‘অসাধারণ’ সারফারাজের টেস্ট অভিষেকের অপেক্ষায় ডি ভিলিয়ার্স

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে রানের জোয়ার বইয়ে দেওয়া সারফারাজ খানকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ভারতের দ্বিতীয় টেস্টের একাদশে দেখতে চান দক্ষিণ আফ্রিকান কিংবদন্তি এবি ডি ভিলিয়ার্স।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Feb 2024, 04:36 AM
Updated : 1 Feb 2024, 04:36 AM

সারফারাজ খানকে নিয়ে রোমাঞ্চের ঢেউ ভারতীয় ক্রিকেটের সীমানা ছাড়িয়ে আছড়ে পড়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের আঙিনায়। মুম্বাইয়ের এই ব্যাটিং সেনসেশনকে টেস্ট ক্রিকেটে দেখার অপেক্ষা থাকাদের মধ্যে আছেন এবি ডি ভিলিয়ার্সের মতো কিংবদন্তিও। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেই ভারতের একাদশে সারফারাজকে দেখতে চান দক্ষিণ আফ্রিকান গ্রেট। 

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে রানের জোয়ার বইয়ে দেওয়া সারফারাজের টেস্ট দলে সুযোগ না পাওয়া অনেক দিন ধরেই ছিল ভারতীয় ক্রিকেটের আলোচিত রহস্য। অবশেষে সেটির সমাধান মিলেছে। লোকেশ রাহুল চোটের কারণে ছিটকে পড়ায় টেস্ট স্কোয়াডে জায়গা মিলেছে ২৬ বছর বয়সী ব্যাটসম্যানের। 

এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন, একাদশে তার জায়গা হবে কি? তার মতোই টেস্ট ক্যাপ পাওয়ার অপেক্ষায় আছেন রাজাত পাতিদার। ঘরোয়া ক্রিকেটে দারুণ পারফর্ম করে আসছেন ৩০ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যানও এবং তিনি স্কোয়াডে আছেন আগে থেকেই। ভিরাট কোহলি প্রথম দুই টেস্ট থেকে বিরতি নেওয়ার পর দলে নেওয়া হয় তাকে।

একাদশে জায়গা নিয়ে লড়াইটি মূলত এখন এই দুজনের। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমেও প্রবল চর্চা চলছে দুজনের সম্ভাবনা নিয়ে।

আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালোর দলে দুজনের সঙ্গেই খেলেছেন ডি ভিলিয়ার্স। তবে এখানে লড়াই অন্য ঘরানার ক্রিকেটের। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে কথোপকথনে সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান জানিয়ে রাখলেন তার অভিমত।

“(সারফারাজের দলে ডাক পাওয়া) আমার জন্য খুবই রোমাঞ্চকর। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তার রেকর্ড অসাধারণ এবং কারও যদি সুযোগ প্রাপ্য হয়, এটা অবশ্যই সে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৬৬ ইনিংস খেলে ৩ হাজার ৯১২ রান করেছে সে, গড় ৬৯.৮৫। ১৪ সেঞ্চুরি ও ১১ ফিফটি করেছে… এটা স্বাভাবিক কিছু নয়!”

“খুব, খুব ভালো প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট রেকর্ড এটি। আমি জানি যে এই পর্যায়ের ক্রিকেট থেকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা বা সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলা আরও অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। তবে আশা করব সুযোগটি সে পাবে, কারণ রাজাত পাতিদারও খুব ভালো খেলছে।”

পাতিদারের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট রেকর্ড খুব চোখধাঁধানো নয়। তবে ধারাবাহিক পারফরমার তিনিও। ৫৫ ম্যাচে ১২ সেঞ্চুরিতে ৪ হাজার রান করেছেন তিনি ৪৫.৯৭ গড়ে। এই টেস্ট সিরিজ শুরুর আগেই ভারতীয় ‘এ’ দলের হয়ে ইংল্যান্ড লায়ন্সের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে সেঞ্চুরি করেন তিনি। এরপর এই দুই দলের প্রথম চার দিনের ম্যাচে দলের ২২৭ রানের ইনিংসে তিনি একাই করেন ১৫১ রান। এরপরই কোহলির জায়গায় দলে ডাক পান তিনি।

ইংল্যান্ড লায়ন্সের বিপক্ষেই প্রস্তুতি ম্যাচে ৯৬ রানের ইনিংসের পর প্রথম চারদিনের ম্যাচে ফিফটি করেন সারফারাজ। পরে দ্বিতীয় চার দিনের ম্যাচে দলের ইনিংস ব্যবধানের জয়ে ১৬০ বলে ১৬১ রানের ইনিংস খেলেন তিনি ১৮ চার ও ৫ ছক্কায়।

দলে ডাক পাওয়ার ক্রম বিবেচনায় নিলে একাদশে সুযোগ পাওয়ার দাবিদার আগে পাতিদার। তার ওপরই তো নির্বাচকদের আস্থা বেশি ছিল আগে। তবে স্রেফ এটিই নয়, দ্বিতীয় টেস্টের উইকেট, ইংল্যান্ডের সম্ভাব্য বোলিং আক্রমণের সামনে এই দুজনের শক্তি-দুর্বলতা, সব বিবেচনায় নিয়েই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

ভারতের ব্যাটিং কোচ ভিক্রম রাঠোর বুধবার অনুশীলন শেষে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জানালেন, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন কোচ-অধিনায়ক।

“দুজনের একজনকে বেছে নেওয়া হবে খুবই কঠিন সিদ্ধান্ত। আমরা দেখেছি, গত কয়েক বছরে ঘরোয়া ক্রিকেটে তারা কেমন করেছে। এই ধরনের উইকেটে তারা দুজনই দলে অনেক কিছু যোগ করতে পারে। যদি একজনকে বেছে নিতে হয়, খুবই কঠিন হবে তা। তবে দু-একদিনের মধ্যেই রাহুল দ্রাবিড় ও রোহিত শার্মা সিদ্ধান্তটি নেবেন।”

উত্তরটি হয়তো পাওয়া যাবে শুক্রবারই। এ দিনই বিশাখাপাত্নামে শুরু দ্বিতীয় টেস্ট। প্রথম টেস্টে চমকপ্রদ জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে আছে ইংল্যান্ড।