অশালীন অঙ্গভঙ্গি করে সমালোচনার মুখে রোনালদো

আল শাবাবের বিপক্ষে আল নাস্‌রের জয়ের পর বিতর্কিত এই কাণ্ড ঘটান পর্তুগিজ মহাতারকা।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 Feb 2024, 01:20 PM
Updated : 26 Feb 2024, 01:20 PM

সৌদি আরবের ফুটবলে পাড়ি জমানোর পর থেকে বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর। এবার আল শাবাবের বিপক্ষে আল নাস্‌রের জয়ের পর অশালীন অঙ্গভঙ্গি করে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছেন পর্তুগিজ মহাতারকা।

প্রতিপক্ষের মাঠে রোববার সৌদি প্রো লিগের ম্যাচটি ৩-২ গোলে জেতে রোনালদোর আল নাস্‌র। ২১তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে দলের প্রথম গোলটি করেন রোনালদো।

ক্লাব ফুটবলে এটি তার ৭৫০তম গোল। তবে এই মাইলফলক, দলের জয় ছাপিয়ে আলোচনায় এখন রোনালদোর বিতর্কিত কাণ্ড।

ম্যাচ শেষে আল শাবাবের সমর্থকরা রোনালদোকে উদ্দেশ্য করে তার এক সময়ের প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী লিওনেল মেসির নাম ধরে ‘মেসি, মেসি’ স্লোগান দিতে থাকে। তখন কানের পেছনে হাত নিয়ে সেই স্লোগান শুনছেন, এমন ভঙ্গি করেন রোনালদো। এরপর আল শাবাবের সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে অশালীন অঙ্গভঙ্গি করেন তিনি।

রোনালদোর এই অঙ্গভঙ্গি অবশ্য টেলিভিশন ক্যামেরায় ধরা পড়েনি। তবে সৌদি আরবের ফুটবল-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা মনে করছেন, এই কাণ্ডের জন্য তার শাস্তি হওয়া উচিত।

এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া আসেনি। তবে সৌদি সংবাদপত্র আশার্ক আল-আওসাতের খবর, দেশটির ফুটবল ফেডারেশন এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

সৌদি আরবের জনপ্রিয় লেখক ও টিভি উপস্থাপক ওয়ালিদ আল ফারাজ সামাজিক মাধ্যম এক্স-এ লিখেছেন, “ডিসিপ্লিনারি কমিটি বড় এক পরীক্ষায় পড়তে যাচ্ছে। আমরা অপেক্ষা করব এবং দেখব। আপনি যত বিখ্যাতই হন না কেন, সবকিছুরই সীমা আছে। বড় লিগগুলোতে তাই দেখা যায়।”

৩৯ বছর বয়সী রোনালদো আগেও একই ধরনের সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন। গত বছরের এপ্রিলে আল হিলালের বিপক্ষে লিগ ম্যাচে আল নাস্‌রের ২-০ গোলে হারের পর ডাগআউটে যাওয়ার সময় নিজের পুরুষাঙ্গ ধরেছিলেন তিনি।

এই মাসের শুরুর দিকে রিয়াদ সিজন কাপের ফাইনালে আল নাস্‌রের হারের পর গ্যালারি থেকে রোনালদোর দিকে স্কার্ফ ছুড়ে দেওয়া হয়। সেই স্কার্ফ তুলে নিজের শর্টসের মধ্যে ঢুকিয়ে পরে তা ফেলে দেন সাবেক রেয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড।

গত বছরের জানুয়ারি থেকে আড়াই বছরের চুক্তিতে আল নাস্‌রে খেলছেন রোনালদো। এই মৌসুমে সৌদি লিগে এখন পর্যন্ত ২০ ম্যাচে ২২ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনি।