আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা নিয়ে ‘পরিস্কার করে’ যা বললেন তামিম

বিপিএলে সর্বোচ্চ রান করে ম্যান অব দা টুর্নামেন্ট হওয়ার অভিজ্ঞ ওপেনারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার প্রসঙ্গ উঠে আসছে আবার। 

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 March 2024, 03:12 AM
Updated : 2 March 2024, 03:12 AM

প্রসঙ্গটি পুরোনো। তবে এমন দিনে তা খুবই প্রাসঙ্গিক। বিপিএলে সর্বোচ্চ রান করে টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হলেন যিনি, তার জাতীয় দলের খেলার সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা হওয়াই স্বাভাবিক। প্রশ্নটিও তাই উঠে যাচ্ছে, তামিম ইকবালের ঝুলে থাকা আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার কি কোনো একটা পরিণতি পাবে? তিনি নিজে অবশ্য জানালেন, আগের অবস্থানের চেয়ে তেমন কোনো অগ্রগতি হয়নি। তবে তাকে ফেরানো যে সহজ হবে না, সেটিও ফুটে উঠল অভিজ্ঞ ওপেনারের কথায়।

তামিমকে সবশেষ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেখা গেছে গত ২৩ সেপ্টেম্বর। বিশ্বকাপের ঠিক আগে দেশের মাঠে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে খেলেছিলেন তিনি। এরপর বিশ্বকাপ থেকে তার সরে দাঁড়ানো ঘিরে দেশের ক্রিকেটে নানা নাটকীয়তা আর বিতর্ক চলতেই থাকে।

বিশ্বকাপের পর গত নভেম্বরে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের সঙ্গে দেখা করে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার নিয়ে নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানান তামিম। বিসিবি সভাপতি তখন তাকে অনুরোধ তরেন কিছুটা সময় অপেক্ষা করতে। জাতীয় নির্বাচনের পর তিনি তামিমের সঙ্গে বসবেন বলেও জানান। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুসও কয়েক দফায় জানান, অভিজ্ঞ এই ওপেনারের সঙ্গে বসবেন তারা। কখনও বলা হয়েছে বিপিএলের আগে, কখনও বলা হয়েছে বিপিএলের মাঝেই হবে আলোচনা। কিন্তু সেই বৈঠক এখনও হয়নি। তামিমের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারও তাই না পেয়েছে গতি, না হয়েছে শেষ।

বিশ্বকাপর আগে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ওই সিরিজের পর তামিম ক্রিকেটে ফেরেছেন এবারের বিপিএল দিয়ে। সেখানে তিনি দারুণ সফল। তার নেতৃত্বে বিপিএলে প্রথমবার শিরোপা জিতেছে বরিশাল। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি আসরের সর্বোচ্চ ৪৯২ রান করে। ক্যারিয়ারের এই পড়ন্ত বেলায় প্রথমবারের মতো বিপিএলের ম্যান অব দা টুর্নামেন্টও হয়েছেন।

তার এমন পারফরম্যান্সের পর জাতীয় দলে তার ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা উঠে এলো আবার। এই মাস থেকেই নতুন নির্বাচক কমিটিও পথচলা শুরু করেছে। তবে তামিম জানালেন, তার পথ থমকে আছে এখনও।

“তার সঙ্গে (নতুন প্রধান নির্বাচক) আমার কোনো কথাবার্তা হয়নি। আমার সঙ্গে জালাল ভাইয়ের কথা হয়েছে। আমি কথা বলতে প্রস্তুত ছিলাম, আমার সঙ্গে বসার কথা ছিল (কিন্তু হয়নি), তবে আমাদের একটা যোগাযোগ আছে। কালকে সকালে আমি আবার দেশের বাইরে চলে যাব। আশা করি, ফেরার পর আমরা বসব।”

“একটা কথা আপনাদের পরিস্কার করেই বলতে চাই, আমার জন্য ফিরে আসতে হলে অনেক কিছুই ঠিকঠাক হতে হবে। সেসব না হলে স্রেফ ফেরা আর খেলার কোনো মানে নেই। কারণ, আমি ক্যারিয়ারের এমন পর্যায়ে আছি, হয়তো সম্ভবত আর দুই বছর খেলব। তো ওই কথাগুলি উনাদের সঙ্গে বলতে হবে। এখনও যেহেতু উনাদের সঙ্গে চূড়ান্ত কথা হয়নি, এই সংবাদ সম্মেলনে এসে অনুপযুক্ত কিছু বলে দেওয়া উচিত হবে না।”

সেই আলোচনা যদি শেষ পর্যন্ত হয়ই, জাতীয় দলে ফেরার ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে কি যাবেন তামিম? তিনি বললেন সেই আগের কথাই।

“যেটা বললাম, যতক্ষণ না উনাদের সঙ্গে কথা বলছি, এটা নিয়ে মন্তব্য করা অন্যায় হবে। তবে একটা কথা কিন্তু বলেছি যে, ফর মি টু কামব্যাক, আ লট অব থিংস হ্যাভ টু বি রাইট।”