জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড পেল ১০ প্রতিষ্ঠান

প্রতিযোগিতায় ছয়শ’র বেশি সংগঠন অংশ নিয়েছিল।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Nov 2022, 05:10 PM
Updated : 12 Nov 2022, 05:10 PM

নতুন উদ্ভাবনী ভাবনা নিয়ে দেশ গঠনে এগিয়ে আসা ৬০০টির বেশি প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন থেকে যাচাই বাছাই শেষে ১০ প্রতিষ্ঠানের হাতে উঠেছে ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’।

এ বছর পাঁচটি ক্যাটাগরির প্রতিটিতে দুটি করে ১০টি প্রতিষ্ঠানকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়।

এছাড়া দেশের জন্য বিশেষ অবদান রাখায় আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন উন্মাদের আহসান হাবীব এবং লেখক ও গবেষক পার্বত্য চট্টগ্রামের ম্রো জাতিগোষ্ঠীর ইয়াংগুয়াং ম্রো।

শনিবার ষষ্ঠবারের এ আয়োজনে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগের গবেষণা উইং সিআরআইয়ের চেয়ারপারসন সজীব ওয়াজেদ জয়।

দেশ গঠনে দেশের প্রান্তিক পর্যায়ে থাকা তৃণমূলের তরুণদের উৎসাহিত করতে এ পুরস্কার দিচ্ছে ইয়াং বাংলা।

সিআরআই- এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান `ইয়াং বাংলা’র নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বিগত আট বছরে ছয়বার দেশ গঠনে এগিয়ে আসা তরুণদের হাতে তুলে দেওয়া হয় এই অ্যাওয়ার্ড।

Also Read: তরুণরাই দেশকে এগিয়ে নেবে: জয়

পুরস্কার পেল যেসব সংগঠন

>> রোবোলাইফ টেকনোলজিস

২০১৮ সালে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন মানুষদের সহযোগিতায় শুরু করা রোবোলাইফ টেকনোলজিসের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও জয় বড়ুয়া লাবলু। শুরুতে তারা দুর্ঘটনা বা যেকোনো কারণে হাত হারানো ব্যক্তিদের কৃত্রিম হাত প্রতিস্থাপন করা শুরু করে।

>> বিকে স্কুল অব রিসার্চ

সমাজ গঠন, অর্থনীতি ও মানবিকতা নিয়ে কাজ করা এ প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক বিজন কুমার।

>> বোসন বিজ্ঞান সংঘ

এ সংঘের সভাপতি হিসেবে রয়েছেন মুহাম্মদ মাজেদুর রহমান। ২০১৪ সালে শিক্ষার্থীদের গণিত ও বিজ্ঞান শিখতে অনুপ্রাণিত করতে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। বর্তমানে তারা নারীদের বিজ্ঞান এবং গণিত শেখাতে অনুপ্রাণিত করতে একটি বিজ্ঞান প্রতিযোগিতার আয়োজন করার পরিকল্পনা করছে।

>> উচ্ছ্বাস

২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে স্বেচ্ছাসেবকের কাজ করা সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি প্রসেনজিৎ কুমার সাহা।

>> ইয়ুথ প্ল্যানেট

২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে, সংগঠনটি নারীদের বিরুদ্ধে সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে। নারীদের দৃষ্টিভঙ্গি, স্বাস্থ্য ও অধিকার সম্পর্কে পুরুষদের শিক্ষিত করার বিষয়ে সংগঠনটি কাজ করছে। এ বি এম মাহমুদুল হাসান এটির প্রতিষ্ঠাতা।

>> বিজ্ঞানপ্রিয়

২০১৭ সালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম দিয়ে প্ল্যাটফর্মটির যাত্রা শুরু। দৈনন্দিন জীবনের সাথে সম্পর্কিত বৈজ্ঞানিক তথ্য প্রচার ছাড়াও বিজ্ঞানের অগ্রগতি, খবর, ব্লগ, ইনফোগ্রাফিক্স অডিও-ভিজ্যুয়াল সম্বলিত বিভিন্ন কনটেন্ট তৈরি করে। এটির প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মুহাম্মদ শাওন মাহমুদ।

>> মজার ইশকুল

২০১৩ সালে পথশিশুদের বিনামূল্যে শিক্ষা দিতে এর যাত্রা শুরু হয়। প্রাক-প্রাথমিক থেকে সপ্তম শ্রেণী পর্যন্ত এক হাজার সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুকে বিনামূল্যে শিক্ষা দিচ্ছে এই প্রতিষ্ঠান। এটির প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক আরিয়ান আরিফ।

>> মিলন স্মৃতি পাঠাগার

যুব সমাজকে বই পড়ায় উৎসাহিত করার লক্ষে প্রতিষ্ঠিত সংগঠনটি জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় মোট ১৪টি লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠা করেছে। আসাদুজ্জামান মিলন এ পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি।

>> সুইচ বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বস্ত্র এবং আশ্রয়ের মতো মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করার জন্য ২০১১ সাল থেকে কাজ করছে সংগঠনটি। মো. মুইনুল আহসান ফয়সাল সুইচ বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক।

>> বিন্দু নারী উন্নয়ন সংগঠন

২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠিত যুব নেতৃত্বাধীন নারীবাদী সংগঠনটি জলবায়ু ও নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে কাজ করে। জান্নাতুল মাওয়া এটির নির্বাহী পরিচালক।

আজীবন সম্মাননা

>> উন্মাদের আহসান হাবীব

দেশের আইকনিক প্রকাশনা উন্মাদ। প্রায় চার দশক ধরে দক্ষিণ এশিয়া ও বাংলাদেশের নিয়মিত এক ম্যাগাজিন এটি। প্রকাশকালে অসংখ্য রাজনৈতিক ও সমসাময়িক বিষয়ে ব্যতিক্রম ও ব্যাঙ্গাত্মকভাবে তুলে ধরে সমালোচনা করা হয়েছে এই ম্যাগাজিনে। 

মাসিক এই ব্যাঙ্গাত্মক ম্যাগাজিন পরিচালনা করছেন আহসান হাবীব।

>> ইয়াংগুয়াং ম্রো

পার্বত্য চট্টগ্রামের বাসিন্দা ইয়াংগুয়াং ম্রো লেখালেখি ও গবেষণা করেন। তিনি ম্রো সম্প্রদায়ের ভাষায় প্রথম বই 'টোটং' প্রকাশ করেন।

ম্রো ভাষার প্রথম এই কথাসাহিত্যিক 'ম্রো ফেয়ারি টেইলস' নামে বই লিখেছেন। ২০১৩ সাল থেকে মাত্র ছয় ব্যক্তির কথ্য ভাষা 'রেণমিতাচ্যা ভাষা' সংরক্ষণে কাজ করছেন তিনি।

মানবিক কাজ ও সমাজে অবদানের জন্য দেশের সেরা যুব সংগঠনগুলোকে স্বীকৃতি দিতে মুক্তিযুদ্ধের সময়ের স্লোগান 'জয় বাংলা'র নামে ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ এর প্রবর্তন করা হয়।

এ অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী অনেক সংগঠন ইতোমধ্যে শিশু শান্তি পুরস্কার, ডায়না অ্যাওয়ার্ডসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পুরস্কারও অর্জন করেছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক