গাজায় সাহায্য সংস্থাগুলোকে সংযোগ দেবে স্টারলিংক: মাস্ক

মাস্কের ঘোষণার জবাবে ইসরায়েলের যোগাযোগ মন্ত্রী শলম কার্হি বলেন, এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ‘সর্বাত্মক লড়াই’ করবে ইসরায়েল।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Oct 2023, 07:48 AM
Updated : 29 Oct 2023, 07:48 AM

গাজায় ‘আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত’ বিভিন্ন ত্রাণদাতা প্রতিষ্ঠানকে স্টারলিংক ইন্টারনেট সংযোগ দিয়ে সহযোগিতা করার ঘোষণা দিয়েছেন কোম্পানির মালিক ইলন মাস্ক।

শনিবার মাস্কের ঘোষণার পরপরই এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন ইসরায়েলের যোগাযোগ মন্ত্রী।

সামাজিক মাধ্যম এক্স-এ দেওয়া পোস্টে মাস্ক বলেন, “গাজার স্থলভাগের নিয়ন্ত্রণ কার হাতে, তা পরিষ্কার না হলেও আমরা জানি, ‘ওই এলাকার কোনো টার্মিনাল থেকে সংযোগ পাঠানোর অনুরোধ আসেনি’।”

রয়টার্স বলছে, টেলিফোন ও ইন্টারনেট ব্ল্যাকআউটে শনিবার গোটা বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন গাজার অধিবাসীরা। আর ইসরায়েলের বিমান ও স্থলাভিযান বেড়ে যাওয়ার কারণে তাদের পক্ষে প্রিয়জনদের সঙ্গে ফোনে কথা বলা, অ্যাম্বুলেন্স ডাকা বা সহকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করাও সম্ভব হচ্ছে না।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা বলেছে, গাজায় ব্ল্যাকআউটটি শুরু হয় শুক্রবারের শেষ দিকে। ফলে, এরইমধ্যে চলমান প্রতিকূল পরিস্থিতি আরও বাজে রূপ নেওয়ায় কারও জীবন বাচানো বা কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগের বেলায় বাধার মুখে পড়ছে সংস্থাগুলো।

স্টারলিংকের ইন্টারনেট সংযোগ গাজার নিয়ন্ত্রণে থাকা সশস্ত্র দল হামাস ব্যবহার করবে না।, তা কোম্পানি কীভাবে নিশ্চিত করবে, ওই প্রসঙ্গে রয়টার্স স্পেসএক্স-এর মন্তব্য জানতে চাইলে তাৎক্ষণিক জবাব মেলেনি।

মাস্কের পোস্টের জবাবে ইসরায়েলের যোগাযোগ মন্ত্রী শলম কার্হি বলেন, এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ‘সর্বাত্মক লড়াই’ করবে ইসরায়েল।

“হামাস এর মাধ্যমে জঙ্গি কার্যক্রম চালাবে।” --লেখেন কার্হি।

“মাস্ক সম্ভবত অপহৃত শিশু, ছেলে, মেয়ে, বয়স্ক ব্যক্তিদের মুক্তির শর্ত দেবেন। হয়ত সবাইকেই! ততক্ষণে, আমার দপ্তর স্টারলিংকের সঙ্গে সকল সম্পর্কচ্ছিন্ন করবে।”

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেইনে সামরিক আগ্রাসন শুরুর পর রাশিয়া ইউক্রেইনের কয়েকটি এলাকায় ইন্টারনেট জ্যামিংয়ের মতো পদক্ষেপ নিলেও সংযোগ অব্যাহত রাখার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল স্টারলিংক।

এর পর থেকেই রাশিয়ার দখলে থাকা ক্রাইমিয়া অঞ্চলে ইন্টারনেট সংযোগ দিতে অস্বীকৃতির কথা জানান মাস্ক। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, তার স্যাটেলাইট ব্যবহার করে ওই অঞ্চলে থাকা রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর ওপর ইউক্রেইন আক্রমণ চালাতে পারে, এমন ঝুঁকি থাকায় তিনি এ সিদ্ধান্ত নেন।