রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা: ইউক্রেইনজুড়ে বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন, মলদোভাও অন্ধকারে

মলদোভা গত ১৫ নভেম্বরেও ইউক্রেইনে রুশ হামলার জেরে ব্যাপক বিদ্যুৎ বিভ্রাটের শিকার হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Nov 2022, 05:41 PM
Updated : 23 Nov 2022, 05:41 PM

ইউক্রেইনজুড়ে জ্বালানি অবকাঠামোগুলোতে রুশ বাহিনীর একের পর ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিভিন্ন নগরী বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ইউক্রেইনে এই হামলার জেরে মলদোভারও বেশিরভাগ এলাকা অন্ধকারে ডুবে গেছে।

ইউক্রেইনের রাজধানী কিইভের মেয়র ভিতালি ক্লিৎসকো বলেছেন, নগরীর বেশ কিছু অংশ বিদ্যুৎ ও পানি বিহীন হয়ে পড়েছে। ওদিকে, পশ্চিমের নগরী লিভভও বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে আছে।

অথচ দেশটিতে হাড় হিম করা শীত শুরু হয়ে গেছে। ইউক্রেইনের অনেক অঞ্চলে তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে বা কাছাকাছি নেমে গেছে। এ অবস্থায় বিদ্যুৎ সরবরাহ ঠিকঠাক না থাকায় দেশটির বাসিন্দাদের জীবনে চরম দুর্যোগ নেমে এসেছে।

ইউক্রেইনের সীমান্ত সংলগ্ন প্রতিবেশী দেশ মলদোভায় দখা দিয়েছে ‘মারাত্মক’ বিদ্যুৎবিভ্রাট। যদিও মলদোভা এখনও সরাসরি রুশ হামলার শিকার হয়নি।

তবে মলদোভার উপ-প্রধানমন্ত্রী আন্দ্রেই স্পিনু টুইটারে লিখেছেন, মলদোভার অর্ধেকের বেশি অংশ বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে। ইউক্রেইনের জ্বালানি অবকাঠামো হামলার শিকার হওয়ায় মলদোভায় এই ‘ব্যাপক বিদ্যুৎবিভ্রাট’ সৃষ্টি হয়েছে বলে জানান তিনি।

রয়টার্সের এক সাংবাদিক জানিয়েছেন, কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মলদোভার রাজধানীতে বিদ্যুৎ সরবরাহ আবার সচল হতে শুরু করেছে।

মলদোভা এর আগে গত ১৫ নভেম্বরেও ইউক্রেইনে রুশ হামলার জেরে ব্যাপক বিদ্যুৎ বিভ্রাটের শিকার হয়েছে এবং মোবাইল নেটওয়ার্কও বিঘ্নিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন উপ-প্রধানমন্ত্রী।

গত বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে রাশিয়া ইউক্রেইনের বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোতে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। এতে দেশটির ক্ষতিগ্রস্ত অর্ধেক বিদ্যুৎগ্রিডই মেরামত করা প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

বৃহত্তর কিইভ অঞ্চলের প্রধান বলেছেন, রাশিয়া সেখানকার গুরুত্বপূর্ণ বেসামরিক অবকাঠামো এবং বাসভবনে হামলা অব্যাহত রেখেছে। হামলায় কিইভে তিনজন নিহত হয়েছে বলেও জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

ওদিকে পশ্চিমাঞ্চলীয় নগরী লিভভের মেয়র রুশ হামলা থেকে বাঁচতে বাসিন্দাদের শেল্টারে আশ্রয় নেওয়ার অনুরোধ করেছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

মেয়র আন্দ্রি সাতোভি বলেন, স্কুল থেকে শিশুদের তাদের শিক্ষকদের সঙ্গে শেল্টারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। হামলার সতর্কতায় যে অ্যালার্ম বাজানো হয়েছে সেটা বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত তিনি অভিভাবকদের শিশুদের স্কুল থেকে আনতে যেতেও নিষেধ করেছেন।

এর আগে কয়েকটি এলাকা থেকে বিস্ফোরণের খবর আসার পর ইউক্রেইন জুড়ে বিমান হামলার সতর্কতা জারি করা হয়েছিল।

কিইভ এবং লিভভে নতুন করে হামলার খবর পাওয়ার কিছু সময় আগে কর্মকর্তারা ইউক্রেইনের দক্ষিণ অঞ্চলে পুনরায় হামলা শুরু হওয়ার খবর দেন।

মিকোলাইভ অঞ্চলের গভর্নর বলেন, দক্ষিণ ও পূর্ব দিকে ‘প্রচুর রকেট হামলা’ হচ্ছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক