আর্জেন্টিনা কী, দেখানোর ডাক মেসির

আরও ঐক্যবদ্ধ হওয়ার বার্তা দিলেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Nov 2022, 06:29 AM
Updated : 23 Nov 2022, 06:29 AM

ফেভারিট দলগুলোর একটি হিসেবে বিশ্বকাপ শুরু করা আর্জেন্টিনার পথচলায় লেগেছে জোর ধাক্কা। শক্তিতে অনেক পিছিয়ে থাকা সৌদি আরবের বিপক্ষে হারের পর জেগেছে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়ের শঙ্কা। সামনে এগিয়ে যেতে নিজেদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার ডাক দিলেন লিওনেল মেসি। ঘুরে দাঁড়িয়ে আর্জেন্টিনার সত্যিকারের সামর্থ্য দেখাতে বলেছেন অধিনায়ক।

লুসাইল স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার প্রত্যাশিতভাবেই শুরুতে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা, দশম মিনিটে মেসির সফল স্পট-কিকে। প্রথমার্ধে আরও তিনবার জালে বল পাঠায় কোপা আমেরিকার চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু অফসাইডের জন্য কোনোটিই গোল হয়নি।

দ্বিতীয়ার্ধে হুট করেই যেন ছন্দ হারিয়ে ফেলে আর্জেন্টিনা। ৫ মিনিটের মধ্যে দুই গোল করে তাদের স্তব্ধ করে দেয় সৌদি আরব। ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতে বিশ্বকাপ ইতিহাসে সবচেয়ে বড় অঘটনের একটির জন্ম দেয় মধ্যপ্রাচ্যের দলটি।

সাড়ে তিন বছরে টানা ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থেকে কাতারে পা রেখেছিল আর্জেন্টিনা। এবারের বিশ্বকাপের ফেভারিট দলগুলির একটি তারা। সেই দলকেই এক ঝটকায় আকাশ থেকে মাটিতে নামিয়ে আনে সৌদি আরব।

এখন অগ্নিপরীক্ষার মুখে পড়ে গেছে আর্জেন্টিনা। আগামী শনিবার মেক্সিকো এবং বুধবার পোল্যান্ডের বিপক্ষে লড়াই তাদের। এই দুই ম্যাচে সামান্য ভুল করারও সুযোগ নেই লাতিন আমেরিকার দলটির। সৌদি আরবের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে সেটাই যেন বলতে চাইলেন মেসি।

“কোনো অজুহাত নেই। এটা সবার জন্যই বড় ধাক্কা। আমরা এমন শুরু আশা করিনি। আমরা আগের চেয়ে আরও বেশি ঐক্যবদ্ধ হব। এই দলটি শক্তিশালী এবং আমরা তা দেখিয়েছি। এটি এমন একটি পরিস্থিতি দীর্ঘ সময় যার মধ্য দিয়ে আমাদের যেতে হয়নি। এখন আমাদের দেখাতে হবে সত্যিকারের সামর্থ্য।”

আর্জেন্টিনা সবশেষ ম্যাচ হেরেছিল ২০১৯ সালের জুলাইয়ে, ব্রাজিলের বিপক্ষে। টানা সবচেয়ে বেশি ৩৭ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ডে ইতালির পাশে বসার অপেক্ষায় ছিল লিওনেল স্কালোনির দল। কিন্তু তাদের জয়রথ থেমে গেল সৌদি আরবের সামনে নাস্তানাবুদ হয়ে।

২৮ বছর ধরে কোনো ধরনের শিরোপার স্বাদ পাচ্ছিল না আর্জেন্টিনা। ২০২১ সালে ব্রাজিলকে হারিয়ে তারা কোপা আমেরিকার ট্রফি জিতে ঘুচায় সেই খরা। পরে ফিনালিস্সিমায় হারিয়ে দেয় ইউরো চ্যাম্পিয়ন ইতালিকে।

এবার তাদের চোখ স্বাভাবিকভাবেই বিশ্বকাপে। শুরুটা খারাপও ছিল না। এগিয়ে থেকেই শেষ করেছিল প্রথমার্ধ। কিন্তু এরপর কী হলো, যেন বুঝে উঠতে পারছে না খোদ আর্জেন্টিনাই।

সৌদি আরবের বিপক্ষে হেরে বিশ্বকাপে নিজেরদের ইতিহাসে বিরল এক ঘটনার জন্ম দিল আর্জেন্টিনা। প্রথমার্ধে এগিয়ে থেকে এর আগে বিশ্ব মঞ্চে সবশেষ তারা কোনো ম্যাচ হেরেছিল উদ্বোধনী আসর ১৯৩০ সালের ফাইনালে, উরুগুয়ের বিপক্ষে।

সৌদি আরবের পরিকল্পনা জেনেই খেলেছিল আর্জেন্টিনা। কিন্তু তাও কাজে লাগাতে পারেনি তারা। হারের দায় মাথা পেতে নিলেন ফুটবলের মহাতারকা মেসি।

“সবকিছুর পেছনে কারণ থাকে। সামনের ম্যাচগুলোর জন্য আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে, জিততেই হবে এবং এটা নির্ভর করছে আমাদের ওপর। আমরা জানতাম যে সৌদি আরব ভালো খেলোয়াড়ে গড়া একটি দল, যারা গতিময় ফুটবল খেলে এবং (রক্ষণ) উপরে উঠে এসে খেলে।”

“আমরা এটা নিয়ে কাজ করেছি, কিন্তু তাদের ওই কৌশলের (রক্ষণ ওপরে রাখার) কারণে আমাদের অনেকগুলো গোল বাতিল হয়েছে। ফাঁদ এড়াতে আমরা সঠিক সময়টি খুঁজে নিতে পারিনি।”

১৯৯০ আসরে ক্যামেরুনের বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই হেরে অঘটনের শিকার হয় তখনকার শিরোপাধারী আর্জেন্টিনা। এরপর ঘুরে দাঁড়িয়ে ফাইনাল খেলে তারা। যদিও শেষ পর্যন্ত শিরোপা জিততে পারেনি। মেসি প্রেরণা নিচ্ছেন সেখানে থেকেই।

“এটা প্রথম ম্যাচ। আমরা যে ভুল করেছি, সেটা শুধরানো আমাদের ওপর নির্ভর করছে। আমরা যা, সে জায়গায় আমাদের যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক