নাসার এলআরও’র ক্যামেরায় ভারতের বিক্রম

এলআরওকে নিয়ন্ত্রণ করা হয় মেরিল্যান্ডের গডড্রাড স্পেস ফ্লাইট সেন্টার থেকে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 Feb 2024, 05:53 PM
Updated : 13 Feb 2024, 05:53 PM

চাঁদের মাটিতে থাকা ভারতীয় চন্দ্রযান-৩ এর ল্যান্ডারের একটি ছবি প্রকাশ করেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসা।

প্রতিষ্ঠানটি বলছে, ল্যান্ডার বিক্রমের চাঁদে পা রাখার চারদিন পর ওই ছবি তুলেছে তাদের লুনার রিকনেসান্স অরবিটার (এলআরও)। ছবির মাঝ বরাবর একটি ছোট্ট কালো দাগ দেখা যাচ্ছে, যার চারপাশ ঘিরে জ্বলছে আলো।

এলআরওকে নিয়ন্ত্রণ করা হয় মেরিল্যান্ডের গডড্রাড স্পেস ফ্লাইট সেন্টার থেকে। এলআরও এর প্রাথমিক কাজই হল পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহটির কক্ষপথে থেকে এর উপরিভাগের থ্রি-ডি ম্যাপিং করা। চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে এটি ৫০ কিলোমিটার দূরে বৃত্তাকার কক্ষপথে ঘুরছে।

চন্দ্রযান-৩ এর ল্যান্ডার চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পা রাখে গত ২৩ অগাস্ট। এরপর ল্যান্ডারের ভেতর থেকে বেরিয়ে রোভার প্রজ্ঞান ১০ দিন ধরে বেশকিছু ছবি ও বিভিন্ন তথ্য পাঠিয়েছে ভারতের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান-ইসরোকে।

চাঁদে মাস হয় ২৮ দিনে। টানা ১৪ দিন রাতের পর বাকি ১৪ দিন সূর্যের আলো বা দিন থাকে। সে কারণে দিনের শুরতে সেখানে নেমে কাজ শুরু করেছিল ল্যান্ডার ও রোভার। এরপর সূর্য অস্ত গিয়ে রাত নামতে শুরু করায় তারা শক্তি হারাচ্ছে। সে কারণে তাদের রাখা হচ্ছে ‘স্লিপ মোডে’।

ইসরো বলছে, সৌরশক্তি ও ব্যাটারি শেষ হয়ে গেলে একে অপরের পাশে ‘ঘুমিয়ে পড়বে’ল্যান্ডার ও রোভার। আগামী ২২ সেপ্টেম্বরের দিকে চাঁদে ফের সকাল হলে তারা জেগে উঠতেও পারে।

গত ১৪ জুলাই ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান কেন্দ্র থেকে চন্দ্রযান-৩ উৎক্ষেপণ করেছিল ইসরো। ২৩ অগাস্ট সেটি সফলভাবে চন্দ্রপৃষ্ঠে নামে। এর মাধ্যমে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পা রাখা প্রথম এবং চাঁদের মাটিতে নামা বিশ্বের চতুর্থ দেশের স্বীকৃতি পায় ভারত। সংবাদ সূত্র: বিবিসি

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)