মিয়ানমারের গোলা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে, হতাহতের খবর

চার থেকে পাঁচটি গোলা এসে পড়ার কথা বলছেন রোহিঙ্গারা।

বান্দরবান প্রতিনিধিকক্সবাজার প্রতিনিধি ও জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Sept 2022, 04:05 PM
Updated : 16 Sept 2022, 06:17 PM

মিয়ানমার থেকে আসা গোলা সীমান্তের শূন্যরেখায় থাকা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিস্ফোরিত হয়ে কয়েকজন হতাহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

শুক্রবার রাত ৮টার দিকে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু ও কোণাপাড়া সীমান্তের শূন্যরেখায় থাকা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ক্যাম্পের ভেতর গোলা পড়ে বলে ক্যাম্পের কমিউনিটি নেতা মো. আরিফ ওরফে মাস্টার আরিফ জানান।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দাদের কাছ থেকে পাওয়া একটি ভিডিওতে এক যুবককে রক্তাক্ত অবস্থায় একটি অটোরিকশায় তুলতে দেখা গেছে। তবে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ওই ভিডিওর বিষয়টি স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারেনি।

আরিফ বলেন, রাত ৮টায় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের কোণাপাড়া শূন্যরেখায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মিয়ানমার দিক থেকে বেশ কয়েকটি মর্টার শেল ছোড়া হয়। এর মধ্যে তিনটি মর্টার শেল এসে বিস্ফোরিত হয় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এবং দুইটি বিস্ফোরিত হয় বাংলাদেশ সীমান্তের অভ্যন্তরে।

“রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিস্ফোরিত মর্টার শেলের আঘাতে ঘটনাস্থলে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে এবং চারজন আহত হয়েছে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন এমএসএফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তবে সীমান্তের কাছে বিস্ফোরিত মর্টার শেলের আঘাতে কোনো হতাহত আছে কিনা নিশ্চিত নই।”

আরিফ আরও জানান, ঘটনার পর থেকে কোণাপাড়া সীমান্তের শূন্যরেখার ক্যাম্পে অবস্থানকারী রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। এ ঘটনায় বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবির কঠোর নজরদারি দেখা গেছে।

কোণাপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাঝি দিল মোহাম্মদ বলেন, “ক্যাম্পের ভিতরে একটি গোলা পড়ে বিস্ফোরিত হয়েছে। এতে একজন নিহত ও পাঁচজন আহত হয়েছে। ক্যাম্পের ১০ গজ দূরে আরও দুটি গোলা পড়েছে।”

তিনি বলেন, “বাংলাদেশের সীমান্তের অভ্যন্তরে আরও একটি গোলা পড়েছে। তবে সেটা ঠিক কোথায় পড়েছে তা বলতে পারছি না।” 

মাঝি দিল মোহাম্মদ জানান, নিহত হয়েছেন মোহাম্মদ ইকবাল (১৫)। আহতরা হলেন জাহিদ আলম (৩০), নবী হোসেন (২১), মো. আনাস (১৫), সাদিয়া (০৯) ও অজ্ঞাতনামা একজন।  

ঘুমধুম ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য দিল মোহাম্মদ (তার নামও একই) বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, একটা গোলা ফুটে এক রোহিঙ্গা মারা গেছে; আরও কয়েকজন আহত হয়েছে। বাংলাদেশি লোকজন হতাহত হয়নি।

ঘটনার পর ওই এলাকা থেকে স্থানীয় ৩০/৩৫টি বাংলাদেশি পরিবার অন্যত্র চলে গেছে। শূন্য রেখায় থাকা কিছু রোহিঙ্গাও পালিয়ে গেছে বলে জানান এই ওয়ার্ড সদস্য।  

এ বিষয়ে জানতে ঘুমধুম পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই সোহাগ রানার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “আমরা সীমান্তে যেতে পারি না। সীমান্ত বিষয় নিয়ে আমরা কথা বলতেও পারি না। এ ব্যাপারে আমাদের কাছে কোনো তথ্য নেই।”

তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে বিজিবি বা উপজেলা প্রশাসনের কোনো কর্মকর্তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Also Read: মিয়ানমার সীমান্তে ‘মাইন’ বিস্ফোরণে বাংলাদেশি আহত

এর আগে সকালে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে মিয়ানমার সীমান্তে বিস্ফোরণে এক বাংলাদেশি যুবক আহত হন।

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা ফেরদৌস জানান, শুক্রবার উপজেলার ঘুমধুমের বাইশফাঁড়ি সীমান্তে এই বিস্ফোরণ হয়।

আহত অংথোয়াইং তঞ্চঙ্গা (২২) ঘুমধুম ইউনিয়নের বাইশফাঁড়ি চাকমা পাড়ার অঙ্গোথোয়াই তঞ্চঙ্গার ছেলে। সীমান্তের ওপারে মাইন বিস্ফোরণে তিনি আহত হয়েছেন বলে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মোহাম্মদ আলমের ধারণা।

স্বজনদের বরাতে তিনি বলেন, সকালে সীমান্ত এলাকায় গরু চরাতে যান অংথোয়াইংসহ স্থানীয় কয়েকজন যুবক। এক পর্যায় গরু সীমান্তের শূন্যরেখা অতিক্রম করে মিয়ানমারের অংশে ঢুকে পড়ে।

“তারা গরু ফিরিয়ে আনতে ওপারে গেলে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। ঘুমধুম ইউনিয়নের বাইশফাঁড়ি চাকমা পাড়া সীমান্তের ৩৫ নম্বর পিলারের সংলগ্ন মিয়ানমারের ১০০ গজ অভ্যন্তরে এ ঘটনা ঘটেছে।”

তিনি জানান, বিস্ফোরণে ওই যুবকের একটি পা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন এমএসএফ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।

ওই ঘটনার পর থেকে সীমান্তে বিজিবি টহল জোরদার করা হয়েছে। স্থানীয়দের সীমান্ত এলাকায় যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

এদিকে সীমান্তে ভীতিকর পরিস্থিতির মধ্যে বান্দরবানের ঘুমধুমের একটি এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র কক্সবাজারে স্থানান্তর করা হয়েছে।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রাখাইনদের সংগঠন আরাকান আর্মির সঙ্গে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সংঘাতের মধ্যে এর আগে সীমান্তে গোলা এসে পড়েছে। তবে সেটি বিস্ফোরিত হয়নি।

এরপর বেশ কয়েকবার মিয়ানমারের যুদ্ধবিমানের আকাশসীমা লঙ্ঘনের ঘটনাও ঘটে। সীমান্তের বাসিন্দারা নিয়মিতই গোলাগুলির শব্দ পাচ্ছিলেন; যাতে তাদের মধ্যে এক ধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছিল। 

মিয়ানমার বিষয়ক সংবাদ মাধ্যম ইরাবতি জানাচ্ছে, রাখাইনদের সংগঠন আরাকান আর্মির অবস্থান লক্ষ্য করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী বোমা বর্ষণ করে।

সংঘাতের মধ্যে গত ২৮ অগাস্ট দুপুরে বান্দরবানের ঘুমধুমের তুমব্রু সীমান্তে মিয়ানমার থেকে দুটি অবিস্ফোরিত মর্টার শেল এসে পড়ে।

এরপর ৩১ অগাস্ট রাখাইন রাজ্যের বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী মংডু শহরতলীতে আরাকান আর্মির সদস্যরা একটি পুলিশ পোস্টে হামলা চালিয়ে ১৯ জনকে হত্যা করে বলে প্রকাশিত সংবাদে দাবি করা হয়। আরাকান আর্মির দখলে নেওয়া পুলিশ ফাঁড়ি দখলে নিতে সেনাবাহিনী এগোচ্ছে।

এর মধ্যে ৩ সেপ্টেম্বর মিয়ানমারের দুটি যুদ্ধবিমান ও দুটি ফাইটিং হেলিকপ্টারে গোলা বাংলাদেশের সীমানার ভেতরে এসে পড়ে।

এসব ঘটনায় দেশটির রাষ্ট্রদূতকে দুইবার ডেকে কড়া প্রতিবাদ জানায় ঢাকা। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন সাংবাদিকদের বলেন, “এটা উসকানিমূলক না। এটা স্ট্রে (আকস্মিক চলে এসেছে)।”

স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গোলাগুলির কারণে অনেকেই বাড়ি থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছেন। তারা সীমান্ত থেকে নিরাপদ দূরত্বে থাকার চেষ্টা করছেন। সীমান্ত এলাকায় রাবার বাগানে যেসব শ্রমিক কাজ করেন তাদের সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আপাতত সেখানে শ্রমিকরা কাজ করতে যাচ্ছেন না।

এদিকে ২০১৭ সালে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনে পালিয়ে আসা ৬২১টি পরিবারে চার হাজার ২০০ রোহিঙ্গা এখনও তুমব্রু সীমান্তের কোণাপাড়ার শূণ্যরেখার আশ্রয়শিবিরে অবস্থান করছে। গোলাগুলির কারণে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর লোকজনের মধ্যে বেশি আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন:

সীমান্তে মিয়ানমারের গোলাগুলি বন্ধ হলেও আতঙ্কে স্থানীয়রা

মিয়ানমারের দূতকে ফের ডেকে নিয়ে গোলাবর্ষণের প্রতিবাদ

মিয়ানমারের নাগরিকদের ঢুকতে দেওয়া হবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বান্দরবান সীমান্তে এবার পড়ল মিয়ানমারের যুদ্ধবিমানের গোলা: পুলিশ

মর্টার শেল: মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব, কড়া প্রতিবাদ ঢাকার

মিয়ানমার থেকে উড়ে এসে বান্দরবান সীমান্তে পড়ল দুটি মর্টার শেল

মিয়ানমার থেকে মর্টার শেল: ‘কড়া’ প্রতিবাদ জানাবে বাংলাদেশ

মিয়ানমার সীমান্তে ‘মাইন’ বিস্ফোরণে বাংলাদেশি আহত 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক