিক্ষার্থীর জন্য লক্ষ্মীপুর মোড়ে আবাসিক হোটেলে কক্ষ খুঁজতে গিয়েছিলেন দুলাল। সেখানে কয়েকজন ব্যক্তির সঙ্গে ওর কথা হয়। হোটেলে সিট থাকার কথা জানিয়ে কৌশলে তারা দুলালকে রিকশায় তোলে।”

“এরপর তারা জোর করে দুলালকে লক্ষ্মীপুরের পাশেই আলীগঞ্জ পশ্চিমপাড়ায় রিকশা নিয়ে যায় এবং তাকে ব্যাপক মারধর করে। ফোন, টাকাপয়সা সব নিয়ে নেয়। একপর্যায়ে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।

“পরে সেখানকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে রিকশায় তুলে দেয়। এরপর সে আমার কাছে আসে এবং আবার জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তারপর দুলালকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসক রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন।”

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আসাবুল হক বলেন, “বিষয়টি আমি শুনেছি। বিষয়টি জানা মাত্রই ছাত্র উপদেষ্টাসহ দুজন সহকারী প্রক্টরকে হাসাপাতালে পাঠিয়েছি। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর চিকিৎসার বিষয়টিও তাদের দেখতে বলেছি।”

ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট থানার সঙ্গে যোগাযোগ করবেন বলেও জানান প্রক্টর।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক