ওসমানী হাসপাতালে আবারও আন্দোলনে ইন্টার্ন চিকিৎসক-শিক্ষার্থীরা

তবে জরুরি বিভাগ, আইসিইউ ও কার্ডিওলজি বিভাগ কর্মবিরতির বাইরে রয়েছে।

সিলেট প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 August 2022, 01:31 PM
Updated : 2 August 2022, 01:31 PM

সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও ইন্টার্ন চিকিৎকদের সঙ্গে প্রশাসনের বৈঠক ফলপ্রসূ হয়নি।

হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা এসেছে।

ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহমদ মুন্তাকিম চৌধুরী বলেন, তারা মঙ্গলবার বেলা ২টা পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রশাসন মূল আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি। তাই হামলায় জড়িতদের গ্রেপ্তার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

তবে জরুরি বিভাগ, আইসিইউ ও কার্ডিওলজি বিভাগ তাদের কর্মবিরতির বাইরে রয়েছে এবং সেখানে চিকিৎসা কার্যক্রম চলছে বলে জানান মুন্তাকিম।

রোববার রাতে এক নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকের সঙ্গে রোগীর স্বজনদের ঝগড়া হয়। এর জেরে সোমবার রাতে কলেজ ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের হামলার শিকার হন রুদ্রনাথ ও নাইমুর রহমান ইমন নামে দুই শিক্ষার্থী।

ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তারসহ চার দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু হয়। ঘটনায় জড়িত দুইজনকে আটকের পর অন্যদের আটকের আশ্বাসে মঙ্গলবার বেলা ২টা পর্যন্ত ধর্মঘট স্থগিত করেন তারা। কিন্তু এখনও প্রশাসন অন্যদের আটক করতে পারেনি।

কলেজের অধ্যক্ষ মইনুল হক বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও তাদের বিচার, কলেজ ও হাসপাতাল প্রসাসনের পক্ষ থেকে দুটি মামলা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত ও হাসপাতালে পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আর পুলিশ বলছে, সব হামলাকারীকে শনাক্ত করা হয়েছে এবং তাদের আটক করতে অভিযান চলছে।

সিলেট সিটি পুলিশের উপ-কমিশনার আজবাহার আলী শেখ বলেন, “আশা করছি দ্রুত সময়ে সবাইকে আটক করতে পারব। ইতোমধ্যে ৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহিদ হাসান রাব্বি ও স্থানীয় বাসিন্দা এহসান আহম্মদকে আটক করা হয়েছে।”

মামলা

নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকের শ্লীলতাহানির অভিযোগ ও কলেজের দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে থানায়।

কলেজের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মাহমুদুর রশিদ ও হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. হানিফ বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় মামলাটি দুটি দায়ের করেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি আলী মাহমুদ বলেন, রোববার রাতে নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকের শ্লীলতাহানির অভিযোগে একজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও তিন-চারজনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। আর সোমবার রাতে দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার অভিযোগে পাঁচজনের নামউল্লেখ করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন-

Also Read: ওসমানী মেডিকেলে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ধর্মঘট স্থগিত

Also Read: শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা: ওসমানী মেডিকেলে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ধর্মঘট

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক