‘রিপল অব হোপ’ মানবাধিকার পুরস্কার নিলেন হ্যারি-মেগান

জাতিগত অন্যায়ের শিকার হওয়া এবং মানসিক অসুস্থতার অভিজ্ঞতা নিয়ে সাহস করে কথা বলার জন্য যুক্তরাজ্যের প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগানকে এই সম্মাননা দেওয়া হয়।

রয়টার্স
Published : 7 Dec 2022, 03:39 PM
Updated : 7 Dec 2022, 03:39 PM

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে একটি অনুষ্ঠানে ‘রবার্ট এফ কেনেডি হিউম্যান রাইটস’ (আরএফকেএইচআর) সংগঠন থেকে ‘রিপল অব হোপ’ পুরস্কার নিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগান।

জাতিগত অন্যায়, অবিচার এবং মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে সরব হওয়ার স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য তাদেরকে এই সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকালে হ্যারি ও মেগানের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। বিশ্বের দেশগুলোর সরকার থেকে শুরু করে ব্যবসা, বিনোদোন, প্রচারসহ বিভিন্ন খাতে নেতৃস্থানীয়দেরকে সামাজিক পরিবর্তনের প্রতি তাদের দৃঢ়সংকল্পের জন্য এই মানবাধিকার পুরস্কার দিয়ে থাকে রবার্ট এফ কেনেডি হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন।

দ্য টেলিগ্রাফ পত্রিকা জানায়, ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট এবং রবার্ট এফ কেনেডির মেয়ে কেরি কেনেডি বলেছেন, “এই দম্পতি (হ্যারি-মেগান) ‘অত্যন্ত সাহস’ নিয়ে তাদের জাতিগত অন্যায়ের শিকার হওয়া এবং মানসিক অসুস্থতার অভিজ্ঞতা নিয়ে কথা বলেছেন।

পুরস্কার পাওয়ার পর হ্যারি এবং মেগান বলেছেন, “আমরা জানি, এই রিপল অব হোপ রূপ নিতে পারে পরিবর্তনের ঢেউয়ে।”

ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারি এবং ডচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কল ২০২০ সালে রাজকীয় দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানো এবং আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য কাজ করার ঘোষণা দেন।

হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগান বর্তমানে তাদের দুই সন্তান ছেলে আর্চি ও মেয়ে লিলিবেটকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বাস করছেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক