উইকি মুছলেও দেখা যাচ্ছে এরশাদের ‘মৃত্যুর তারিখ’

উইকিপিডিয়া মুছে ফেললেও গুগল সার্চে এখনও দেখা যাচ্ছে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের ‘মৃত্যু তারিখ’।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 June 2018, 07:46 PM
Updated : 26 June 2018, 09:50 AM

গুগলে বাংলাদেশের সাবেক এই রাষ্ট্রপতির নাম লিখে সার্চ দিলে ফলাফলে উইকিপিডিয়ায় এরশাদকে নিয়ে আর্টিকেলের লিংক দেখানোর পাশাপাশি একটি ‘বক্সে’  ওই আর্টিকেলের প্রোফাইল তথ্যগুলো দেখা যায়।

সোমবারও এরশাদের নাম লিখে সার্চ দিয়ে ওই বক্সে এরশাদের ‘মৃত্যু তারিখ ২২ জুন ২০১৮’ লেখা দেখা যায়। তবে উইকিপিডিয়ার মূল আর্টিকেলে গিয়ে ওই তথ্যটি দেখা যায়নি।

এনিয়ে বাংলা উইকিপিডিয়ার প্রশাসক নুরুন্নবী চৌধুরী হাছিব বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,  “যেহেতু ইউকিপিডিয়ায় যে কেউ এডিট করতে পারে। তো কেউ একজন নামের টেমপ্লেটে যেখানে বার্থ ডেট, ডেথ ডেট থাকে, সেখানে ডেথ ডেটের ভেতরে ডে অ্যাড করে দিয়েছে।

“কেউ ভ্যান্ডালাইজ করেছে। আমাদের অ্যাডমিনদের নজরে আসার পরপরই (ওই তথ্য) মুছে ফেলা হয়।”

বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রতিবেদন প্রকাশের বিষয়ে হাছিব বলেন, “হুট করে কিছু গণমাধ্যম স্ক্রিনশট দিয়ে নিউজটা নজরে আনে। … যেহেতু কনটেন্টটা (গুগলে) উপরে দেখাচ্ছে, যার কারণে অনেকে মনে করছে এটা উইকিপিডিয়ার দেওয়া।”

তিনি বলেন, “এখানে একটা বিষয় ক্লিয়ার করা দরকার গুগল আর উইকিপিডিয়া সম্পূর্ণ দুটি আলাদা এনটিটি। দুটো সম্পূর্ণ দুই মেরুর প্রতিষ্ঠান।

“উইকিপিডিয়া শুধু কনটেন্ট প্রডিউস করে, এটা নিয়ে কোনো বিজনেস করে না, দিয়ে রাখে। আর গুগল কোথায় কোথায় তথ্য পাওয়া যাবে, তা একসাথে করে। গুগলের কাজই যেহেতু তথ্য দেখানো, ওরা দেখছে যে উইকিপিডিয়া সবচেয়ে ভাল কনটেন্ট হাব। এজন্য প্রথম লিংকটা উইকিপিডিয়ার দেখায়; কারণ গ্রহণযোগ্যতার দিক দিয়ে আমরা এগিয়ে আছি।”

মুক্ত ইন্টারনেট বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়ার আর্টিকেল থেকে এরশাদের মৃত্যু তারিখ মুছে হলেও তা এখনও গুগল সার্চে দেখা যাওয়া নিয়ে হাছিব বলেন, “গুগল ওদের অ্যালগারিদমে লাস্ট যে আপডেট করেছে সেটা আর আপডেট হয়নি।”

তিনি বলেন, “গুগল কী দেখালো, সেটা নিয়ে উইকিপিডিয়াকে ধরার কোনো মানে হয় না। আমাকে চেক করতে হবে উইকিপিডিয়াতে গিয়ে।

“…উইকিপিডিয়ার তথ্যটা অ্যাড হওয়ার সাথে সাথে মুছেও গেছে। এখন আর্টিকেলে গেলে এই তথ্য পাওয়া যাবে না।”

এ বিষয়ে গুগলের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ঘটনাটি নিয়ে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে এরশাদের প্রেস সচিব সুনীল শুভ রায় বলেন, “এটার আর কী উত্তর দেব? গতকালও আমাকে একজন প্রশ্ন করছিল। আমি বললাম, ভাই আপনি তো বাংলাদেশেই থাকেন। কেউ যদি পাগল-ছাগলের মতো কিছু লেখে আমরা এর কী প্রতিক্রিয়া দেব, বলেন?”

উইকিপিডিয়ার ‘ভিউ হিস্ট্রি’ অনুসরণ করে দেখা যায়, ২২ জুন একটি আইপি থেকে ‘ডেথ ডেট’ অংশে ‘২২ জুন ২০১৮’ এবং ‘ডেথ প্লেস’ অংশে ‘ঢাকা, বাংলাদেশ’ যুক্ত করা হয়।

কিছু সময় পরে একই আইপি থেকে ডেথ প্লেস অংশে ‘রংপুর, বাংলাদেশ’ লেখা হয়।

২৩ জুন নিয়মে ‘ভায়োলেশন’ হয়েছে জানিয়ে উইকি থেকে ওই আইপির উদ্দেশে ‘মৃত্যু তারিখের সূত্র’ উল্লেখ করার অনুরোধ জানানো হয়।   

ভিউ হিস্ট্রি অনুযায়ী ২৪ জুন এরশাদের ওই ইংরেজি আর্টিকেলটি ‘সেমি-প্রোটেকটেড’ করা হয়েছে।

‘ভ্যান্ডালিজম’ এড়াতে আর্টিকেলে ‘রিকোয়েস্ট প্রটেকশন’ দেওয়া হয়েছে জানিয়ে হাছিব বলেন, “এখন আর্টিকেলে কোনো আইপি থেকে কিছু অ্যাড করতে গেলে পারা যাবে না। কারণ ওই আর্টিকেল অলরেডি আমরা সেমি-প্রটেকটেড করে রেখেছি। হাই-প্রোফাইল আর্টিকেলগুলো আমরা সেমি-প্রটেকটেড করে রাখি। অ্যাডমিন লেভেলের ইউজার ছাড়া কিছু অ্যাড হবে না।”

হাছিব জানান, কোনো আইপি থেকে যদি ক্রমাগত ভ্যান্ডালিজম হয় তার আইপি-ইউজার ব্যান করা হয়।

“তবে এটা যেহেতু একটাই এডিট করেছে, তাই এই আইপির বিরুদ্ধে কোনো অ্যাকশন নেওয়া হয়নি। শুধু আর্টিকেলটা সেমি-প্রটেকটেড করা হয়েছে।”

এরশাদের ‘মৃত্যু তারিখ’ নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতি উইকির ইংরেজি রচনাতে দেখা গিয়েছিল জানিয়ে হাছিব বলেন, “আমরা বাংলা (আর্টিকেল) আগেই লক করে রেখেছি। বাংলাতে এ ধরনের তথ্য এলে আমার কাছে রিভিউ আসে। আমি বাতিল করে দিই।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক