১৮ বছর পর জলঢাকা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন

গত ২৪ জুলাই উপজেলা ডাকবাংলো মাঠে প্রস্তুতি সভায় হামলা হয়, যা সম্মেলন বানচালের অপচেষ্টা বলে দাবি স্থানীয় নেতাদের।

নীলফামারী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 July 2022, 07:24 AM
Updated : 30 July 2022, 07:24 AM

নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন হচ্ছে ১৮ বছর পর।

জলঢাকা সরকারি কলেজ মাঠে শনিবার বেলা ১১টায় শুরু হওয়া এই সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনার পাশপাশি চলছে উত্তেজনা।

উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা বলেন, “সম্মেলন সফল করতে সকল মহলের সহযোগিতার প্রয়োজন আছে। সংগঠনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পরীক্ষিত নেতৃত্ব আসুক এটা আমরা চাই। তাহলে জলঢাকা উপজেলার নেতৃত্বে দীর্ঘদিনের যে বন্ধ্যত্ব রয়েছে তা কেটে যাবে।”

সম্মেলনকে ঘিরে উত্তেজনা চলছে স্বীকার করে তিনি বলেন, “এখানে সম্মেলন বানচালের একটি ষড়যন্ত্র হয়েছিল। তাদের সেই অপচেষ্টা এখনও অব্যাহত আছে।”

তবে সম্মেলন সফল হবে বলে তিনি আশাবাদী।

একাধিক নেতাকর্মী জানিয়েছেন, নতুন কমিটিতে সভাপতির পদে গোলাম মোস্তফা ছাড়াও সাবেক সভাপতি আব্দুল মান্নানসহ কয়েকজনের নাম শোনা যাচ্ছে।

আর সাধারণ সম্পাদক পদে ছয় প্রার্থীর নাম উঠেছে বিভিন্ন আলোচনায়।

তাদের মধ্যে আছেন উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক সারোয়ার হোসেন সাদের, তিস্তা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ এ কে আজাদ, খুটামারা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবু সাঈদ শামীম, বালাগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আহমেদ হোসেনসহ কয়েকজন।

আর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য আবেদন করেছেন বলে স্বীকার করেছেন।

ওয়াহেদ বলেন, “দীর্ঘদিন পর সম্মেলন হতে যাচ্ছে। নেতা-কর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখছি। সম্মেলন সফল করতে আমরা কাজ করছি।

“আমি সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য আবেদন করেছি। তবে দল যাকেই দায়িত্ব দেবে তার নেতৃত্বে আস্থা রেখে কাজ করে যাব।”

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতি সম্পর্কে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ, রংপুর বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল হক সম্মেলনে থাকার কথা রয়েছে বলে জানান কামাল আহমেদ।

কামাল বলেন, “আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করতে জলঢাকার তৃণমূল নেতা-কর্মীরা এ সম্মেলনের মাধ্যমে সঠিক নেতৃত্ব বাছাই করবেন আশা করি।”

সম্মেলনের জন্য গত ২৪ জুলাই সন্ধ্যায় স্থানীয় ডাকবাংলো মাঠে প্রস্তুতি সভা হয়। সেখানে জেলা নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে প্রস্তুতি সভায় হামলা হয়। এই হামলাকে সম্মেলন বানচালের অপচেষ্টা দাবি করা হয় ২৫ জুলাই এক সংবাদ সম্মেলনে।

সেই হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ৪৯ জনকে আসামি করে জলঢাকা থানায় মামলা করেন গোলাম মোস্তফা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক