পরে পালাবার পথও পাবেন না: সরকারকে ফখরুল

মির্জা ফখরুল বলছেন, দেশে গণতন্ত্র ফেরাতে বিএনপির ‘হাজারো নেতা-কর্মী প্রাণ দিতে প্রস্তুত’।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Oct 2022, 03:59 PM
Updated : 10 Oct 2022, 03:59 PM

সংসদ বিলুপ্ত করে তত্ত্বাবধায়ক সরকার এবং নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এখন দাবি না মানলে ক্ষমতাসীনরা সামনে হয়ত ‘পালাবার পথও পাবে না’। 

সোমবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিবের এমন বক্তব্য আসে।

তিনি বলেন, “আপনাদের এখনো সময় আছে- বোধোদয় করেন। কয়েকটি মিটিংয়ে আমি বলেছি, সেইফ এক্সিট করেন, চলে যান, ক্ষমতা ছাড়েন। 

“আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, আমরা দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে চাই, আমরা দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে চাই, আমরা মানুষের অধিকারকে ফিরিয়ে আনতে চাই।” 

সরকারের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, “নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা দেন, সংসদ বিলুপ্ত করেন। নতুন তত্ত্বাবধায়ক সরকার, নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে করে নতুন পার্লামেন্ট ইলেকশন দেন। তারা নতুন করে সরকার গঠন করবে, দেশে নতুন একটা সরকার ব্যবস্থা চালু হবে। 

“এখনই সময় আছে সেটা করেন। তা না হলে পালাবার পথও খুঁজে পাওয়া যাবে না।” 

স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী গণআন্দোলনে পুলিশের গুলিতে নিহত নাজির উদ্দিন জেহাদের ৩২তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে শহীদ জেহাদ স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এই আলোচনা সভা হয়। 

১৯৯০ সালের ১০ অক্টোবর পল্টনে পুলিশের গুলিতে নিহত হন ছাত্র দল কর্মী জেহাদ। দিনটি উপলক্ষে সোমবার সকালে ডাকসুর সাবেক ভিপি বিএনপির ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের নেতৃত্বে ছাত্র ঐক্যের নেতারাসহ ছাত্র দলের নেতা-কর্মীরা দৈনিক বাংলা মোড়ে জেহাদ স্মৃতি চত্বরে ফুল দেন।

‘রাজপথেই ফয়সালা’ 

মির্জা ফখরুল বলেন, “আমরা বিশ্বাস করি, এদেশের মানুষ কোনোদিন অন্যায়কে মেনে নেয়নি, কোনোদিন গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে তারা কাউকে জয়ী হতে দেয়নি। গণতন্ত্রের পক্ষে তারা লড়াই করেছে আজ থেকে নয়, দীর্ঘকাল থেকে, শতবর্ষ থেকে। সেই দেশের মানুষ জেগে উঠছে। এখন আর বলতে হয় না যে, জেগে উঠো। 

“আমি শুধু অনুরোধ করব, আমাদের তরুণ সমাজকে, আমাদের যুব সমাজকে– আরো এগিয়ে আসুন, আরো সামনে আসুন। শুধুমাত্র নিজের কথা চিন্তা না করে, নিজের ভাগ্যের কথা চিন্তা না করে দেশের কথা চিন্তা করুন, দেশের মানুষের কথা চিন্তা করুন, চিন্তার করে যুক্ত হোন।”

বিএনপি মহাসচিব বলেন, “এই যে বাংলাদেশকে মুক্ত করবার যে আন্দোলন শুরু হয়েছে, সেই আন্দোলনে সেই সংগ্রামে আপনারা সবাই যুক্ত হোন এবং জনগণকে সংগঠিত করে আমরা অবশ্যই আমাদের নেতা তারেক রহমান সাহেব যে আহবান দিয়েছেন যে, ‘ফয়সাল হবে রাজপথে’, সেই রাজপথেই আমরা তাদেরকে পরাজিত করব। 

“আমাদের নেতা আরেকটা শ্লোগান দিয়েছেন- ‘টেক ব্যাক বাংলাদেশ’। অর্থাৎ আমরা কোন বাংলাদেশ ফেরত চাই যে, বাংলাদেশ আমরা ১৯৭১ সালে যুদ্ধ করে স্বাধীন করেছিলাম। যেখানে আমরা সমস্ত মানুষের অধিকারকে রক্ষার জন্যে স্বাধীন করেছিলাম, যেখানে সাম্য, মানবিক মূল্যবোধ এবং সামাজিক ন্যায় বিচার এটা প্রতিষ্ঠা করার জন্য আমরা একটা রাষ্ট্র তৈরি করেছিলাম, জনগণের কল্যাণের জন্য রাষ্ট্র তৈরি করেছিলাম সেই বাংলাদেশ আমরা ফিরিয়ে আনতে চাই।” 

জেহাদ স্মৃতি পরিষদের সভাপতি ও তৎকালীন সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্যের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে ও খায়রুল কবির খোকনের পরিচালনায় আলোচনা সভায় সাবেক ছাত্র নেতা শামসুজ্জামান দুদু, আসাদুজ্জামান রিপন, হাবিবুর রহমান হাবিব, ফজলুল হক মিলন, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, নাজিম উদ্দিন আলম, সাইফুদ্দিন মনি, খোন্দকার লুতফর রহমান, আসাদুর রহমান খান, কামরুজ্জামান রতন, আজিজুল বারী হেলাল, মীর সরাফত আলী সপু, আমিরুল ইসলাম খান আলীম, সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, শহিদুল ইসলাম বাবুল, আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, ছাত্র দলের সাইফ মাহমুদ জুয়েল, উলামা দলের শাহ নেছারুল হক, জেহাদের ভাই কে এম শরীফ উদ্দিন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক