শবে বরাতে বায়তুল মোকাররমে বিশেষ আয়োজন

হিজরি বর্ষের শাবান মাসের ১৪ তারিখ দিবাগত রাত মুসলমানদের কাছে শবে বরাত বা ‘সৌভাগ্যের’ রাত হিসেবে বিবেচিত।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Feb 2024, 05:48 AM
Updated : 25 Feb 2024, 05:48 AM

বছর ঘুরে আবার এসেছে মুসলমানদের ‘সৌভাগ্যের রজনী’; এ উপলক্ষে রোববার রাতে রাজধানীর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে কোরআন তেলাওয়াত, হামদ-নাত ও ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

হিজরি বর্ষের শাবান মাসের ১৪ তারিখ দিবাগত রাত মুসলমানদের কাছে শবে বরাত বা ‘সৌভাগ্যের’ রাত হিসেবে বিবেচিত। ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ রাতটিতে মুসলমানরা ইবাদতে কাটিয়ে দেন।

শবে বরাত রমজানের বার্তাও নিয়ে আসে। সাধারণত এই রাতের ১৫ দিনের মাথায় শুরু হয় সিয়াম সাধনার মাস।

এক বিজ্ঞপ্তিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশন বলেছে, রোববার সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটে শবে বরাতের ফজিলত ও তাৎপর্য নিয়ে ওয়াজ শুরু হবে। এতে বয়ান দেবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ রুহুল আমীন।

রাত ৮টা ৫০ মিনিটে কোরআন ও হাদিসের আলোকে লাইলাতুল বরাতের শিক্ষা ও করণীয় নিয়ে ওয়াজ করবেন মাদারীপুরের জামেআতুছ সুন্নাহ শিবচরের মুহতামিম মাওলানা নেয়ামত উল্লাহ ফরিদী।

রাত সাড়ে ১২টায় আত্মশুদ্ধি ও আল্লাহর নৈকট্য অর্জনে করণীয় নিয়ে ওয়াজ করবেন ঢাকার বাদামতলীর শাহাজাদ লেন জামে মসজিদের খতিব শায়খুল হাদিস মুফতি নজরুল ইসলাম কাসেমী।

রাত ৩টা ১৫ মিনিটে নফল নামাজের গুরুত্ব ও ফজিলত নিয়ে ওয়াজ করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুফতি মো. মিজানুর রহমান।

ভোর সাড়ে ৫টায় দোয়া-মোনাজাত পরিচালনার মধ্য দিয়ে শবে বরাতের আয়োজন শেষ হবে।

এই দোয়া-মোনাজাত পরিচালনা করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুফতি মো. মিজানুর রহমান।

শবে বরাত ঘিরে দিনটিতে বাড়িতে বাড়িতে হরেক রকমের হালুয়া, ফিরনি, রুটিসহ নানা ধরনের খাবার তৈরির প্রচলন আছে। এসব খাবার দুঃস্থ-গরিবদের মাঝে বিতরণের পাশাপাশি প্রতিবেশী ও আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে বাড়িতেও কেউ কেউ পাঠান।

বাংলাদেশে শবে বরাতের পরের দিনটি নির্বাহী আদেশে সরকারি ছুটি থাকে। ফলে এবার সেই ছুটি হবে সোমবার।