টুঙ্গিপাড়ার বর্ণি বাওড়ে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ, গ্রামীণ মেলা

এতে প্রত্যন্ত গ্রামের ২৫টি বাছারী নৌকা অংশ নেয়।

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 March 2024, 06:30 AM
Updated : 29 March 2024, 06:30 AM

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার বর্ণির বাওড়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে নৌকা বাইচ। আবহমান গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী এই প্রতিযোগিতা ঘিরে হয়েছে গ্রামীণ মেলাও।

মঙ্গলবার বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলা এই বাইচে গোপালগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামের ২৫টি বাছারী নৌকা অংশ নেয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিধন্য টুঙ্গিপাড়া উপজেলার বর্নি ইউনিয়নবাসীর উদ্যোগে এ নৌকা বাইচ আয়োজিত হয় বলে জানান আয়োজক ও ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান খালিদ হোসেন ।

তিনি জানান, প্রায় শত বছর ধরে প্রতি বছর বর্ণি বাওড়ে ঐতিহ্যবাহী এ নৌকা বাইচ হয়ে আসছে। চিত্ত বিনোদনের জন্য এ দিনটির অপেক্ষা করে থাকেন এ এলাকার মানুষসহ আশপাশের অনেক গ্রামের মানুষ। উপভোগ করেন কাসির তালে তালে মাল্লাদের গাওয়া জারি-সারি আর বৈঠার ছলাৎ-ছলাৎ শব্দ।

আগামীতেও এ ঐতিহ্য ধরতে রাখতে নৌকা বাইচের আয়োজন অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার বাওড়ের মধ্যে ছোট ছোট অসংখ্য নৌকায় বসে নানান বয়সী-নারী পুরুষ উপভোগ করেন বাইচ। এ ছাড়া বাওড়ের দুপাড়ে দাঁড়িয়ে বিভিন্ন বয়সের হাজার হাজার নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোর প্রতিযোগিতা উপভোগ করেন।

বাইচ উপলক্ষ্যে বাওড়ের দুপাড়ে বসে গ্রামীণ মেলা। মেলায় মিষ্টি, প্রসাধনী, বিভিন্ন ধরনের খাবার ও শিশুদের খেলনাসহ বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের পসরা নিয়ে বসেন দোকানিরা।

গোপালগঞ্জ শহর থেকে নৌকা বাইচ দেখতে আসা আকবর হোসেন, সজীব বিশ্বাস জানান, আমাদের আগের নানা ঐতিহ্য হারিয়ে যাচ্ছে। গ্রামীণ এসব ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

প্রতিযোগিতায় টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পারকুশলি গ্রামের মামা-ভাগ্নে নৌকা প্রথম, বর্নি গ্রামের স্বপ্নের তরী দ্বিতীয় ও জোয়ারিয়া গ্রামের জয়মা দুর্গা নৌকা তৃতীয় স্থান অধিকার করে। পরে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

 [প্রতিবেদনটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক]