টুইটারে নেতৃত্ব দেওয়ার লোক খুঁজছেন ইলন মাস্ক

মাস্ক এক টুইটে বলেছেন, টুইটারকে একটি শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড় করানো পর্যন্ত তিনিই টুইটার চালিয়ে নেবেন। “এতে অবশ্য বেশ খানিকটা সময়ও লাগবে।”

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Nov 2022, 12:55 PM
Updated : 17 Nov 2022, 12:55 PM

টুইটারে কাজের সময় ক্রমশ কমিয়ে আনবেন ইলন মাস্ক এবং সামাজিক মাধ্যম কোম্পানিটির জন্য তিনি নেতৃত্ব দেওয়ার লোক খুঁজছেন। পাশাপাশি, এ সপ্তাহেই তিনি প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোগত একটি বড় পরিবর্তন আনবেন বলে জানিয়েছেন।

টেসলায় পাঁচশ ৬০ কোটি ডলারের বেতন নিয়ে এক মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থনে মাস্ক ডেলওয়্যার অঙ্গরাজ্যে এক আদালতে সাক্ষ্য দিচ্ছিলেন বলে প্রতিবদেনে জানিয়েছে রয়টার্স। মামলার অভিযোগ, সহজে অর্জনযোগ্য টার্গেট ধরে দিয়ে ইলন মাস্ককে এতো বিশাল বেতন দেওয়া হচ্ছে। আর সেটি অনুমোদন করেছে মাস্কের অনুসারীদের নিয়ে গঠিত বোর্ড।

পরে অবশ্য মাস্ক এক টুইটে বলেছেন, টুইটারকে একটি শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড় করানো পর্যন্ত তিনিই টুইটার চালিয়ে নেবেন। “এতে অবশ্য বেশ খানিকটা সময়ও লাগবে।”

সাবেক সিইও ও সহপ্রতিষ্ঠাতা জ্যাক ডরসি এরইমধ্যে বলেছেন, তিনি টুইটারের দায়িত্ব আর নেবেন না। এর পরপরই ইলন মাস্কের এই মন্তব্য এলো। এক ফলোয়ার ডরসিকে প্রশ্ন করেন, তিন ফের টুইটারের সিইও হতে রাজী হবেন কি না। ওই টুইটের জবাবে ডরসি এক শব্দে কেবল বলেন - “নোপ”।

টুইটারের পেছনে সময় দেওয়ার বিষয়টি দিন দিন উদ্বিগ্ন করছে টেসলায় বিনিয়োগকারীদের। 

আদালতে মাস্ক বলেন, টুইটারকে নতুন করে ঢেলে সাজানোর জন্য মালিকানা হাতে পেয়েই এক ধাক্কায় অনেকগুলো কাজ করে ফেলতে হয়েছে।

“এরপর আশা করছি আমি ক্রমশ টুইটারের জন্য বরাদ্দ সময় কমিয়ে আনবো।”

আদালতে মাস্ক স্বীকার করেন, টেসলার প্রকৌশলীদের একটি অংশ টুইটারের প্রকৌশলী দলকে সহায়তা করছেন।

“তবে তারা সেটি করছেন স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে এবং টেসলায় তাদের কাজের সময়ের বাইরে।”

টুইটারের মালিকানা হাতে পাওয়ার পর এই শীর্ষ ধনীর প্রথম দুই সপ্তাহের বর্ণনায় ‘ঝড়ের গতিতে পরবির্তন’ আর ‘বিশৃঙ্খলা’র উল্লেখ রয়েছে রয়টার্সের প্রতিবেদনে। ওই সময়ে তিনি কোম্পানির শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে বহিষ্কার করেন ও ছাঁটাই করেন মোট কর্মীর অর্ধেককে।

এ সপ্তাহেই মাস্ক টুইটারের সকল কর্মীকে একটি মেইল পাঠিয়েছেন, যেটির বক্তব্য হচ্ছে, তাদের এক দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত নিতে হবে দীর্ঘ কর্মঘণ্টা মেনে নিয়ে তারা টুইটারে কাজ করবেন, না কি চাকরি ছেড়ে দেবেন। চাকরি ছাড়লে তারা তিন মাসের বেতন পাবেন বলে উল্লেখ রয়েছে ওই মেইলে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক