‘সেবার ব্রতে মানবতার পথে’ নোয়াখালীর এসএইচবিও

প্রতিষ্ঠার দেড় বছরে কয়েকটি প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে মানুষের আস্থাও অর্জন করেছে সংগঠনটি।

আবু নাসের মঞ্জুনোয়াখলী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Sept 2022, 05:40 PM
Updated : 12 Sept 2022, 05:40 PM

‘মানুষের জন্য কিছু করার’ প্রত্যয়ে নোয়াখালীতে গড়ে উঠেছে সেবামূলক সংগঠন সার্ভিস ফর হিউম্যান বিয়িং অর্গানাইজেশন-এসএইচবিও।

নোয়াখালীর মাইজদী শহরের তিন তরুণ ও এক তরুণীর সম্মিলিত ভাবনায় ‘সেবার ব্রতে মানবতার পথে’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ২০২০ সালের ৬ ডিসেম্বর যাত্রা শুরু এই সংগঠন।

প্রতিষ্ঠার দেড় বছরে কয়েকটি প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে মানুষের আস্থা অর্জন করেছে সংগঠনটি।

সংগঠনের বর্তমান সভাপতি ফাহিদা সুলতানা বলেন, “আমাদের ইচ্ছে ছিল মানুষের জন্য কিছু করার। একা একা হয়তো কিছু করা যায়। কিন্তু অনেক কিছু করতে গেলে, পরিবর্তন আনতে গেলে প্রয়োজন দলগত প্রচেষ্টা। সেখান থেকেই এসএইচবিও শুরু করার আগ্রহ জাগে।”

তিনি জানান, ‘আপন ঘরে সুখের হাসি' প্রকল্পের মাধ্যমে এসএইচবিও নিজস্ব ভূমি ও স্বঅর্থায়নে জেলার চাটখিল উপজেলার ১০টি দরিদ্র পরিবারকে পাকা ঘর করে দেয়। প্রকল্পের দ্বিতীয় ধাপে চলছে জমি নির্বাচন। এবারের প্রাথমিক লক্ষ্য ২২টি ঘর তৈরি করা।

প্রাকৃতিক দুর্যোগেও সংগঠনটি দাঁড়িয়েছে মানুশের পাশে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই বছরের মাঝামাঝিতে প্রথমে সিলেট, পরবর্তীতে সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, কুড়িগ্রামের ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতিতে 'এসএইচবিও উইথ ডিজাস্টার ভিক্টিমস'- প্রকল্পে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় দুই দফায় সরাসরি ৬০০ ও ১১০০ মানুষকে ত্রাণ সেবা দেয়। এছাড়া, পূনর্বাসনে পরোক্ষভাবে কাজ করছে স্বেচ্ছাসেবী ও আর্থিক সেবা সরবরাহের মাধ্যমে।

শুধু ঘর কিংবা আর্থিক সহায়তা নয়, নারীদের স্বাবলম্বী করার লক্ষ্যে পরিচালিত 'উইমেন এম্পাওয়ারমেন্ট'- প্রকল্পের আওতায় ২০২১ সালে ৫ জন নারীকে ছাগল এবং ২০২২ সালে ১৫ জনকে সেলাই মেশিন প্রদান করে সংগঠনটি।

সংগঠনের উদ্যোক্তারা জানায়, এসএইচবিওয়ের লক্ষ্য বিস্তৃত। সমাজের বিভিন্ন কুসংস্কারেরর বিরুদ্ধে এগিয়ে এসে মেয়েরদের ‘পিরিয়ড ও স্যানিটারি ন্যাপকিন সরবরাহসহ নারীদের স্বাস্থ্যে কাজ শুরু করেছে এসএইচবিও। নোয়াখালীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালাচ্ছে।

তাছাড়া দুর্দশগ্রস্ত অজ্ঞাত পরিচয়ের লোককে রাস্তা থেকে তুলে এনে হাসপাতালে রেখে সুস্থ চিকিৎসার ব্যবস্থা করে সংগঠনটি। তাদের পরিবারের খোঁজ নিয়ে পরিবারের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়। অসহায় ও দুস্থ রোগীদের চিকিৎসার ব্যয় ও পরবর্তীতে তাদের ওষুধের খরচসহ ক্যান্সার, থ্যালাসেমিয়া, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিয়ে আসছে এসএইচবিও।

'শতমুখে ইফতারের হাসি' প্রকল্পের আওতায় ২০২২ সালের পবিত্র রমজান মাসজুড়ে প্রতিদিন শতাধিক ছিন্নমূল ও ভাসমান মানুষদের ইফতার করানো হয় সোনাইমুড়ী রেলওয়ে স্টেশনে। এছাড়া বিভিন্ন উৎসবে ছিন্নমূল মানুষদের ইদ সামগ্রী উপহার, শীতে শীতবস্ত্র নিয়মিতভাবেই বিতরণ করে সংগঠনটি।

রক্তের অভাবে যেন বাংলাদেশে কোনো মৃত্যুর ঘটনা না ঘটে, তার বিরুদ্ধে লড়ে যাচ্ছে তারা। প্রতিষ্ঠার শুরু থেকে গত দেড় বছরে প্রায় ১৪৩০ ব্যাগ রক্ত সরবরাহ করে।

এছাড়া রক্তদাতা সংগ্রহ ও সচেতনতা বৃদ্ধিতে ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইনিংয়ের মাধ্যমে প্রায় পাঁচ নিবন্ধনের পাশাপাশি নিয়মিত ফ্রি মেডিকেল চেক-আপ-এর মত কর্মসূচি পালন করে। এতে প্রান্তিক জনগোষ্ঠী নিজেদের স্বাস্থ্যের সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত হওয়ার পাশাপাশি শারীরিক সুস্থতার ব্যাপারে ইতিবাচক ধারণা পোষণ করতে সক্ষম হয়।

সামাজিক সংগঠন হিসেবে এরই মধ্যে নোয়াখালী জেলায় আস্থার জায়গা তৈরি করেছে সংগঠনটি। নিজেদের আরও এগিয়ে নিতে, সমাজে অবদান রাখতে অনলাইন ও অফলাইনে সমানতালে কাজ করে চলেছে।

এসএইচবিওতে বর্তমানে দুই শতাধিক স্বেচ্ছাসেবী সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন বলে জানান উদ্যোক্তরা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক