বাংলাদেশের সঙ্গে শিগগিরই ঋণ আলোচনা শুরুর প্রত্যাশা আইএমএফ -এর

ঋণের পরিমাণ কত হবে- সে আলোচনা এখনও হয়নি। প্রকল্প নিয়ে আলোচনার সময় এ বিষয়ে ফয়সালা হবে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 August 2022, 03:50 PM
Updated : 3 August 2022, 03:50 PM

সম্ভাব্য সঙ্কট সামাল দিতে ঋণ চেয়ে যে প্রস্তাব বাংলাদেশ পাঠিয়েছে, তাতে ইতিবাচক সাড়া দিয়ে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল-আইএমএফ বলেছে,আগামী কয়েক মাসের মধ্যে ঋণের জন্য খাত ও অর্থের পরিমাণ চূড়ান্ত করা সম্ভব হবে বলে তারা আশা করছে।

রেসিলিয়ান্স অ্যান্ড সাসটেইনেবলিটি ট্রাস্ট (আরএসএফটি) ফান্ড থেকে ঋণ চেয়ে বাংলাদেশ চিঠি দেওয়ার এক সপ্তাহের মাথায় এক বিবৃতিতে আইএমএফ আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের অবস্থান জানাল।

মঙ্গলবার ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ইউক্রেইনে যুদ্ধের জেরে বিশ্ব অর্থনীতিতে যে অস্থিরতা তৈরি হয়েছে, তা সামাল দিতে এরই মধ্যে বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ।

সরকার ইতোমধ্যে মুদ্রাপ্রবাহ নিয়ন্ত্রণের পদক্ষেপ নিয়েছে, মুদ্রা বিনিময় হার শিথিল করেছে, কম জরুরি পণ্য এবং জ্বালানি আমদানিতে সাময়িক কড়াকড়ি আরোপ করেছে। বিদ্যুৎ খরচ কমাতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। পাশাপাশি কম জরুরি প্রকল্পে বরাদ্দ স্থগিত করে বেশি জরুরি খাতে ব্যবহারের নির্দেশনা জারি হয়েছে। তারপরও আরও অনেক দেশের মত বাংলাদেশও সাম্প্রতিক বৈশ্বিক সঙ্কটের কারণে বিভিন্ন অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছে।

Also Read: বাংলাদেশসহ এশিয়ার যেসব দেশের জন্য শ্রীলঙ্কা সতর্ক সঙ্কেত

Also Read: বাজেট সহায়তা পেতে আইএমএফের সঙ্গে আলোচনায় বাংলাদেশ

আইএমএফ বলছে, “তাৎক্ষণিক চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলা করতে পারলেও বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের মত দীর্ঘমেয়াদী সমস্যাগুলো সঠিকভাবে সামাল দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছে, যেসব সমস্যা দেশের অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য হুমকি তৈরি করতে পারে।”

বিবৃতিতে বলা হয়, এ ধরনের ক্ষেত্রে অর্থায়নে সহযোগিতা দিতেই তারা রেসিলিয়ান্স অ্যান্ড সাসটেইনেবলিটি ফান্ড গঠন করেছে এবং বাংলাদেশও এই তহবিল থেকে অর্থ পেতে পারে। আর এই তহবিল থেকে ঋণ পেতে হলে আইএমএফ-সমর্থিত প্রকল্প নিতে হবে।

“বাংলাদেশের অনুরোধে সাড়া দিতে আইএমএফ প্রস্তুত। আশা করা হচ্ছে, আগামী কয়েক মাসের মধ্যে বাংলাদেশের জন্যও আরএসটি ফান্ড সচল হয়ে যাবে। আর এই সময়ে আইএমএফ কর্মীরা প্রকল্প চূড়ান্ত করতে বাংলাদেশ সরকারের সাথে আলোচনা এগিয়ে নেবে।”

Also Read: ঋণ চেয়েছে বাংলাদেশ: আইএমএফ

Also Read: আইএমএফের ঋণ চাওয়া নিয়ে অস্পষ্টতা: অর্থমন্ত্রী বললেন, এটা ‘কৌশল’

আইএমএফ বলেছে, ঋণের পরিমাণ কত হবে- সে বিষয়ে এখনও আলোচনা হয়নি। প্রকল্প নিয়ে আলোচনার সময় এ বিষয়ে ফয়সালা হবে।

বিবৃতিতে বলা হয়, বিশ্ব অর্থনৈতিক পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি ঘটছে এবং এর ধাক্কায় বাংলাদেশের মত দেশগুলো বড় ধরনের অনিশ্চয়তার মুখোমুখি হচ্ছে।

পরিস্থিতির আরও অবনতি হলে আরএসটি তহবিলের ঋণ এবং আইএমএফ সমর্থিত প্রকল্প সুরক্ষা দিতে পারবে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের মত দীর্ঘমেয়াদী সমস্যা মোকাবেলায় বাংলাদেশের জন্য সহায়ক হবে বলে আশা করছে আন্তর্জাতিক এ ঋণদাতা সংস্থা।

রেসিলিয়ান্স অ্যান্ড সাসটেইনেবলিটি ট্রাস্ট ফান্ড থেকে ২০ বছর মেয়াদে ঋণ দেয় আইএমএফ, তার প্রেস পিরিয়ড ১০ বছর। আর ঋণে সুদের হার আলোচনার মধ্য দিয়ে ঠিক হয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক