আমিরাতের লিগে লিনের খেলা আটকে দিতে পারে অস্ট্রেলিয়া

বিগ ব্যাশ বাদ দিয়ে আমিরাতের টুর্নামেন্টটিতে লিনের অংশগ্রহণের পথে বাধা হতে পারে অস্ট্রেলিয়ান বোর্ড।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 August 2022, 12:07 PM
Updated : 9 August 2022, 12:07 PM

এতদিন আলোচনাটা হচ্ছিল ডেভিড ওয়ার্নারকে নিয়ে। তার জায়গায় এবার ক্রিস লিন। সংযুক্ত আরব আমিরাতের নতুন টি-টোয়েন্টি লিগের জন্য প্রথম দফা প্রকাশিত খেলোয়াড় তালিকায় আছেন অস্ট্রেলিয়ার এই বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান। তবে বিগ ব্যাশের সময়ে হতে যাওয়া আমিরাতের টুর্নামেন্টটিতে তার অংশগ্রহণের পথে বাধা হতে পারে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

বিগ ব্যাশ ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান স্কোরার লিনকে গত আসরের পর ছেড়ে দিয়েছে ব্রিসবেন হিট। আসছে আসরের জন্য এখনও কোনো দলের সঙ্গে তার চুক্তি হয়নি। তবে অ্যাডিলেইড স্ট্রাইকার্স তাকে পেতে আগ্রহ দেখিয়েছে। যদি তিনি বিগ ব্যাশের সঙ্গে চুক্তি করেন, তাহলে আমিরাতের লিগে খেলার জন্য অনাপত্তিপত্র (এনওসি) পাওয়া তার জন্য কঠিন হবে।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া মঙ্গলবার নিশ্চিত করেছে, বিদেশি লিগে খেলার জন্য এখনও পর্যন্ত কোনো খেলোয়াড়ের কাছ থেকে তারা অনাপত্তিপত্রের আবেদন পায়নি এবং নিজেদের ঘরোয়া ক্রিকেটকে প্রাধান্য দেওয়ার নীতিতে তারা অটুট থাকবে।

“অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া গ্রীষ্মকালীন ক্রিকেট এবং সামগ্রিকভাবে খেলাটির স্বার্থকে অগ্রাধিকার ও সুরক্ষা দেওয়াই আমাদের মূল নীতি। যেমন, এনওসি সাধারণত অস্ট্রেলিয়ান মৌসুম শেষ হওয়ার পরের সময়ের জন্য দেওয়া হয়।”

লিন বিগ ব্যাশে চুক্তি না করলেও আমিরাতের লিগে খেলার জন্য তার অনাপত্তিপত্র লাগবে। বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিতে না থাকলেও আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, বিদেশের কোনো লিগে খেলতে হলে নিজ দেশের বোর্ড থেকে অনাপত্তিপত্র লাগে।

অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন, লিনের ম্যানেজমেন্ট এবং আমিরাতের লিগ কর্তৃপক্ষ টুর্নামেন্টটিতে অস্ট্রেলিয়ান খেলোয়াড়দের অংশগ্রহণের বিষয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অবস্থান সম্পর্কে অবগত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

অতীতে কিছু ব্যতিক্রমও দেখা গেছে, যখন অস্ট্রেলিয়ান গ্রীষ্মে দেশটির খেলোয়াড়রা বিদেশের লিগে খেলেছে। লিনের ঘনিষ্ঠ বন্ধু বেন ডাঙ্ক ২০২১ সালের জানুয়ারিতে পারস্পরিক সম্মতিতে মেলবোর্ন স্টার্সের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছিলেন, তখনও তার চুক্তির আরও ১৮ মাস বাকি ছিল। পরে তিনি আবুধাবি টি-টেন লিগে খেলেছিলেন।

জেমস ফকনার দলের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হওয়ায় ২০২১-২২ মৌসুমের জন্য হোবার্ট হারিকেন্সের দেওয়া এক বছরের চুক্তির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। পরে জানুয়ারিতে তিনি করাচিতে পাকিস্তান সুপার লিগে খেলেছিলেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির প্রেক্ষিতে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটে নিষেধাজ্ঞার সময়ে ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলেছিলেন স্টিভেন স্মিথ ও ওয়ার্নার।

ওয়ার্নার এবার বিগ ব্যাশ বাদ দিয়ে আমিরাতের লিগে খেলবেন বলে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমে গত কিছুদিন ধরে খবর আসছিল। তবে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে হতে যাওয়া টুর্নামেন্টের জন্য সোমবার প্রথম দফা প্রকাশিত ৫৪ জন খেলোয়াড়ের মধ্যে তার নাম নেই।

অস্ট্রেলিয়ার একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে তালিকায় আছেন লিন। ২১ জন ‘মার্কি’ খেলোয়াড়ের একজন তিনি।

আগামী ডিসেম্বরের মাঝামাঝি শুরু হতে যাওয়া বিগ ব্যাশেই ওয়ার্নার খেলবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ২০১৩ সালের পর অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টটিতে আর খেলেননি বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক