কোহলির অনুপস্থিতিতে ব্রডের আক্ষেপ

ভারতীয় মহাতারকা না খেলায় দলটির শক্তি কমেছে বলে মনে হচ্ছে না সাবেক ইংলিশ পেসারের কাছে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Feb 2024, 10:45 AM
Updated : 12 Feb 2024, 10:45 AM

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ টেস্ট সিরিজে খেলছেন না ভিরাট কোহলি, মানতে যেন কষ্ট হচ্ছে স্টুয়ার্ট ব্রডের। ভারতীয় মহাতারকা অনুপস্থিতিতে অনেকের মতো হতাশ সাবেক এই ইংলিশ পেসার। তবে এতে স্বাগতিকদের শক্তি কমেছে বলে মনে করছেন না তিনি।

ব্যক্তিগত কারণে শুরুতে প্রথম দুই টেস্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন কোহলি। হায়দরাবাদে প্রথম ম্যাচে তার অনুপস্থিতি টের পায় ভারত। প্রথম ইনিংসে ১৯০ রানে এগিয়ে থেকেও জিততে পারেনি দলটি। দ্বিতীয় ইনিংসের ব্যাটিং ব্যর্থতায় হেরে যায় ২৮ রানে।

ইংল্যান্ডের অবিশ্বাস্য এই জয়ের পর ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া ছিল ভারত। বিশাখাপাত্নামে কোহলিকে ছাড়াই ইংলিশদের ১০৬ রানে হারিয়ে সিরিজে সমতা ফেরায় তারা। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় টেস্ট শুরু আগামী বৃহস্পতিবার, রাজকোটে।

সিরিজের বাকি তিন টেস্টেও কোহলিকে পাওয়া যাবে না, এমন আভাস ছিল আগে থেকেই। শেষ ম্যাচগুলোর জন্য গত শনিবার দল ঘোষণা করলে নিশ্চিত হয়ে যায় সেটাও।

প্রতিপক্ষ হলেও সময়ের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন কোহলির অনুপস্থিতি আক্ষেপে পোড়াচ্ছে ব্রডকে, ইন্দো-এশিয়ান নিউজ সার্ভিসের (আইএএনএস) সঙ্গে আলাপকালে বলেন তিনি।  

“এটা হতাশার যে তাকে (কোহলি) এই সিরিজে পাওয়া যাবে না। তবে (তাকে ছাড়াই) ভারত শেষ টেস্টটি জিতেছে। সে দারুণ মানসম্মত একজন খেলোয়াড়, খেলাটির প্রতি তার আবেগ…তবে ব্যক্তিগত বিষয়গুলো সবসময়ই প্রাধান্য পায়। এটা আবার তরুণ ক্রিকেটারদের দারুণ একটি সুযোগ করে দিয়েছে। ভারতের ব্যাটিং লাইন-আপের কেউ না কেউ কোনো না কোনো পর্যায়ে দলকে টানবে।”

ব্রড কথা বলেন টেস্টে ইংল্যান্ডের আগ্রাসী ক্রিকেটের ‘বাজবল’ কৌশল নিয়েও। গত বছর অবসর নেওয়া এই পেসার বেন স্টোকসের নেতৃত্ব ও ব্রেন্ডন ম্যাককালামের কোচিংয়ে এই ঘরানার ক্রিকেট খেলেছেন। তার কাছে খেলার এই ধরন বেশ উপভোগ্য মনে হয়।

ভারতের মাটিতে ‘বাজবল’ কাজ করবে কিনা, সিরিজ শুরুর আগে এমন প্রশ্ন উঠেছিল। হায়দরাবাদে স্বাগতিকদের হারিয়ে সব প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে ইংল্যান্ড, মনে করছেন ব্রড। তার মতে, যেকোনো দেশেই খেলার জন্য উপযুক্ত এই ‘বাজবল’ কৌশল।

“আমি এই কৌশল পছন্দ করি। সিরিজটি এখন ১-১ সমতায়, তবে আমি মনে করি, ‘বাজবল’ প্রমাণ করেছে খেলার এই ধরন সব দেশেই কাজ করে। আমার মনে হয়, হায়দরাবাদের পারফরম্যান্স ইংল্যান্ড দলের সবচেয়ে চমৎকার পারফরম্যান্স। আমরা পাকিস্তানে ৩-০ ব্যবধানে জিতেছি, নিউ জিল্যান্ডে ভালো খেলেছি। তাই ‘বাজবল’ এমন একটি মানসিকতা যা খেলাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।”