মুশফিকের সঙ্গে পরিকল্পনা করে নাজমুল অপুর নতুন উদযাপন

এবারের বিপিএলে এক ম্যাচে সুযোগ পেয়ে নিজের নতুন সেই উদযাপন দেখান এই বাঁহাতি স্পিনার।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Jan 2023, 10:40 AM
Updated : 23 Jan 2023, 10:40 AM

একটি ম্যাচ, একটি উইকেট, একটি উদযাপন। এবারের বিপিএলে এখনও পর্যন্ত নাজমুল ইসলাম অপুর দৃশ্যমান গল্প এইটুকুই। তার বোলিংয়ের চেয়েও লোকের বেশি কৌতূহল থাকে অনেক ক্ষেত্রে তার উদযাপন নিয়ে। এবারের বিপিএলে একটি ম্যাচেই কেবল সুযোগ পেয়েছেন তিনি। বোলিং সেদিন যথেষ্টই ভালো করেছেন। তবে নজর কেড়েছেন মূলত উদযাপন দিয়েই। এবার সেই নতুন উদযাপনের গল্প শোনালেন এই বাঁহাতি স্পিনার।

অপুর ‘নাগিন’ উদযাপন নিয়ে বলার আছে সামান্যই। বাংলাদেশের সীমানা ছাড়িয়ে সেই উদযাপন ছড়িয়ে পড়েছে ক্রিকেট বিশ্বের অনেক জায়গায়। ২০১৮ সালে শ্রীলঙ্কায় নিদাহাস ট্রফিতে তো সেই উদযাপন ঘিরে পাল্টাপাল্টি অনেক কিছুই হয়ে গেছে। গত বিপিএলে চমকে দেন ‘পুস্পা’ উদযাপন দিয়ে। ভারতের চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় চরিত্রের অনুকরণে সেই উদযাপনও সাড়া জাগায় তুমুল।

এবার বিপিএলে সিলেট স্ট্রাইকার্সের একাদশে জায়গা হচ্ছিল না অপুর। তার উদযাপনও তাই দেখা যাচ্ছিল না। অবশেষে একটি সুযোগ পান তিনি গত ১৬ জানুয়ারি। চট্টগ্রামে ঢাকা ডমিনেটর্সের বিপক্ষে সেদিন ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে উইকেট নেন একটি। একমাত্র সেই উইকেট পাওয়ার পর দেখা যায় তার নতুন উদযাপন।

ঢাকার উসমান ঘানিকে আউট করার পর দুই হাত মুখের সামনে রেখে ঘোমটার মতো করে মুখ ঢেকে রাখার ভঙ্গি করেন তিনি, সঙ্গে চলতে থাকে কোমরের দুলুনি।

নিয়মিত খেলার সুযোগ পাচ্ছেন না বলে উদযাপনটি দেখানোর সুযোগ ওই ম্যাচের পর আর পাননি তিনি। অন্যান্য আসরের মতো তাই সেভাবে ছড়িয়ে পড়েনি তার উদযাপন। তবে ওই একদিনের উদযাপনেই নজর কাড়েন দারুণভাবে।

মিরপুর একাডেমি মাঠে সোমবার অনুশীলন শেষে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে অপু শোনালেন সেই উদযাপনের পেছনের গেল্প।

“এটার থিমটা হলো ব্যাটসম্যান আউট হয়েছে, কাজ শেষ। এবার মুখ ঢেকে চলে যাও! এটা আমি আর মুশফিক মিলে ঠিক করেছিলাম যে ব্যাটসম্যানকে এভাবে ফেরত পাঠাব।”

ম্যাচ খেলার সুযোগ তার বেশি মিলছে না আপাতত। অনুশীলনে নিজেকে তৈরি রাখছেন, যেন একাদশে জায়গা পেলে উদযাপনের উপলক্ষও তৈরি হয় বেশি।

এ দিনের অনুশীলনে অবশ্য একাডেমি মাঠের সেন্টার উইকেটে একটা পর্যায়ে তাকে দেখা গেল, একের পর এক বল করছেন ফুল টস। কোনোটি তো বিমার হয়ে গেল। একটু খেয়াল করার পর অবশ্য দেখা গেল, ভিন্ন এক গ্রিপে বল করার চেষ্টা করছেন তিনি।

সেটি খোলাসা হলো আরেকটু পর। সিলেটের পাকিস্তানি বাঁহাতি স্পিনার ইমাদ ওয়াসিম বলের সিম পজিশন, গ্রিপ, এসব নিয়ে কিছু দেখাচ্ছিলেন তাকে। সেই গ্রিপে চেষ্টা করতে গিয়েই হয়ে উঠছিল না অপুর।

বাঁহাতি স্পিনার হলেও ইমাদ অনেক সময়ই বল ভেতরে ঢোকাতে পারেন ডানহাতি ব্যাটসম্যানের জন্য। বাতাসে ভেসে যেমন তার বল ভেতরে ঢোকে, অনেক সময় পিচ করেও সোজা হয় বা ভেতরে ঢোকে অ্যাঙ্গেলে। বিশেষ করে নতুন বলে এই ডেলিভারি তার দেখা যায় যথেষ্টই।

সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে অপু জানালেন, এই ডেলিভারিই তিনি রপ্ত করার চেষ্টা করছেন ইমাদের কাছ থেকে।

“নতুন বলটা ইনসুইংয়ের মতো করে ও (ইমাদ), এটা ওর কাছ থেকে শিখছিলাম। এটা যদি করতে পারি, পাওয়ার প্লেতে কাজে লাগবে। এটা করতে পারলে এক রান হবে বা পায়ে বল করা যায়। বাতাসে সুইং থাকে তো, পাওয়ার প্লেতে এটা খুবই ভালো। এজন্য ওর কাছ থেকে শিখছিলাম।”

“ভালো কিছুর জন্য একটু বেশি সময় লাগে। চেষ্টা করছিলাম, একটু সময় লাগবে। এক আঙুলে করতে হয় তো, আঙুলের শক্তির ব্যাপার আছে। পাওয়ার প্লের ভেতরে নিশানাও ভালো থাকতে হয়। এজন্য একটু সময় নিয়ে পরে ব্যবহার করব (ম্যাচে)।”

বিপিএলে এবার ম্যাচ খেলার সুযোগ খুব বেশি না পেলেও সময় খুব ভালো কাটছে অপুর। সিলেটের দলীয় আবহ তিনি দারুণ উপভোগ করছেন।

“খুবই ভালো যাচ্ছে। আমাদের টিম বন্ডিং খুব ভালো। মাশরাফি ভাই, মুশফিক যেভাবে দলকে রাখছে, যেভাবে স্বাধীনতা দিচ্ছে, এটা খুবই ভালো। আমাদের সবচেয়ে বড় ব্যাপার টিম বন্ডিংই। একজন আউট হয়ে গেলেও ওটা অনুভবই হচ্ছে না। আরেকজন গিয়ে আরও ভালো করছে। সব মিলিয়ে ভালো যাচ্ছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক