এআইয়ের পক্ষে বাজি ধরার পরপরই বাজারমূল্য দ্বিগুণ আর্মের

বিশ্বের প্রায় সকল স্মার্টফোনেই আর্মের নকশা করা চিপ ব্যবহৃত হচ্ছে এখন।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 Feb 2024, 09:35 AM
Updated : 13 Feb 2024, 09:35 AM

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির পক্ষে বাজি ধরার এক সপ্তাহেরও কম সময়ে নিজস্ব বাজারমূল্য দ্বিগুণে পৌঁছাতে দেখেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক চিপ নকশা কোম্পানি আর্ম।

বুধবার কেমব্রিজভিত্তিক কোম্পানিটির আর্থিক আয়ের হিসাবে দেখা যায়, বিভিন্ন এআইভিত্তিক পণ্যের চাহিদা কোম্পানির বিক্রি বাড়িয়ে দিয়েছে।

বিশ্বের প্রায় সকল স্মার্টফোনেই আর্মের নকশা করা চিপ ব্যবহৃত হচ্ছে এখন।

২০১৬ সালে জাপানের সফটব্যাংক আর্মকে ব্যক্তিমালিকানাধীন করার পর গত বছরের সেপ্টেম্বরে শেয়ারবাজারে প্রত্যাবর্তন ঘটে কোম্পানিটির।

গত সপ্তাহে নিজেদের আর্থিক আয়ের ঘোষণা দেওয়ার পর এখন পর্যন্ত আর্মের বাজারমূল্য বেড়েছে ৯৮ শতাংশের বেশি।

এর আগে এআই চিপের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় গত বছর নিজেদের শেয়ারমূল্য তিন গুণে পৌঁছাতে দেখেছিল আরেক চিপ নির্মাতা জায়ান্ট এনভিডিয়া।

এআইয়ের এমন বাড়তে থাকা চাহিদার কারণে বিশ্বের অন্যতম দামী পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি হয়ে উঠেছে এনভিডিয়া, যেখানে তাদের বাজারমূল্য প্রায় এক লাখ ৮০ হাজার কোটি ডলার।

এ ছাড়া, যুক্তরাষ্ট্রের পঞ্চম পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি হিসেবে ‘ট্রিলিয়ন ডলার ক্লাব’-এও প্রবেশ করেছে কোম্পানিটি, যেখানে তাদের সঙ্গী হিসেবে আছে অ্যাপল, মাইক্রোসফট, অ্যালফাবেট ও অ্যামাজনের মতো প্রযুক্তি জায়ান্টরা।

আর্মের প্রযুক্তি সরাসরি এআইয়ের কাজে ব্যবহৃত না হলেও এনভিডিয়ার মতো চিপ নির্মাতারা নিজস্ব এআই চিপের জন্য আর্মের নকশাই বেছে নিয়েছে।

এনভিডিয়া ও টিএসএমসি’র পাশাপাশি আর্মের অন্যান্য গ্রাহকের মধ্যে রয়েছে অ্যাপলের মতো সুপরিচিত ব্র্যান্ডও।

এদিকে, ইভি খাতেও আর্মের নকশা করা চিপের চাহিদা বাড়ছে, যেখানে কৃতিত্ব রয়েছে স্বচালিত প্রযুক্তি বিকাশের।

১৯৯০ সালে ইউনিভার্সিটির শহর হিসেবে পরিচিত কেমব্রিজের একদল চিপ নকশাকারীর হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল আর্ম।