নানা আয়োজনে শেখ মণির জন্মদিন পালিত

সোমবার সকালে বনানী কবরস্থানে শেখ মণিসহ ১৫ অগাস্টের শহীদদের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে দিনের কর্মসূচি শুরু করে যুবলীগ।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Dec 2023, 01:03 PM
Updated : 4 Dec 2023, 01:03 PM

নানা কর্মসূচির মাধ্যমে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শহীদ শেখ ফজলুল হক মণির ৮৫তম জন্মদিন পালন করেছে সংগঠনটি।

সোমবার সকালে বনানী কবরস্থানে শেখ মণিসহ ১৫ অগাস্টের শহীদদের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে দিনের কর্মসূচি শুরু করে যুবলীগ।

পরে দোয়া ও মোনাজাত এবং দুপুরে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করে যুবলীগ।

আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আমির হোসেন আমু বলেন, “সর্বপ্রথম আইয়ুববিরোধী দুইটি আন্দোলনের মুল নেতা ছিলেন শহীদ শেখ ফজলুল হক মণি। সেই আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় ১৯৬২ সালের শিক্ষা আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন শেখ মণি। বঙ্গবন্ধু ৬ দফা দাবি দিলে সেই দাবি আদায়ের জন্য ছাত্র-শ্রমিক-নেতাদের মাধ্যমে সফল হরতাল পালন করেন তিনি।

“শিক্ষা জীবন শেষ করার পরেও তিনি থেমে থাকেননি। তিনি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন হলে গিয়ে ছাত্রদের সংঘবদ্ধ করতেন, আন্দোলনের নির্দেশনা দিতেন। শেখ মণি একদিকে যেমন সাহসী যোদ্ধা ছিলেন, অন্যদিকে তেমনি সাহসী লেখকও ছিলেন। তিনি শুধু যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা নয়, তিনি এদেশের রাজনীতির গতিধারা পরিবর্তনের অন্যতম পুরোধা নেতৃত্ব।”

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, “খুনিচক্র, স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি, অপশক্তি যারা বাংলাদেশকে মেনে নিতে পারে নাই, যারা পাকিস্তানের দালাল, যারা পাকিস্তানের আদর্শে, সাম্প্রদায়িক রাজনীতির আদর্শে বিশ্বাস করত তারা ১৯৭৫ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবার ও শহীদ শেখ ফজলুল হক মণিকে নির্মমভাবে হত্যার মধ্য দিয়ে একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিয়েছিল।”

সভাপতির বক্তব্যে যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেন, “শহীদ শেখ ফজলুল হক মণির অনুসারী ও সহকর্মীদের ভাষায়, তিনি বাংলাদেশের বিপ্লবে সংগ্রামে এক অকুতোভয় নেতা ছিলেন। সন্তান হিসেবে আমি গর্ববোধ করি যে, তিনি রণাঙ্গনেও নিজে সরাসরি যুদ্ধ করেছেন দেশমাতৃকার মুক্তির জন্য। মুজিবাহিনীর শীর্ষনেতাদের মধ্যে তিনিই সবার আগে সম্মুখ যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছেন বলে জানা যায়।”

“তিনি শুধু নেতা না, তিনি সর্বোপরি একজন রাজনৈতিক কর্মী ছিলেন,” বলেন যুবলীগ চেয়ারম্যান।

শেখ ফজলে শামস পরশের সভাপতিত্বে যুবলীগ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. রফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, মো. জহির উদ্দিন খসরু, মশিউর রহমান চপল, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, ঢাকা মহানগর যুবলীগ উত্তরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল, দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইন উদ্দিন রানা, উত্তরের সাধারণ সম্পাদক মো. ইসমাইল হোসেন, দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এইচ এম রেজাউল করিম রেজা বক্তব্য রাখেন।