প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ দাবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের

নিমান বা অন্য যারা দাবায় প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছেন, তাদের বিপক্ষে ভবিষ্যতে খেলবেন না ম্যাগনাস কার্লসেন।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Sept 2022, 10:45 AM
Updated : 27 Sept 2022, 10:45 AM

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিদ্বন্দ্বী হান্স নিমানের বিরুদ্ধে প্রথমবারের মতো জনসমক্ষে ম্যাচে প্রতারণার অভিযোগ এনেছেন ম্যাগনাস কার্লসেন। দাবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন একই সঙ্গে বলেছেন, অতীতে যারা প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে তাদের কারো বিপক্ষে আর কখনও খেলবেন না তিনি।

 নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে সোমবার দেওয়া বিবৃতিতে কার্লসেন বলেন, নিমান সাম্প্রতিক সময়েও প্রতারণা করেছে বলে তার বিশ্বাস। এমন গুরুতর অভিযোগের পক্ষে যদিও কোনো প্রমাণ দেখাননি নরওয়ের তারকা দাবাড়ু।

 গত মাসে কার্লসেনকে হারিয়ে অনেক বড় অঘটনের জন্ম দেন ১৯ বছর বয়সী নিমান। তার বিরুদ্ধে অবশ্য মঙ্গলবারের আগেও অভিযোগ করেছেন কার্লসেন, তবে সেগুলো প্রকাশ্যে ছিল না।

 নিমান বলেছেন, প্রতিযোগিতামূলক দাবায় কখনও তিনি কোনোরকম প্রতারণা করেননি। উল্টো অভিযোগ করেন, কার্লসেন তার ক্যারিয়ার ধ্বংসের চেষ্টা করছে।

 এর আগে এই টিনএজার ১২ ও ১৬ বছর বয়সে দুবার অনলাইন দাবায় প্রতারণা করার কথা প্রকাশ্যে স্বীকার করেছিলেন। তবে বোর্ড-গেমে কখনও তেমন কিছু করার বিষয় দৃঢ়ভাবে অস্বীকার করেন।

 বিতর্কিত অধ্যায়ের শুরু এই মাসের প্রথম দিকে, যখন অনেকের মতে দাবার ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড় কার্লসেনকে সিঙ্কফিল্ড কাপে হারিয়ে দেন নিমান। ক্ল্যাসিকাল দাবায় ৫৩ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর হারের তেতো স্বাদ পান কার্লসেন।

 ছয় রাউন্ড বাকি থাকা সত্ত্বেও ওই টুর্নামেন্ট থেকে সরে দাঁড়ান ৩১ বছর বয়সী মহাতারকা। পরে টুইটারে ফুটবল কোচ জোসে মরিনিয়োর একটি ভিডিও শেয়ার করেন যেখানে তাকে বলতে শোনা যায়, “আমি যদি কথা বলি, তাহলে অনেক বড় সমস্যায় পড়ব।”

 গত সপ্তাহে তারা একটি অনলাইন টুর্নামেন্টে আবার মুখোমুখি হন, কিন্তু একটা চাল দেওয়ার পরই কার্লসেন সরে দাঁড়ান-যা ‘নিমানের প্রতারণার’ বিরুদ্ধে তার প্রতিবাদ বলে ধারণা করা হয়।

 অনলাইন টুর্নামেন্টটি অবশ্য শেষ পর্যন্ত কার্লসেন জিতেছিলেন। এরপর তিনি জানান, দাবার কলঙ্কজনক অধ্যায় নিয়ে তিনি আরও সোচ্চার হবেন এবং তিনি চান, দাবায় প্রতারণার বিষয় আরও গুরুত্ব সহকারে মোকাবেলা করা উচিত।

 টুইটারের বিবৃতিতে কার্লসেন বলেন, “আমি বিশ্বাস করি, দাবায় প্রতারণা খুব গুরুতর একটা বিষয় এবং এটি এই খেলার অস্তিত্ব রক্ষায় অনেক বড় হুমকি। আমি এটাও বিশ্বাস করি যে, দাবা টুর্নামেন্টের আয়োজকরা এবং আমাদের ভালোবাসার এই খেলাটিকে যারা গুরুত্ব দেন তারা এর অনিয়ম রুখতে আরও কঠোর হবেন এবং বোর্ড-দাবায় প্রতারণা রুখতে শক্ত ব্যবস্থা নেবেন।”

“আমি বিশ্বাস করি, নিমান জনসম্মুখে যা স্বীকার করেছে তার চেয়ে আরও বেশিবার প্রতারণা করেছে- সাম্প্রতিক সময়েও।” 

কার্লসেন আরও বলেছেন, গত কয়েক বছরে নিমান যে ‘অস্বাভাবিকভাবে’ এগিয়েছে তাতেই তার সন্দেহের উদ্রেক হয়েছে। 

সিঙ্কফিল্ড কাপে তাকে হারানোর ম্যাচে নিমানকে তেমন চিন্তিত কিংবা পুরোপুরি মনোযোগী দেখেননি বলে দাবি করেন কার্লসেন। কালো গুটি নিয়ে সে যেভাবে জিতেছিল, তা কেবল হাতে গোনা কয়েকজন খেলোয়াড়ই করতে পারে বলে মনে করেন কার্লসেন। 

কার্লসেনের সবশেষ গুরুতর এই অভিযোগের বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে নিমানের মন্তব্য জানতে পারেনি রয়টার্স।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক