ওপেনএআই বোর্ডে মাইক্রোসফটের চেয়ার থাকবে, ভোট নয়

আপাতত পর্ষদের নতুন ছয়জন সদস্য খোঁজ করছে ওপেনএআই, যেখানে অগ্রাধিকার পাবেন প্রযুক্তি খাতে নিরাপত্তা ও নীতিমালা সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিরা।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Nov 2023, 10:14 AM
Updated : 30 Nov 2023, 10:14 AM

ওপেনএআইয়ের পর্ষদে ভোটের অধিকার ছাড়া পর্যবেক্ষক হিসেবে অবস্থান করবে প্রযুক্তি জায়ান্ট মাইক্রোসফট --এমনই বলেছেন সম্প্রতি কোম্পানিতে নিজের সিইও পদ ফিরে পাওয়া স্যাম অল্টম্যান।

এ অবস্থানের মানে দাঁড়ায়, মাইক্রোসফটের প্রতিনিধি ওপেনএআই বোর্ডের বিভিন্ন বৈঠকে যোগ দিতে পারবেন ও তাদের অভ্যন্তরীণ তথ্য জানার সুযোগ পাবেন। তবে, পর্ষদে পরিচালক বাছাই বা নির্বাচনের মতো পরিস্থিতিতে ভোট দেওয়ার কোনো অধিকার থাকবে না।

এর আগে মাইক্রোসফট সিইও সাত্যিয়া নাদেলা বলেছিলেন, ওপেনএআইয়ের নীতিনির্ধারক পর্যায়ে পরিবর্তন আনা জরুরী।

গত সপ্তাহে ওপেনএআই ঘোষণা দেয়, নতুন পর্ষদের প্রাথমিক তিন পরিচালক হবেন কোম্পানির বর্তমান চেয়ারম্যান ব্রেট টেইলর, সাবেক ট্রেজারি মন্ত্রী ল্যারি সামার্স ও সামাজিক মাধ্যম ‘কোরা’র সিইও অ্যাডাম ডি অ্যাঞ্জেলো, যিনি অল্টম্যানকে ছাঁটাই করা পর্ষদের ছয় সদস্যের একমাত্র অবশিষ্ট পরিচালক।

আপাতত পর্ষদের নতুন ছয়জন সদস্য খোঁজ করছে ওপেনএআই, যেখানে অগ্রাধিকার পাবেন প্রযুক্তি খাতে নিরাপত্তা ও নীতিমালা সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিরা।

বিভিন সূত্র রয়টার্সকে বলেছে, এ অলাভজনক পর্ষদে ওপেনএআইয়ের বিনিয়োগকারীদের জায়গা পাওয়ার সম্ভাবনা কম।

ওপেনএআইয়ের পেছনে এক হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগের অঙ্গিকার করা মাইক্রোসফটের কাছে রয়েছে কোম্পানির ৪৯ শতাংশ মালিকানা । এ প্রসঙ্গে রয়টার্স মাইক্রোসফটের মন্তব্য জানতে চাইলে কোম্পানিটি তাতে সাড়া দেয়নি।

অল্টম্যানের ছাঁটাইয়ের পর অন্তর্বর্তীকালীন সিইও হিসেবে দায়িত্ব পালন করা মিরা মুরাটিকেও কোম্পানির প্রযুক্তি প্রধান হিসেবে বহাল রাখা হয়েছে।

১৭ নভেম্বর কোনো বিস্তারিত কারণ না দেখিয়েই অল্টম্যানকে ছাঁটাই করেছিল ওপেনএআইয়ের পরিচালনা পর্ষদ। তবে, কোম্পানির বিনিয়োগকারী ও কর্মীদের চাপের মুখে পড়ে এ সিদ্ধান্তের চারদিন পরই অল্টম্যানকে পুনরায় নিজ পদে ফেরানো হয়, যেখানে তাকে নতুন বোর্ড গঠনের প্রতিশ্রুতিও দেওয়া হয়।

অল্টম্যানের আকস্মিক বিদায়ের পরপরই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা স্টার্টআপ কোম্পানিটির ভবিষ্যৎ নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়।

অল্টম্যানের ছাঁটাইয়ের পর স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করা ওপেনএআইয়ের আরেক সহ-প্রতিষ্ঠাতা গ্রেগ ব্রকম্যানও কোম্পানির প্রেসিডেন্ট পদে ফিরে আসবেন বলে বুধবার জানিয়েছেন অল্টম্যান নিজেই।

“গ্রেগ আর আমি অংশীদার হিসেবে কোম্পানি চালিয়ে আসছি। আমরা কখনওই কোম্পানির সাংগঠনিক তালিকা অনুযায়ী যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু করিনি, তবে এবার করব।” --বলেন অল্টম্যান।

অল্টম্যান আরও বলেন, ওপেনএআইয়ের প্রধান বিজ্ঞানি ইলিয়া সুটস্কেভার আর পর্ষদের সদস্য হিসেবে থাকবেন না। এর আগে তিনি ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া পর্ষদ সদস্যদের একজন ছিলেন। পরে অবশ্য সামাজিক মাধ্যম এক্স-এ তিনি লেখেন, এ ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্তে ভূমিকা রাখায় তিনি লজ্জিত।

“আমি ইলিয়াকে ভালবাসি ও সম্মান করি। আমি মনে করি, এ খাতে তিনি পথ প্রদর্শক হিসেবে কাজ করছেন। এ ছাড়া, মানুষ হিসেবেও তিনি অসাধারণ। তার প্রতি আমার কোনো প্রতিহিংসা নেই।” --বলেন অল্টম্যান।

তিনি আরও যোগ করেন, সুটস্কেভার কীভাবে ওপেনএআই’তে কাজ চালিয়ে যেতে পারেন, তা নিয়ে কোম্পানি আলোচনা করছে।

অল্টম্যান, ব্রকম্যান, সুটস্কেভার, ডি অ্যাঞ্জেলো’র পাশাপাশি ওপেনএআইয়ের আগের পর্ষদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন উদ্যোক্তা তাশা ম্যাককউলি, ও জর্জটাউনভিত্তিক গবেষণা কোম্পানি ‘সেন্টার ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড ইমার্জিং টেকনোলজি’র পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালক হেলেন টোনার।