মুন্সীগঞ্জে স্কচটেপ পেঁচানো বস্তুর বিস্ফোরণে কব্জি গেল শিশুর

শিশু আব্দুল্লাহর ডান হাতের কব্জি উড়ে গেছে; ঘটনাস্থলে মাংসপিণ্ড ও হাতের আঙুল পড়ে থাকতে দেখা যয়।

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Nov 2022, 03:51 PM
Updated : 11 Nov 2022, 03:51 PM

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে স্কচটেপ মোড়ানো একটি বস্তু নিয়ে খেলার সময় বিস্ফোরণে এক শিশুর কব্জি উড়ে গেছে। এ সময় আরও এক শিশু আহত হয়েছে।

শ্রীনগর থানার এসআই মো. সামিউল ইসলাম জানান, শুক্রবার দুপুরে উপজেলার বাঘড়া তালুকদার বাড়ি এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

কব্জি উড়ে যাওয়া শিশু আব্দুল্লাহকে (৮) ঢাকায় পঙ্গু হাসপাতালে এবং মুখে আঘাত পাওয়া মারিয়াকে (৮) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা সম্পর্কে চাচাতো ভাই-বোন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের মতো দিনমজুর বাবু শেখের ছেলে আব্দুল্লাহ ও রিকশাচালক রুবেল শেখের মেয়ে মারিয়া বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত নিচু জমিতে খেলতে যায়। আব্দুল্লাহ কুড়িয়ে পাওয়া স্কচটেপ পেঁচানো একটি বস্তু নিয়ে খেলা শুরু করলে তা বিস্ফোরিত হয়ে তার ডান হাতের কব্জি উড়ে যায়। বিকট শব্দে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। ঘটনাস্থলে মাংসপিণ্ড ও হাতের আঙুল পড়ে থাকতে দেখা যয়।

স্থানীয়রা তাদের প্রথমে শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের ঢাকায় মিটফোর্ড হাসপাতালে নেওয়া হয়। মিটফোর্ড হাসপাতাল থেকে আব্দুল্লাহকে পঙ্গু হাসপাতালে এবং মারিয়াকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আব্দুল্লাহর চাচি হেনা বেগম ( ৪০) জানান, প্রচণ্ড শব্দের পর ঘটনাস্থল ধোঁয়ায় কালো হয়ে যায়। বিস্ফোরণে সেখানে গাছের বাঁকল উঠে গেছে। হাতের বিভিন্ন অংশ ও ছিন্নভিন্ন স্কচটেপ ও লোহার ছোট ছোট স্ক্রু সেখানে পড়েছিল। পরে পুলিশ এসে এগুলো নিয়ে যায়।

ওই এলাকার দোকানি জিন্নত বেপারী বলেন, “হঠাৎ শব্দে মাটি কেঁপে ওঠে। তারপর কান্নাকাটি শুনে এই বাড়িতে এসে দেখি আব্দুল্লাহর অবস্থা ভালো না।”

আব্দুল্লাহর ফুপু সখি (৩০) বলেন, “আমাদের আর্থিক অবস্থা ভালো না। গ্রামের লোকজন চাঁদা তুলে তাদের হাসপাতালে নিয়ে গেছে।”

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি বলেন, কেউ হয়তো বোমা বা ককটেল বানানোর পর তা ফেলে দিয়েছে। শিশুরা তা বুঝতে না পেরে হাতে নিয়ে খেলা করার সময় তা বিস্ফোরিত হয়। মেয়ে শিশুটির মুখে বিঁধে থাকা লোহার টুকরা থেকে বোঝা যায় এটি ‘ককটেল’।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. নুরুজামান বলেন, “দুই শিশু গুরুতর আহত হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে এটি পরিত্যক্ত কোনো ককটেল বোমা হয়ে থাকতে পারে। এর বিস্ফোরণের বিকট শব্দে পুরো এলাকা কেঁপে উঠেছে।”

শ্রীনগর থানার এসআই মো. সামিউল ইসলাম বলেন, “খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসি। ঘটনাস্থল থেকে লাল রংয়ের কিছু স্কচটেপ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যাচ্ছি। প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি এখানকার চারপাশে জলাধার, মাঝখানে একটু উঁচু জায়গায় শিশুরা নিয়মিত খেলা করে। প্রায় সময় পাটখড়ি ও শুকনো ডালপালায় গ্যাস লাইটার দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে তারা খেলা করে থাকে।”

শ্রীনগর থানার ওসি মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছিল। বিস্ফোরিত বস্তুটি ককটেল কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক