বরিশালে একসঙ্গে ৫ কিশোরী নিখোঁজ, দম্পতিকে পুলিশে দিল স্থানীয়রা

এতে জড়িত সন্দেহে এক কিশোরীর পালক বাবা-মাকে পুলিশে দিয়েছে অভিভাবকরা।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 March 2024, 08:00 PM
Updated : 31 March 2024, 08:00 PM

বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় রহস্যজনকভাবে একইদিনে পাঁচ স্কুলছাত্রী নিখোঁজ হয়েছে। এতে জড়িত থাকার সন্দেহে এক কিশোরীর পালক বাবা-মাকে পুলিশে দিয়েছে অপর ছাত্রীদের অভিভাবকরা।

বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর এলাকায় পুলিশ উত্তেজিত জনতার হাত থেকে আটকদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় বলে জানিয়েছেন গৌরনদী মডেল থানার এসআই মো. সাহাবুদ্দিন।

আটকরা বাবুগঞ্জ উপজেলার ঠাকুরমল্লিক গ্রামের বাসিন্দা। আটক নারী তার স্বামীর দ্বিতীয় স্ত্রী। তিনি পালিত মেয়েকে নিয়ে বাটাজোর এলাকার ভাড়া বাসায় থাকতেন। স্বামী বাবুগঞ্জ থাকেন।

নিখোঁজ এক কিশোরীর মা জানান, বুধবার সকালে স্কুলে যাওয়ার কথা বলে তার অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ে বাসা থেকে বের হয়। কিন্তু সে বাসায় না ফেরায় খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বাটাজোর এলাকা থেকে আরও চার স্কুলছাত্রী নিখোঁজ হয়েছে বলে খবর পান।

নিখোঁজ আরেক কিশোরীর বাবা দেওপাড়া গ্রামের বাসিন্দা বলেন, “সকালে স্কুলে যাওয়ার কথা বলে আমার নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ে বাসা থেকে বের হয়ে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়। ”

এই অভিভাবকরা অভিযোগ করেন, বিকালে নিখোঁজ এক কিশোরী তার পালিত মায়ের মোবাইলে ফোন করে জানায় তারা পাঁচজন একত্রে রয়েছে। কিন্তু বিষয়টি তিনি অন্যদের না জানিয়ে রাত ১০টার দিকে বড় একটি প্লাস্টিকের বাটি ভর্তি করে ভাত-তরকারিসহ তার স্বামীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

এতে স্থানীয়দের সন্দেহ হলে দুজনকে আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।

নিখোঁজ নবম শ্রেণির স্কুলছাত্রীর বাবা বলেন, “আমাদের ধারণা ওই নারী ও তার স্বামী তাদের পালিত মেয়ের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়েদের সাথে গভীর সখ্যতা করে পাচারের উদ্দেশ্যে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে আটক করে রেখেছে। তাদের জন্য রাতের খাবার নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো।”

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে আটক নারী বলেন, “বিকালে আমার পালিত মেয়ে ফোন করে জানায় নিখোঁজ পাঁচজন মেয়ে একসঙ্গে ঢাকা যাচ্ছে। একথা জানিয়েই মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেওয়া হয়।”

আটক নারীর স্বামী বলেন, বুধবার রাত ৮টার দিকে স্ত্রী মোবাইল ফোনে মেয়ের নিখোঁজের বিষয়ে জানালে তিনি বাটাজোর আসেন। এরপর স্থানীয়রা পাচারকারী সন্দেহে স্ত্রীর সঙ্গে তাকেও আটক করেছে।

এসআই মো. সাহাবুদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে স্বামী ও স্ত্রীকে উদ্ধার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেওয়া হয়েছে। পুরো বিষয়টি গভীরভাবে তদন্ত করা হচ্ছে।

পাশাপাশি নিখোঁজ ছাত্রীদের উদ্ধারের জন্যও চেষ্টা চলছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

[প্রতিবেদনটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক]