‘মেরুদণ্ড’ সোজাই থাকবে: সিইসি

‘নতজানু, আজ্ঞাবহ’- এমন সমালোচনা থেকে ইসিকে মুক্ত করতে চাইছেন হাবিবুল আউয়াল।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 July 2022, 04:28 PM
Updated : 27 July 2022, 04:28 PM

‘নতজানু’- সাংবিধানিক সংস্থাকে এই সমালোচনা থেকে বের করে আনতে চাইছেন সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল।

তিনি বলেছেন, “আমরা মেরুদণ্ড বাঁকা হয়ে না, নতজানু হয়ে না, আমরা মেরুদণ্ড শক্ত রেখেই চেষ্টা করব। জানি না কতটুকু হবে, সেটা আল্লাহ পাক জানেন।”

রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপে বুধবার কৃষক, শ্রমিক, জনতা লীগের সঙ্গে আলোচনায় একথা বলেন তিনি।

এ টি এম শামসুল হুদা নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশনের পর যে দুটি ইসি গঠিত হয়েছে, দুটিকেই ‘নতজানু, আজ্ঞাবহ’ এমন সমালোচনা শুনতে হয়েছে।

তাদের পর এই বছরই কাজী হাবিবুল আউয়াল নেতৃত্বাধীন ইসি গঠিত হয়েছে, আগামী সংসদ নির্বাচন পরিচালনার ভার যাদের উপর।

সংলাপে ইসির দৃঢ়তার প্রত্যাশা রেখে কৃষক, শ্রমিক, জনতা লীগের সভাপতি আব্দুল কাদের সিদ্দিকী বলেন, “আমি মনে করি, যে মুহূর্তে নির্বাচনে তফসিল ঘোষণা হয়ে গেল, এরপর সরকার হচ্ছে নির্বাচন কমিশন, …কারও কোনো ক্ষমতা থাকার সুযোগ নেই। আপনি সে ক্ষমতা চালাতে পারবেন কি পারবেন না, সেটা আপনার মেরুদণ্ডেরও ব্যাপার। কিন্তু সংবিধান আপনাকে সে ক্ষমতা দিয়েছে।”

কাদের সিদ্দিকী বলেন, “ বিএনপি একটা বড় দল। তারা নির্বাচনে অংশ নিলে ভালো। তারা যদি নির্বাচনে অংশ না নেয়, যদি আশার মতো ভোটার অংশ নেয়, তাহলে কে অংশ নিল, কে অংশ নিল না- তা বলবার কথা না।”

রাজনৈতিক দল ছাড়া ইসির কোনো অস্তিত্ব নেই- এ কথা সিইসিকে মনে করিয়ে দেন তিনি।

জবাবে সিইসি ‘মেরুদণ্ড’ সোজা রেখে কাজ করার বিষয়ে কাদের সিদ্দিকীকে আশ্বস্ত করেন।

তিনি বলেন, “আপনারা নেতৃত্ব দিয়ে যে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করবেন, আমরা সামান্য নির্বাচন কমিশন, আমাদের সীমিত দায়িত্বের মধ্যে সততা, নিষ্ঠা, সাহসিকতার সাথে চেষ্টা করব।”

সংলাপ শেষে দলগুলোর প্রস্তাব পর্যালোচনা করে সরকারের কাছে, দলের প্রধানের কাছে সারসংক্ষেপ কমিশন পাঠিয়ে দেবে বলে জানান তিনি।

দায়িত্ব পালনে সহায়তা চেয়ে হাবিবুল আউয়াল বলেন, “জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠান খুব সহজ নয়। কঠিন দায়িত্বটা অনেক কষ্ট, সাধনা ও সাহসিকার সাথে পালন করতে হবে। আমরা বিশ্বাস করি, রাজনৈতিক নেতৃত্বের সদিচ্ছা থাকলে কাজটা যতই কঠিন হোক-জটিল হোক, আমরা সম্মিলিতভাবে সুসম্পন্ন করতে সক্ষম হব।”

ইভিএমে হ্যাকিং সম্ভব নয়: দাবি সিইসির

পরে জাকের পার্টির সঙ্গে সংলাপে সিইসি বলেন, “ইভিএমের হ্যাকিংটা কোনোভাবেই সম্ভব না। কারণ এটার সঙ্গে ইন্টারনেটের সংযোগ নেই। এটা নিয়ে বহু পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়েছে।

“নিরবচ্ছিন্নভাবে আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে যাচ্ছি। কিন্তু বাহিরে অনেক কথা চাউর আছে যে হ্যাকিং হতে পারে, এটাতে ভোট কারচুপি হতে পারে। কিন্তু আমরা এ পর্যন্ত সুস্পষ্ট কোনো প্রমাণ পাইনি।”

এখনও ইভিএম নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন, যাতে অপপ্রয়োগ সম্ভব না হয় সেটা নিশ্চিত করেই কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানান তিনি।

সংলাপের জাকের পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব শামীম হায়দারের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল অংশ নেয়।

বুধবার সকালে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি-বিজেপি সংলাপে অংশ নেয়নি।

বৃহস্পতিবার গণফোরাম, বাংলাদেশ ন্যাপ, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি ও বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের সঙ্গে সংলাপসূচি রয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক