রাবির ভর্তি পরীক্ষায় ‘প্রক্সি’, ঢাবির দুজনসহ ৩ শিক্ষার্থী দণ্ডিত

দণ্ডিতদের মধ্যে দুইজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এবং একজন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 July 2022, 02:09 PM
Updated : 26 July 2022, 02:09 PM

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকে ভর্তি পরীক্ষায় অন্যের হয়ে পরীক্ষা দিতে আসায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজনসহ তিন শিক্ষার্থীকে এক বছর করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কৌশিক আহমেদ এই আদেশ দেন।

দণ্ডিতদের রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

দণ্ডিতরা হলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী এখলাসুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী জান্নাতুল মেহজাবীন এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী বায়েজিদ খান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এখলাসুর রহমান ভর্তি পরীক্ষার রোল ১৭২২৮-এর পরীক্ষার্থী লিমনের হয়ে, ৩৯৫৩৪ রোলের পরীক্ষার্থী তানভির আহমেদের হয়ে বায়েজিদ খান এবং ৬২৮২৮ রোলের পরীক্ষার্থী মোসা. ইশরাত জাহানের হয়ে জান্নাতুল মেহজাবিন পরীক্ষা দিচ্ছিলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক বলেন, “আজ 'এ' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা চলাকালে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রক্সি দেওয়ার অভিযোগে তাদের আটক করা হয়। আটকের পড়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অপরাধ স্বীকার করেন তারা। এরপর ম্যাজিস্ট্রেট তাদের এক বছর করে কারাদণ্ড দেন।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, “ভর্তি পরীক্ষায় কোনো ধরনের জালিয়াতি কিংবা অনৈতিক কাজ করার সুযোগ নেই। এসব দেখভাল করার জন্য সার্বক্ষণিক তদারকি জারি রেখেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা টিম ও বিচক্ষণ শিক্ষকগণ। তাই ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি করে পার পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।”

সোমবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে স্নাতকের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিন’এ‘ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হয়েছে। এ ইউনিটে লড়ছেন ৬৭ হাজার ২৩৭ জন ভর্তিচ্ছু।

ভর্তি পরীক্ষাকে সুশৃঙ্খলভাবে পারি দিতে সক্রিয় অবস্থান করছেন ১৫ স্তরের নিরাপত্তা টিম। এছাড়া ভর্তি প্রস্তুতির আগেই সকল ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা কঠোরভাবে রোধ করার ঘোষণা দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক