কথা ছিলো পরিবারের হাল ধরার, মিললো গলাকাটা লাশ

পরিবার বলছে, মাসখানেক মধ্যেই ফেরদৌসের সৌদি আরব যাওয়ার কথা ছিলো।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Sept 2022, 09:12 AM
Updated : 12 Sept 2022, 09:12 AM

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে মো. ফেরদৌস নামে এক মিশুক চালকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে; যার সংসারের হাল ধরতে মাসখানেক মধ্যে সৌদি যাওয়ার কথা ছিলো বলে জানিয়েছে পরিবার।

সোমবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের কান্দিপাড়া এলাকায় একটি ফসলি জমি থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয় বলে বন্দর থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা জানান।

মৃত মো. ফেরদৌস (২২) ওই ইউনিয়নের শুভকরদি জাহাঙ্গীরনগর এলাকার নজরুল ইসলাম ছেলে।

তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

নিহতের চাচা মো. মাসুদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, তিন ভাইবোনের মধ্যে ফেরদৌস বড় ছিল। তার বাবা এক সময় বন্দরের সেন্ট্রাল খেয়াঘাটে নৌকা চালাতো। গত দুই বছর ধরে কলাগাছিয়া বাজারে পিঠা বিক্রি করেন তিনি। পরিবারের আর্থিক পরিস্থিতি স্বচ্ছল করতে সৌদি আরব যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল ফেরদৌসের। পাসপোর্ট ও ভিসাও হয়ে গেছিল। মাসখানেক মধ্যেই তার যাওয়ার কথা ছিলো।

“দেশে বেকার বইসা থাকবো এই চিন্তা কইরা তিন-চার মাস যাবৎ ভাড়ায় মিশুক চালাইতো। এর মইধ্যেই লাশ হইয়া গেল, বিদেশ যাওয়া আর হইলো না।”বলেন তিনি।

রোববার সন্ধ্যার পর মিশুক নিয়ে বের হয় ফেরদৌস। রাত ৯টায় পরিবারের লোকজনের সঙ্গে মোবাইলে কথা হয়। এরপর আর সে বাড়ি ফেরেনি বলে তার বাড়ির লোকজন জানায়।

মাসুদ বলেন, রাত বারোটার পর থেকে ফেরদৌসের মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। কোথায়ও খোঁজ না পেয়ে রাতেই থানায় জানানো হয়। সকালে তার লাশে পড়ে থাকার খবর পান তারা।

ওসি বলেন, “ফেরদৌসকে বাজেভাবে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। মিশুকটি ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যেই এই খুন হয়েছে বলে ধারণা করছি।”

এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক