গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার সময় খুবি ক্যাম্পাসে অভিভাবকদের প্রবেশ নিষেধ

পরীক্ষার্থীরা মোবাইল ফোন, ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস, ব্যাগ ও বই নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন না।

খুলনা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 July 2022, 04:37 AM
Updated : 28 July 2022, 04:37 AM

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় উপকেন্দ্রে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা চলার সময় কোনো পরীক্ষার্থীর অভিভাবক ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে পারবেন না বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সীমিত করা হয়েছে যান চলাচলও।

গুচ্ছ পদ্ধতিতে দেশের ২০টি সাধারণ ও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথমবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা ৩০ জুলাই এবং ১৩ ও ২০ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে।

পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে বুধবার বিকালে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ ভবনের সম্মেলন কক্ষে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এক মতবিনিময় সভা হয়। এতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মাহমুদ হোসেন সভাপতিত্ব করেন।

সভায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ ও প্রকাশনা দপ্তরের পরিচালক এস এম আতিয়ার রহমান বলেন, ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য সভায় বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বেলা ১২টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ওই তিনদিন পরীক্ষা চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয় উপকেন্দ্রে কোনো অভিভাবক প্রবেশ করতে পারবেন না।

গল্লামারী ব্রিজের পশ্চিমপাশ থেকে জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত সব ধরনের যানবাহন সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোগ্রামযুক্ত স্টিকারধারী যানবাহন প্রবেশ করতে পারবে।

এছাড়া পরীক্ষার্থীরা মোবাইল ফোন, কোনো ধরনের ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস, ব্যাগ ও বই নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন না। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক দিয়ে তাদের ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে হবে।

আতিয়ার বলেন, গুচ্ছ পদ্ধতিতে স্নাতক প্রথমবর্ষে ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৩০ জুলাই খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ছাড়াও রেভারেন্ড পলস্ হাইস্কুল ও হোপ পলিটেকনিক উপকেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ৫ হাজার ৪২৪ জন, রেভারেন্ড পলস্ হাইস্কুলে ১ হাজার ৫১২ জন ও হোপ পলিটেকনিক উপকেন্দ্রে ৮২৮ জন পরীক্ষার্থীর আসনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এছাড়া আগামী ১৩ অগাস্ট ‘খ’ ইউনিট এবং ২০ আগস্ট ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুধু খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে।

ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরে আশপাশের নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা রক্ষায় অতিরিক্ত পুলিশ, গোয়েন্দা, র‌্যাব ও সাদাপোশাকে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন বলে সভায় জানানো হয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক